বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

ক্যাস্পিয়ান সাগরে একটি বিতর্কিত বিস্ফোরণ

জরুরী পরিস্থিতি মন্ত্রণালয়ের ভাগাভাগি করা একটি ভিডিও থেকে নেওয়া পর্দাছবি https://youtu.be/UyztaBIJM6c

৪ জুলাই তারিখে আজারবাইজানের উপকূলীয় তেল ও গ্যাসক্ষেত্রগুলির কাছে ক্যাস্পিয়ান সাগরে বিস্ফোরণটি আন্তুর্জাতিক দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। পানির নিচে কাদার আগ্নেয়গিরির কারণে বিস্ফোরণটি ঘটেছিল বলে রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানির (সোকার) কর্মকর্তারা দাবি করলেও এর কারণটি নিয়ে এখনো বিতর্ক ও তদন্ত চলছে। কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

আজারবাইজানে কাদামাটির আগ্নেয়গিরি উপস্থিতি খুবই সাধারণ। দ্য গার্ডিয়ান সংবাদপত্রের মতে, “কী কারণে কাদামাটির আগ্নেয়গিরি জ্বলে উঠেছে সে সম্পর্কে বিজ্ঞানীরা অনিশ্চিত হলেও সম্ভবত তত্ত্বটি হলো বিস্ফোরণের সময় উপরের দিকে চালিত পাথরের চাঁই এবং শিলাগুলি একে অপরের সাথে ধাক্কা লাগার ফলে গ্যাসগুলো জ্বলে উঠতে পারে।”

কাদামাটির আগ্নেয়গিরি বিশেষজ্ঞ ও অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড  বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যুক্ত সহযোগী অধ্যাপক মার্ক টিঙ্গে বলেছেন, “আজারবাইজানে এটার মতো কাদার আগ্নেয়গিরিগুলি সক্রিয় হাইড্রোকার্বন ব্যবস্থাকে উপরের দিকে চালিত করতে পারে, যা থেকে তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাস, এমনকি কাদাও নির্গত হতে পারে।”

সুতরাং, প্রথমতঃ আজারবাইজান হলো কাদার আগ্নেয়গিরির আবাসস্থল এবং এরকম শত শত রয়েছে।

আমার গুগল আর্থ আজারবাইজানের কাদামাটির আগ্নেয়গিরির মানচিত্রটি আপনাকে যত্রতত্র ছড়িয়ে থাকা উপকূল ও উপকূল থেকে দূরবর্তী অনেক কাদামাটির আগ্নেয়গিরি সম্পর্কে একটা ধারণা দেয়।

গতরাতে জ্বলে ওঠা ক্যাস্পিয়ান সাগরের ড্যাশলি দ্বীপের আগ্নেয়গিরিটির সকালের ভিডিও

বিস্ফোরণের কারণ সম্পর্কে সবাই একমত নয়। আজারবাইজানের তেল শ্রমিকদের অধিকার সংরক্ষণ কমিটির প্রধান মিরভারি গারামানলি মতে, উমিদ [আশা] গ্যাসক্ষেত্রের কাছাকাছি একটি পুরাতন অনুসন্ধান স্থল দুর্বলভাবে সিল বন্ধ করার কারণে সেখানে বিস্ফোরণটি ঘটে। ‘সোকার‘ এসব দাবি অস্বীকার করেছে। সংস্থাটির মুখপাত্র ইব্রাহিম আহমাদভ জানিয়েছেন, উমিদ গ্যাস ক্ষেত্র থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে এই বিস্ফোরণ ঘটেছে।

ক্যাস্পিয়ান সাগরে মেক্সিকো উপসাগরেরটি থেকেও বিশাল একটা বিস্ফোরণ ঘটেছে

আজারবাইজানের উপকূল দূরবর্তী ক্ষেত্রগুলি হলো দেশটির গ্যাস উৎপাদনের প্রধান উৎস, যেখান থেকে পরে ইউরোপে রপ্তানি করা হয়। দেশের বৃহত্তম তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাস প্রকল্প পরিচালনাকারী  ব্রিটিশ পেট্রোলিয়াম – বিপি ব্লুমবার্গ প্রতিবেদকদের তাদের কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে চলার কথা বলেছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .