বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

টুইটারে ইরান-পাকিস্তান সীমান্তে অপহৃত ইরানি সৈন্যের ছবি প্রকাশ করল বিদ্রোহী গ্রুপ

Five Soldiers kidnapped nera Iran-Pakistan border, source: Jaish al-Adl's Twitter

৫ জন অপহৃত ইরানি সৈন্য। ছবিটি জাইশ আল-আদিলের টুইটার আকাউন্ট থেকে প্রকাশিত।  

ইরানিরা ইরান-পাকিস্তান সীমান্তে পাঁচজন ইরানি সীমান্তরক্ষীকে অপহরণ সম্পর্কে সচেতনতা ছড়িয়ে দিতে #ফ্রিইরানিয়ানসোলজার্স হ্যাশট্যাগটি ব্যবহার করছে। বেলুচ সুন্নি মুসলমান অধ্যুষিত বিদ্রোহী গ্রুপ জাইশ আল-আদিল (সুবিচারক সেনা) এই অপহরণের সকল দায়দায়িত্ব স্বীকার করেছে। তারা তাদের টুইটার একাউন্টের মাধ্যমে অপহৃত সেনাদের উপরোক্ত ছবিটি প্রকাশ করেছে। 

জাইশ আল-আদিল সিস্তান-বেলুচিস্তান ভিত্তিক একটি বিদ্রোহী গ্রুপ। এটি ইরানের অন্যতম একটি বৃহত্তম এবং দরিদ্রতম প্রদেশ। এখানে ২০ লক্ষ সুন্নি-মুসলমান বাস করে থাকে। এ অঞ্চলের নৃতাত্ত্বিক বেলুচ এবং সুন্নি-মুসলমান বিদ্রোহীরা তেহরানের শিয়া-সরকারের কাছ থেকে সাম্প্রতিক সময়ে আরও বেশী স্বায়ত্তশাসন দাবি করছে।    

ইরান সরকার কর্তৃক সন্ত্রাসী গ্রুপ হিসেবে আখ্যায়িত জাইশ-উল-আদিল ২০১৩ সালের অক্টোবর মাসে অতর্কিত আক্রমণ চালায় এবং ১৪ জন ইরানী সীমান্ত রক্ষীকে হত্যা করে। এ ঘটনার প্রতিক্রিয়া স্বরূপ শিয়া-প্রধান দেশটির কর্তৃপক্ষ সিস্তান-বেলুচিস্তান থেকে জাইশ-উল-আদিলের সাথে সম্পর্কিত ১৬ জন লোকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে।  

ইরানি সংস্কারবাদী রাজনীতিবিদ মোহাম্মাদ রেজা আরেফ টুইট করেছেনঃ 

ইরানি সেনারা আমাদের সুবিচার, নিরাপত্তা এবং শান্তির জন্য আমাদের সীমান্ত পাহারা দিচ্ছে।  

ইরানি সামাজিক প্রচার মাধ্যম গবেষক এবং ব্লগার নারিমা ঘারিব টুইট করেছেনঃ 

এমন একটি সন্ত্রাসী গ্রুপের টুইটার একাউন্ট থাকে কি করে ?  

ইরানি বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক মারিয়াম নায়েব ইয়াজদি টুইট করেছেনঃ 

ইরানের নাগরিকেরা #ফ্রিইরানিয়ানসোলজার্স হ্যাশট্যাগটিতে সেনাদের সম্পর্কে এমনভাবে টুইট করছে যেন তারা শাসনতন্ত্রের কোন বাহিনী নয়, বরং তাদের ভাই। তারা তাদের নিজেদের ভাইদেরকেই যেন রক্ষা করছে। 

 

ইরান ভিত্তিক টুইটার ব্যবহারকারী আফিম একতাবদ্ধ হওয়ারডাক দিয়েছেনঃ

Hey you, don't tell me there's no hope at all  Together we stand, divided we fall. #FreeIranianSoldiers

— opium (@opiums) February 10, 2014

 আপনাদের বলছি, ভুলক্রমেও আমাকে বলবেন না আর কোন আশা নেই। কেননা একতাই শক্তি আর বিভেদেই পরাজয়।   

ইরানের মোট জনসংখ্যার শতকরা ২ ভাগ লোক হচ্ছে বেলুচ। তারা ২০০৬ সাল থেকে রাষ্ট্রীয় খরচের প্রায় শতকরা ২০ ভাগ পরিশোধ করে আসছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক একটি গ্রুপ আব্দুর রহমান বোরোউমান্দ ফাউন্ডেশনের জরিপ অনুযায়ী এই তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। এই সংস্থাটি ইরানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়গুলো খতিয়ে দেখে।  

ইরান সরকার বিশ্বাস করে, জাইশ-উল-আদিল পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে আত্মগোপন করে আছে। কারণ, পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশটি ইরানের সিস্তান-বেলুচিস্তান প্রদেশের সীমান্ত এলাকাতে অবস্থিত। পাকিস্তান নিজেই তাঁর বেলুচি বিদ্রোহের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে। ইরানের সীমান্তে সামরিক শিবিরের উপর হামলার বিরুদ্ধে শৃঙ্খলামূলক শাস্তির ব্যবস্থা নিতে পাকিস্তান ব্যর্থ হওয়ায় ইরান পাকিস্তানের সমালোচনা করেছে।  

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .