বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মধ্যপ্রাচ্যে কোভিড-১৯ যুদ্ধের হাতে হাত ধরে খবরের কাগজ বন্ধ হয়েছে

১১ জানুয়ারি, ২০১০ তারিখে মরোক্কোতে এক ব্যক্তি খবরের কাগজ পড়ছে। মার্টিন মুনেকের তোলা ছবি,  সিসি বাই ২.০

কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক প্রভাব সম্পর্কে গ্লোবাল ভয়েসেসের বিশেষ কভারেজটি দেখুন।

কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে “যুদ্ধ”রত মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি সরকার “পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত” মুদ্রণ সাংবাদিকতা নিষিদ্ধ করেছে।

মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকা (এমইএনএ) অঞ্চলের বিশেষ করে গণমাধ্যম খাত ও সংবাদমাধ্যমগুলি ইতোমধ্যে খারাপ অবস্থায় চলে গিয়েছে। অন্যান্য জায়গার মতোই বছরের পর বছর ধরে পড়ে যাওয়া আয়, ডিজিটালকরণ, দুর্বল মানের বিষয়বস্তু এবং কর্তৃপক্ষগুলির পছন্দমতো নিয়োগের ফলে মুদ্রিত সংবাদপত্র এবং পাঠক সংখ্যা দুটোই কমেছে।

মুদ্রণ সাংবাদিকতা খাতের উপর সর্বশেষ ধাক্কাটি হলো কোভিড-১৯। অঞ্চলজুড়ে বেশ কয়েকটি সরকারের মুদ্রণ সংবাদপত্র স্থগিত করার কারণে মুদ্রিত গণমাধ্যম ভাইরাসটির নীরব শিকারে পরিণত:

১৭ মার্চ, ২০২০: জর্দানে জর্দানের মন্ত্রী পর্ষদ “মহামারী সংক্রমণে সহায়তা করার কারণে” সমস্ত সংবাদপত্রের প্রকাশ স্থগিত করেছে।

২২ মার্চ, ২০২০: ওমানে কোভিড-১৯ সম্পর্কিত বিষয়াদির জন্যে সর্বোচ্চ কমিটি সমস্ত সংবাদপত্র, ম্যাগাজিন এবং অন্যান্য প্রকাশনাগুলিকে মুদ্রণ ও প্রচার বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে। “প্রতিদিন প্রচুর লোক মুদ্রিত খবরের কাগজ ব্যবহার করে বলে এটি ভাইরাসের বিস্তারে ভূমিকা রাখে আর তাই নাগরিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্যে খবরের কাগজ নিষিদ্ধ করা দরকার” বলে মুদ্রিত সংস্করণগুলির সমস্ত প্রকাশনা এবং বিতরণ স্থগিত করেছে মরক্কোর সংস্কৃতি, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়।

২৩ মার্চ, ২০২০: আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ইয়েমেনের হাদি সরকারের যোগাযোগমন্ত্রী কোভিড -১৯ এর বিস্তার রোধ করার জন্যে একটি প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসাবে মুদ্রণ সংবাদপত্রগুলিকে স্থগিত করে একটি ডিক্রি জারি করেছে।

২৪ মার্চ, ২০২০: সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় গণমাধ্যম পর্ষদ সমস্ত মুদ্রণ সংবাদপত্র এবং ম্যাগাজিন বিতরণ বন্ধ করে দিয়েছে।

মুদ্রিত সংবাদপত্রের বিরুদ্ধে পুরো অঞ্চল জুড়ে নিষেধাজ্ঞার ধারাবাহিকতা একটি ভঙ্গুর শিল্পকে আরো অস্থিতিশীল করে তুলে তথ্য সঞ্চালনে একটি শূন্যতা সৃষ্টি করেছে।

আগে থেকেই অনিশ্চিত কর্মপরিবেশ নিয়ে লড়াই করতে থাকা সাংবাদিকদের জন্যে এই বন্ধগুলি বাহুল্য না হলেও গুরুতর আর্থিক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করবে।

