বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইরাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো আবার খুলে দেয়া হয়েছে, তবে আরও খারাপ কিছু কি ঘটতে যাচ্ছে?

The Iraqi Ministry of Communications blocked social media sites yesterday. This message states that Twitter has been blocked "due to the security situation in Iraq." Photo source: Collin Anderson, shared on Twitter

গতকাল ইরাকের যোগাযোগ মন্ত্রনালয় বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম বন্ধ করে দেয়। এই বার্তা জানান দিচ্ছে, ইরাকের নিরাপত্তার কথা ভেবে টুইটার বন্ধ রাখা হয়েছে। ছবিঃ টুইটার থেকে পাওয়া কলিন অ্যান্ডারসনের শেয়ার করা ছবি।  

সমগ্র ইরাক জুড়ে প্রধান প্রধান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং অন্যান্য ওয়েবসাইটের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা কিছুটা তুলে নেয়া হয়েছে, এমন একটি প্রতিবেদন অনলাইনে ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে।

গ্লোবাল ভয়েসেসের এডভোকেসি গতকাল জানিয়েছে, ইন্টারনেট সেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলোকে ইরাকের যোগাযোগ মন্ত্রণালয় ফেসবুক, টুইটার এবং ইউটিউব বন্ধ করে দেয়ার আদেশ দিয়েছে। অন্যান্য ওয়েবসাইট এবং সেবার মাঝে স্কাইপ এবং ভাইবার ও ওয়াটসএ্যাপ এর মতো ভিওআইপি সেবাগুলোও অন্তর্ভুক্ত আছে।

কয়েক মিনিট আগে ইরাকি ব্লগার হামজজ [আরবি] জানিয়েছেনঃ

বিভিন্ন ওয়েবসাইট এবং এ্যাপ্লিকেশনের উপর থেকে জাজিরা নেট নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে। তবে সবচেয়ে বড় ওয়েবসাইট আর্থলিংক এখনও বন্ধ আছে এবং ক্রমাগত ভাবে বিভিন্ন ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। 

কিন্তু লেবানিজ সক্রিয় কর্মী মোহাম্মাদ নাজেম সতর্ক করে দিয়ে বলেছেনঃ  

আপাতদৃষ্টিতে মনে হচ্ছে ইরাকে এখন বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে। তবে ভয়ের বিষয় হচ্ছে সরকার ইন্টারনেট লাইন কেটে দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে!  

সাংবাদিক মার্টিন সুলভের মতে, ইসলামিক রাষ্ট্র ইরাক এবং সিরিয়ার সদস্যদেরকে “সংগঠিত” হওয়া এবং “জায়গা পরিবর্তন” করা থামাতে ইরাকে ফেসবুক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কারন, তারা বর্তমানে ইরাকে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে।

ইরাকের যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের জন্য ফেসবুক পাতা থেকে আরেকটি কৈফিয়ত এসেছে। এতে গতকাল একটি বার্তা পোস্ট করা হয়। বার্তাটিতে “ফাইবার অপটিক ক্যাবল মেরামতের” জন্য সমগ্র ইরাক জুড়ে ১৫ জুন তারিখ থেকে ধীরে ধীরে ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত এই পরিকল্পনারই একটি অংশ কিনা সেটি এখনও অস্পষ্ট। 

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .