বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

গল্পগুলো আরও জানুন ইয়েমেন

মধ্যপ্রাচ্যে কোভিড-১৯ যুদ্ধের হাতে হাত ধরে খবরের কাগজ বন্ধ হয়েছে

কোভিড-১৯ মোকাবেলার পদক্ষেপ হিসেবে জর্দান, ওমান, মরক্কো, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ইয়েমেন পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত সমস্ত মুদ্রণ সংবাদপত্র নিষিদ্ধ করেছে।

যুদ্ধ কীভাবে তার জীবন বদলে দিয়েছে, তাই জানাতে চান এক ইয়েমেনি তরুণ

সৌদি জোট বাহিনীকে আমি বলতে চাই: এই হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করুন। আমাদের সবারই ছেলেমেয়ে আছে। আমরা সবাই আপনার মতোই রক্ত-মাংসের মানুষ। এটা কোনো ছেলেখেলার বিষয় নয়।

যুদ্ধের শিকার ইয়েমেনের ইতিহাস ও ঐতিহ্য

সৌদি নেতৃত্বাধীন মিত্র বাহিনীর হামলায় ইয়েমেনের হাজার হাজার বছরের ঐতিহ্য ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। তাছাড়া মারা গেছে ২৫০০ এর বেশি মানুষ। বিশ্ববাসী কি এর দিকে নজর...

ইয়েমেনে যুদ্ধের সময় যাপিত ঈদ

২০১৫ সালের ২৫ মার্চ তারিখে সৌদি চালিত বিমান হামলা দেশটির রাজধানী সানাতে আঘাত হানতে শুরু করলে দেশটি সরাসরি এক সম্মুখ যুদ্ধ প্রত্যক্ষ করে।

ইয়েমেনের দুর্দশার ইনফোগ্রাফিক এর মাধ্যমে দেশটির বেদনার কাহিনী তুলে ধরা হচ্ছে

সংখ্যায় ইয়েমেন (ইন নাম্বার নামক) নামক হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে ইয়েমেনী ছাত্রী রুবা আলেরইয়ানি মনোমুগ্ধকর এবং সহজবোধ্য ইনফোগ্রাফিকের সৃষ্টিশীল উপস্থাপনার মাধ্যমে ইয়েমেনের দুর্দশার চিত্র তুলে ধরেছে।

সৌদি আরবের নেতৃত্বে চালিত বিমান হামলায় ইয়েমেনে বেসামরিক মানুষ নিহত

আজ সকালে সৌদি আরব এবং মিত্রশক্তি ইয়েমেনে হুথি বিদ্রোহী দলের উপর বিমান হামলা চালিয়েছে। এ হামলায় ১৮জন বেসামরিক লোক নিহত এবং ২৪ জন আহত হয়েছেন।

যুদ্ধে ইয়েমেনের বিমানবন্দর, বাড়িঘর, কলকারখানা, খেলার মাঠ, হাসপাতাল, অট্টালিকা এবং অবকাঠামো ধ্বংস হয়ে গেছে

গত ২০ এপ্রিল ২০১৫ ইয়েমেনে সবচে’ ভয়াবহ বিমান হয়। এ হামলায় ডজনখানেক মানুষ নিহত হন। আর আহত হন আরো শ’খানেক মানুষ।

পাকিস্তানের প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতের মন্ত্রী: ইয়েমেনের যুদ্ধে আপনারা থাকবেন কি থাকবেন না, তা পরিষ্কার করুন

সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আনোয়ার গারগাশ পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে টুইট করেছেন, “পরস্পরবিরোধী এবং অস্পষ্ট অবস্থান নেয়ায় পাকিস্তানকে চরম মূল্য দিতে হবে।“

একটি ফেসবুক পোস্ট ইয়েমেন থেকে তাজিক নাগরিকদের সরিয়ে নেবার গতি বৃদ্ধিতে ভূমিকা রেখেছে কি?

এবং কারা আমাদের উদ্ধার করবে? আমরা ইয়েমেনে বাস করি, ডাক্তার হিসেবে কাজ করি, আমরা ৩০০ জনের অধিক, ৪০০ যদি শিশুদের গোণায় ধরি।

মিশরের ভিয়েতনাম: মিশরের মানুষজন কেন ইয়েমেন যুদ্ধের বিরোধীতা করছে

আকাশ থেকে বোমা মেরে ইয়েমেনের সাধারণ মানুষকে হত্যার বিষয়টি অবশ্যই সাধারণ একটি ব্যাপার। সেখানে কেউ মারা গেল, না বেঁচে থাকলো তাতে কিছু যায় আসে না!