জর্দানের সাংবাদিকদের সিন্ডিকেট সরকারকে জরুরি ভিত্তিতে এই খাতকে সহায়তা করার এবং সাংবাদিকদের বাঁচানোর আহ্বান জানিয়েছে। “মুদ্রণ শিল্পের শত শত সাংবাদিক ও শ্রমিকদের কোন আয় নেই এবং তাদের চাকরি হারাতেও হতে পারে,” বলে সিন্ডিকেটটি আরো বলেছে যে সরকারের উচিৎ “পর্যাপ্ত পদক্ষেপ নেওয়া যাতে মুদ্রণ সংবাদপত্রগুলি আবার [প্রকাশনা] শুরু করতে পারে।”  

এল-আব্দি নামে পরিচিত একজন বই ও কাগজপত্র বিক্রেতা – রাবাত, মরক্কো, ১৭ মে, ২০১৭। সিসি বাই-এসএ ৪.০ এর মাধ্যমে জাকারিয়াউদ-এর তোলা ছবি।

এই পদক্ষেপগুলি পাঠকদের তথ্যে প্রবেশাধিকারের উপর নেতিবাচকভাবে প্রভাব ফেলছে। উদাহরণস্বরূপ মূলত শহরাঞ্চলের যুবকদের মধ্যেই কেন্দ্রীভূত ইন্টারনেট অনুপ্রবেশ ২০১৯ সালে মাত্র ২৫% হওয়ার কারণে ইয়েমেনের নিষেধাজ্ঞাটির আরও গভীর প্রভাব রয়েছে। মুদ্রণ পাঠকরা কীভাবে অনলাইন গণমাধ্যমে স্থানান্তরিত হবে এবং কে এই শূন্যস্থান পূরণ করবে তা পরিষ্কার নয়।

কোন একটি সঙ্কটের সময় বিশেষ করে যখন পরিস্থিতি বোঝা ও ব্যবহারিক তথ্যের জন্যে জনগণ গণমাধ্যমের উপর নির্ভর করে তখন নির্ভরযোগ্য সত্য ঘটনা-ভিত্তিক তথ্যে প্রবেশাধিকার থাকাটা জরুরি। এসব প্রয়োজন সত্ত্বেও অঞ্চলটির বেশিরভাগ সরকার – মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ন্ত্রণ এবং সীমাবদ্ধ করার চেষ্টার মতো – পুরানো কর্তৃত্ববাদী চর্চাগুলিই চালিয়ে যাচ্ছে।

বাস্তবে মুদ্রিত সংবাদপত্রগুলি চালু থাকা এবং কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়ার মধ্যে কোন প্রমাণ  বা পারস্পরিক সম্পর্ক নেই। এমনকি কোভিড-১৯ সংক্রমণের উচ্চতর ঘটনাবলীসম্পন্ন অঞ্চলগুলি থেকে সংবাদপত্রের মতো প্যাকেজগুলি গ্রহণ করাটাও নিরাপদ বলে বিবেচিত হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লুএইচও) এর মতে:

কোন সংক্রামিত ব্যক্তির বাণিজ্যিক পণ্যগুলিকে দূষিত করার সম্ভাবনা কম এবং স্থানান্তরিত, ভ্রমণকৃত এবং বিভিন্ন পরিস্থিতি ও তাপমাত্রার সংস্পর্শে আসা কোন প্যাকেজ থেকে কোভিড-১৯-এর কারণ ঘটানো ভাইরাসটি সংক্রামিত হওয়ার ঝুঁকিও কম।

সুতরাং মুদ্রণ কাগজপত্র বন্ধ করার সিদ্ধান্তগুলি সম্ভবত রাজনৈতিকভাবে অনুপ্রাণিত এবং বৈজ্ঞানিক প্রমাণের ভিত্তিতে গৃহীত নয়।

কোভিড-১৯ মহামারী আক্রান্ত অন্যান্য দেশগুলি একটি ভিন্ন পদ্ধতি বেছে নিয়েছে। এমনকি সমস্যাটির কেন্দ্রস্থল যেখানে মৃতের সংখ্যা প্রায় ২০,০০০ এবং কোয়ারেন্টাইন বিধি কঠোরভাবে প্রয়োগ করা হচ্ছে সেই ইতালি সংবাদপত্রগুলির প্রকাশনা এবং মুদ্রণ অব্যাহত রেখেছে।

খুব মারাত্মকভাবে এই ভাইরাস আক্রান্ত ফ্রান্সে সংবাদপত্র বিক্রেতাদের “জরুরি ব্যবসা” হিসাবে শ্রেণিবদ্ধ করে খোলা রাখার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। জনগণ যেন সংবাদপত্রগুলি পায় তা নিশ্চিত করার জন্যে বিভিন্ন খাত, স্থানীয় কাউন্সিল, বিতরণ সংস্থা, পরিবেশকরা জোট বেঁধেছে।

যুক্তরাজ্যে লকডাউনের সাথে সাথে টিউব স্টেশনগুলিতে শহরে যাতায়াতকারীদের মধ্যে ব্যাপকভাবে বিতরণ করা বিনামূল্যের দৈনিক মেট্রো এবং সান্ধ্যকালীন স্ট্যান্ডার্ড প্রিন্ট করা পত্রিকাগুলি বিশাল দর্শক হারিয়েছে। এখন তারা এগুলি বিভিন্ন সুপারমার্কেট এবং ঘরে ঘরে বিতরণ করছে।

এই কয়েকটি উদাহরণ জনসাধারণকে অবহিত রাখার সম্মিলিত প্রচেষ্টাকে প্রদর্শন করে। তথ্যের অবাধ প্রবাহ বজায় রাখা হলে সেটা কোন সঙ্কটের সময় সহনশীলতা তৈরিতে অবদান রাখে।

মধ্যপ্রাচ্য এই পন্থাটি অবলম্বন করেনি।

কোভিড-১৯ এর মতো বড় বড় চ্যালেঞ্জের প্রতি তাদের প্রতিক্রিয়া হলো দমন ও নিয়ন্ত্রণের একটি পুনরাবৃত্তির দৃশ্য। খুব বেশি বিরোধিতা বা হৈ চৈ ছাড়াই মানবাধিকার ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা লঙ্ঘিত হচ্ছে।

তবে বিক্ষোভকারীরা ইরাকে লকডাউন অমান্য এবং পুলিশের সাথে সংঘর্ষে সরকারবিরোধী কর্মীদের হত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ অব্যহত রাখলেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং সমাবেশে নিষেধাজ্ঞার মাধ্যমে আলজেরিয়া এবং লেবাননে রাজনৈতিক আন্দোলন ও বিক্ষোভগুলি ব্যর্থ করে দেওয়া হচ্ছে।

পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে একজন আলজেরীয় রাজনৈতিক কর্মী গ্লোবাল ভয়েসেসকে বলেছে:

তারা এটির কথা স্বপ্নেও ভাবতে পারতো না। এই ভাইরাসটি (এধরনের) কর্তৃপক্ষগুলির জন্যে একটি আশীর্বাদ স্বরূপ। এটি তাদেরকে পরিবর্তনের জন্যে আমাদের সমাবেশ এবং প্রতিবাদ বন্ধ করার অজুহাত এনে দিয়েছে, যা অন্য পরিস্থিতিতে আমরা কখনোই মেনে নিতাম না।

এখন এই অঞ্চলের কয়েকটি দেশে সেই মুদ্রণের মৃত্যু ঘটেছে, এটি যে আবার শুরু হবে এমন কোন নিশ্চয়তাও নেই। সংবাদপত্রগুলি কখন এবং কীভাবে আবার কিওস্কেকে উঠবে তার নির্দিষ্ট কোন সময়সীমা বা ইঙ্গিত পর্যন্ত নেই – সেখান থেকে কোন মুদ্রিত পত্রিকা বা ম্যাগাজিন তুলে নেওয়ার সাধারণ কাজটি একদিন জর্দান, ইয়েমেন বা মরক্কোর মতো দেশগুলিতে দূরবর্তী স্মৃতি হয়ে উঠতে পারে?

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .