বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মার্টিনিক, গুয়াডেলুপ, ফ্রেঞ্চ গায়ানা: “মিস ব্লাক ফ্রান্স” কি গ্রহণযোগ্য?

ফরাসী নাগরিকরা এক রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের মাঝে অবস্থান করছে, যখন আগামী ৫-৬ মে তারিখে দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, সেখানে গত সপ্তাহে আরেকটি ভোট নিয়ে এখানকার ভোটারদের মধ্যে গুঞ্জন শুরু হয়: আর এই নির্বাচন হচ্ছে “মিস ব্লাক ফ্রান্স” নামক সুন্দরী প্রতিযোগিতা [ফরাসী ভাষায়]

প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে শনিবার, ২৮ এপ্রিল, ২০১২-তারিখে, এই প্রতিযোগিতা হোম পেজ থেকে প্রাপ্ত সংবাদ বলছে [ ফরাসী ভাষায়]:

Célébrons la Beauté Noire!

আসুন আমরা কালো মেয়েদের সৌন্দর্য্য উদযাপন করি!
The Official Poster of Miss Black France

মিস ব্লাক বিউটি ফ্রান্সের আনুষ্ঠানিক পোস্টার

এই প্রতিযোগিতার “প্রায়” নিজস্ব বিভাগের ফেসবুকের পাতা [ফরাসী ভাষায়] ব্যাখ্যা করছে :

Les jeunes femmes noires vont enfin avoir leur élection. Jusqu’à aujourd’hui très peu représentée en France – et en tout cas pas dans les concours de « Miss » que l’on connait –, la beauté noire va pouvoir être mise en avant à sa juste valeur.

L’élection Miss Black France est ouverte à toutes les jeunes femmes françaises ou étrangères vivant en France, de métropole, des DOM-TOM ou d'Afrique, âgée…s d’au moins 16 ans, sans autre critère que l’élégance et le charme.

কালো তরুণীরা তাদের জন্য নির্ধারিত এক সুন্দরী নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করতে যাচ্ছে। কালো এক সুন্দরী নির্বাচন, এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে এই বিষয়টি নিয়ে খুব সামান্য প্রচারণা হয়েছে, স্বাভাবিক ভাবে ‘সুন্দরী প্রতিযোগিতা’ নিয়ে যতটা হৈচৈ হয়, এই বিষয়ে ততটা নয়- এখন এটা সেখানে অনুষ্ঠিত হবে।

সকল কালো তরুণী, ফরাসী জাতীর যে কেউ হতে পারে কিংবা বিদেশে বাস করা ফরাসী নাগরিক, ভিন্ন ভিন্ন মহাদেশে ফ্রান্সের নিজস্ব এলাকার অথবা আফ্রিকার ১৬ বছরের যে কোন তরুণী এই প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করতে পারবে, প্রতিযোগির মার্জিত রুচি এবং গ্ল্যামার থাকতে হবে, এ ছাড়া আর কোন শর্ত নেই।

এই ধরনের সৌন্দর্য্য প্রতিযোগিতা চালু করার বিষয়টি ফরাসী নাগরিক এবং ব্লগারদের মাঝে অনেক প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে, এদের মধ্যে মার্টিনিক থেকে বন্ডামানজাকি [ফরাসী ভাষায়] বিস্মিত:

Dérive communautariste ? Acte militant ? Impérialisme yankee ? Bizness ?

মাত্রাতিরিক্ত সম্প্রদায় প্রীতি? একটিভিস্ট কর্মকাণ্ড? ইয়াঙ্কি সম্রাজ্যবাদ? ব্যবসা?

এই প্রশ্নের উত্তর ফরাসী জাতীর ভিত্তি স্থাপনার নীতি (মোটে) দ্বারা যৌক্তিক করা হয়েছে, যে নীতির দ্বারা বলা হয়েছে যে সকল নাগরিক সমান এবং বর্ণ কিংবা ধর্মের কারণে তাদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করা যাবে না। এই দৃষ্টিভঙ্গির প্রেক্ষাপটে, জাতিগত ভাবে কোন জাতীয় সুন্দরী প্রতিযোগিতা অনেক নেট নাগরিকের কাছে এর বিপরীত নব্য ধারা।

মার্টিনিকান একটি ব্লগ পিপল বো কে-তে প্রকাশিত একটি পোস্টে উভয় দৃষ্টিভঙ্গি ব্যাখ্যা করা হয়েছে [ফরাসী ভাষায়] এবং যেখানে মতপার্থক্য অনেকটা এ রকম।

এই সৌন্দর্য্য প্রতিযোগিতার সমর্থকদের আরো দৃশ্যমান হওয়া প্রয়োজন [ফরাসী ভাষায়]:

mettre la lumière sur ces femmes noires extrêmement nombreuses que l'on voit peu dans les médias.

এই সমস্ত অজস্র কালো নারীদের উপর আলো ফেলা উচিত, প্রচার মাধ্যমে যাদের খুব সামান্যই চোখে পড়ে।

En France, les seules miss noires que nous avons connues étaient soit métissées ou originaires d'outre-mer. Il n'y a jamais eu de filles issues de parents sénégalais ou algériens. Ces filles là ne se reconnaissent pas encore dans le concours de Miss France. Elles pensent qu'il n'est pas pour elles et donc s'auto-censurent.

ফ্রান্সে, কোন সুন্দরী প্রতিযোগিতায় একমাত্র কালো কোন রমণীর বিজয়ী হওয়ার ক্ষেত্রে আমরা জানি যে হয় সে মিশ্রবর্ণের অথবা ফ্রান্সের বাইরের কোন ফরাসী অধ্যুষিত অঞ্চলের স্থানীয় নাগরিক। সেনেগালের কোন মেয়ে বা আলজেরীয় কোন পিতামাতার সন্তান কখনো এই ধরনের প্রতিযোগিতা জেতেনি। এখনো তাদের কেউ মিস ফ্রান্স নামক সুন্দরী খেতাবে ভূষিত হবার যোগ্য হতে পারেনি। আয়োজকরা মনে করে যে এই প্রতিযোগিতা তাদের জন্য নয় এবং তারা আত্ম-সচেতন হয়, একটা পর্যায়ের আত্ম-নিয়ন্ত্রণের জন্য।

সর্বশেষ যুক্তিটি প্রদান করেছেন ঐতিহাসিক এবং সংস্কৃতি বৈচিত্র্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ফ্রাসোয়া দুপিয়ে [ফরাসী ভাষায়], ফ্রান্সের জাতীয় চ্যানেল, ফ্রান্স-২কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সময়।

কারো মতে এই প্রতিযোগিতার একটি নেতিবাচক দিক হচ্ছে, এটি একটি বিপরীত বৈষম্যের প্রতীক-একেবারে সাম্প্রতিক একটি প্রশ্ন বার বার ধ্বনিত হচ্ছে, যদি একজন সাদা স্বর্ণকেশী ফরাসী এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে চায়, তাহলে কি হবে?

বন্ডামানজাকির পোস্টে করা এক মন্তব্যে বলা হয়েছে [ ফরাসী ভাষায়]:

La couleur noire n'est ni une identité, ni une classe cela est ridicule de faire une quelconque différence face à une miss blanche. Le combat qu'on doit mener n'est pas à ce niveau. Contruisons avant une communauté unie , solidaire défendant notre mémoire pour contruire une vraie identité.

গায়ের রঙ কালো কোন পরিচয় নয়, না তা কোন সামাজিক শ্রেণী। কোন সাদা বর্ণের প্রতিযোগীর সাথে তাকে কোন এক ভাবে আলাদা করে, একটি অদ্ভুত বিষয়। আমাদের সংগ্রাম এ রকম জায়গায় নয়। আসুন একটি সম্মিলিত এবরআত্ম-নির্ভরশীল একটা সমাজ গড়ে তুলি,যাতে আমরা আমাদের যৌথ স্মৃতিকে রক্ষা করতে পারি এবং আমাদের সত্যিকারে পরিচয়কে।

যদিও এই সুন্দরী প্রতিযোগিতা অত্যন্ত বিতর্কিত এবং এর বৈধতার বিষয়ে নাগরিকদের মাঝে বিভিন্ন বিভক্তির সৃষ্টি করেছে, তবে একটি বিষয় নাগরিকদের একত্রিত করেছে তা হচ্ছে কেন ফরাসী ‘নয়ের’ শব্দের বদলে এখানে কালো [ব্লাক] শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে?

পিপল বো কে নামক ব্লগের এই পোস্টে বিজয়ীর ছবি সহ প্রতিযোগিতার ফলাফল প্রদান করা হয়েছে:

মিস ব্লাক ফ্রান্স ২০১২-এর শিরোপা জিতেছে সেনেগালের এক ২১ বছর বয়সী মার্কেটিং-এর ছাত্রী তিয়াহ বেয়ে। প্রতিযোগিতার প্রথম এবং দ্বিতীয় রানার আপ হচ্ছে আইভরি কোস্ট বংশোদ্ভুত ২২ বছর বয়সী রোমি নিয়াবা এবং গিনির ২৩ বছর বয়সী আসিতা সোমাহ।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .