বিজয় · আগস্ট, 2012

নৃবিজ্ঞানে পড়ালেখা শেষ করে লেখার জগতে আছি। কাজ করি বিজ্ঞাপনের জগতে। নিজের ইচ্ছেয় নয় পণ্যের তাগিদেই ভাষা তৈরী হয়। সঙ্গীতটা চালিয়ে যেতে চাই, কিন্তু সুরও যেন বড় বেসুরো বাজে। ভাষার প্রতি দুর্বলতা রয়েছে, যদি সম্ভব হতো বিশ্বের সব ভাষায় কথা বলতে চাইতাম, কিন্তু মাতৃভাষাটাই যেন পুরোপুরি আয়ত্বে আসেনি এখনও। তারপরেও অনেকগুলো ভাষা শিখতে চাই।

ইমেইল বিজয়

সর্বশেষ পোস্টগুলো বিজয় মাস আগস্ট, 2012

ইরানঃ গ্রীন মুভমেন্ট আন্দোলনের গ্রেফতারকৃত নেতাকে হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে

মীর হোসেন মৌসা্ভি ইরানের গ্রীন মুভমেন্ট নামক আন্দোলনের অন্যতম এক গুরুত্বপূর্ণ নেতা, সংস্কারবাদী প্রার্থী হিসেবে যিনি ২০০৯ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করেছিলেন এবং ঘটনাক্রমে নির্বাচন পরবর্তী অস্থিরতার সময়ে যিনি বিরোধীদের নেতায় পরিণত হন। ‘হৃদরোগে সংক্রান্ত জটিলতার’ কারণে তাকে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। মৌসাভিকে ৫২০ দিন ধরে গৃহবন্দী হিসেবে আটকে রাখা হয়েছে।

মায়ানমারঃ মিজ্জিমা ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়েছে

  27 আগস্ট 2012

“আমরা দুঃখের সাথে আপনাদের জানাচ্ছি যে মিজ্জিমা ওয়েবসাইটের উপর ডিডস হামলা চালানো হয়েছে। রাখাইন প্রদেশে চলতে থাকা দাঙ্গার বিষয়ে সংবাদ প্রদান করার কারণে মিজ্জিমা বেশ কিছু হুমকি পায়।” মিজ্জিমা, মায়ানমারের একটি স্বাধীন প্রচার মাধ্যম ওয়েবসাইট, যারা ডিডস হামলা সম্বন্ধে একটি বিবৃতি প্রদান করেছে।

টোগো: সংস্কারের জন্য যৌন ধর্মঘট

ইসিলোমে.কম, টোগোর রাজধানী লোমেতে চলতে থাকে এক বিক্ষোভ সম্বন্ধে লিখেছে [ফারসী ভাষায়] : টোগোর এএনসি [ন্যাশনাল এ্যালায়েন্স ফর চেঞ্জ] নামক দলের আইনজীবী ইসাবেল আমেগানভি আনুষ্ঠানিকভাবে বিবৃতি প্রদান করেছেন যে, টোগোতে এক পরিবর্তন আনার লক্ষ্যে পুরুষদের উপর চাপ প্রদান করার জন্য সোমবার থেকে দেশটির নারীরা যৌন ধর্মঘট পালন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ...

কোস্টারিকা: রাতের বেলা বের হবার কারণে আমি ধর্ষণের শিকার হয়েছিলাম, আর এটাই কি আমার অপরাধ

শক্তি এবং সাহসের সাথে, লাভ ফ্যাশান এন্ড ভিনটেজ ব্লগের সোভিয়াদেলসোল সম্প্রতি তার গাড়ি চুরি হয়ে যাওয়া, তাকে তুলে নিয়ে যাওয়া এবং তার উপর সংঘঠিত ধর্ষণের ঘটনা সম্বন্ধে লিখেছেন। সেই রাতে তিনি তার ছেলেবন্ধুর সাথে বের হয়ে ছিলেন। এই সমাজ হচ্ছে এমন এক সমাজ, যে সমাজে ছিনতাই, চুরি বা যে কোন কিছুর জন্য ঘটনার শিকার ব্যক্তির উপর দোষারোপ করা হয়, সেখানে উক্ত ভদ্রমহিলা সাহসের সাথে এই ধরনের অপরাধের শিকার নাগরিকদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে এবং এই সমস্ত ঘটনা ঘটতে দেওয়ার জন্য সমাজকে দোষারোপ করেছেন।

জর্ডানঃ ইন্টারনেট সেন্সরশিপকে না বলুন

জর্ডান নামক দেশটির নাগরিকরা এক অন্ধকারে রয়ে গেছে, যেখানে আজ [ ২২ আগস্ট, ২০১২] দেশটির সরকার ইন্টারনেট স্বাধীনতার উপর নতুন নিয়ন্ত্রণ আরোপের বিষয়টি অনুমোদন করেছে। প্রথমত, সরকার যে কোন ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেওয়ার ক্ষমতা প্রশাসনকে প্রদান করেছে। আর এখন নতুন এক প্রকাশনা আইন জারী করা হল, যা ইন্টারনেটের উপর আরো নিয়ন্ত্রণ এবং সেন্সরশিপ আরোপ করার অনুমতি প্রদান করে।

আরব বিশ্বঃ সিরিয়া, ফিলিস্তিন এবং বাহরাইন-এর ঈদের দৃশ্য

ঈদ-উল ফিতর মুসলমানদের জন্য রোজার মাস-রমজান শেষ হবার বার্তা ঘোষণা করে, আর এর তিন দিন সারা আরব জাহানে উদযাপন করা হয়, অথবা ঐতিহ্য অনুসারে তা উদযাপিত হতে থাকে। তবে, এবারে সিরিয়া তার নাগরিকদের মৃতদেহ দাফন করা এবং বাহরাইনে পুলিশের গুলিতে এক ১৬ বছরের কিশোরকে কবরে শোয়ানোর কারণে দেশ দুটি নিরবে ঈদ উদযাপন করে।

কুয়েত: জনতা ভালো জানে

কুয়েতের নেট নাগরিকরা একটি প্রাচীন প্রথার বিরুদ্ধে তাদের অসোন্তোষ প্রকাশ করছে, সে প্রথা অনুসারে গোষ্ঠীর প্রধান বা শেখকে নিরঙ্কুশ ক্ষমতা প্রদান করা হয়। এই প্রথা ভাঙ্গার জন্য , তারা #الشعب_أبخص‬‏ [আরবী ভাষায়] নামক হ্যাশট্যাগের অধীনে টুইট করছে, আরবী এই হ্যাশট্যাগের অর্থ হচ্ছে “ জনতা ভালো জানে”।

লন্ডন অলিম্পিক ২০১২-এ দক্ষিণ ককেশাস অঞ্চল

১৯৯৬ সাল থেকে ককেশাস অঞ্চলের তিনটি রাষ্ট্র স্বাধীনভাবে অলিম্পিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে আসছে এবং তারা সকলে এই গ্রীষ্মে লন্ডন অলিম্পিকে বেইজিং অলিম্পিকের রেকর্ডকে অনুসরণ করেছে, শারীরিক শক্তিমত্তার খেলায় এই অঞ্চল অসাধারণ ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শন করে, তারা সেই বিভাগের খেলায় অলিম্পিকে স্বর্ণ, রৌপ্য এবং ব্রোঞ্জ অর্জন করেছে, যা তাদের নিজ নিজ দেশের সমর্থক এবং পুরুষ ও নারীদের অনেক আনন্দের উপলক্ষ তৈরি করেছে।

প্যারাগুয়েঃ আচেহ আদিবাসীদের ভূমি নিয়ে সংঘর্ষ এবং হুমকি

কুয়েটুভইয়ে এলাকার আচেহ আদিবাসী সম্প্রদায়ের কাছে প্যারাগুয়ের সরকার প্রায় ৪৬০০ একর ভূমির মালিকানা পুনরায় ফিরিয়ে দেওয়ায় আগস্ট মাসে দীর্ঘ এক উদযাপন অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল। তবে উক্ত এলাকা নিয়ে কৃষকের দলের সাথে সংঘর্ষ চলছে, যারা আইনের বাইরে এই জমি দাবী করছে, যা এই আনন্দঘন উৎসবের রংকে বিবর্ণ করে দিয়েছে।

ইরান, ইজরায়েলঃ “ তোমাদের যুদ্ধে মারা যেতে প্রস্তুত নই”

মূল ধারার সংবাদ মাধ্যমের শিরোনাম দেখলে মনে হবে যে ইরান এবং ইজরায়েল এক যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছে। ইজরায়েল-এর রাজনীতিবিদেরা ক্রমাগত ইরানের পরমাণু স্থাপনার উপর হামলার হুমকি প্রদান করে আসছে, অন্যদিকে ইরানের সরাকর তাদের সেই পূরোনো স্লোগান আউড়ে যাচ্ছে “ইজরায়েলকে পৃথিবীর মানচিত্র থেকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়া হবে”। কিন্তু যখন উভয় দিক থেকে যুদ্ধের হাঁকডাক শোনা যাচ্ছে, তখন একই সাথে উভয় স্থান থেকে উচ্চারিত হচ্ছে শান্তির বারতা।