বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিশর: সিনাগগ হারিয়ে যাচ্ছে… সিনাগগ উধাও

২০০৮ সালে মোফটাসা এক ধাক্কা খান, যখন তিনি আবিষ্কার করেন যে পুরোনো এক সিনাগগ (ইহুদীদের উপাসনালয়) ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (মিশরের ক্ষমতাসীন দল) কার্যালয়ে রুপান্তরিত হয়েছে। এটা বিস্ময়কর এই কারণে যে, মিশরীয়রা যখন মসজিদের উপর মিনার নির্মাণের নিষেধাজ্ঞায় সুইটজারল্যন্ডের সিদ্ধান্তে ক্ষিপ্ত, তখন একই সময় একই ভাবে ক্ষুব্ধ ব্যক্তিরা মিশরের মেগান আব্রাহামের সিনাগগ ধ্বংস করে ফেলছে।

মোফটাসার গল্পের শুরু এভাবে [ছবি পোস্টের ভেতরে রয়েছে]:

২০০৮ সালের এপ্রিল মাসে হাদায়েক এল কোব্বার এক সিনাগগ দেখে আমি বিস্মিত হয়ে যাই। এই সিনাগগ এখন এক গণ সংযোগ ও এনডিপির (ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি) কার্যালয়ে পরিণত হয়েছে। একই সাথে এখানে তৈরি হয়েছে একটি শিশু বিদ্যালয় ও ছোট্ট এক মসজিদ।

এই এলাকার ছবি তোলা কঠোর ভাবে নিষিদ্ধ। তবে স্থাপত্যবিদ্যার ছাত্র হিসেবে নিজের পরিচয় প্রদান করে এবং বিভিন্ন ভবনের উপর আমার আগ্রহ রয়েছে জানিয়ে আমি এই এলাকার কয়েকটি ছবি তুলতে সমর্থ হই।

তিনি সিনাগগের অবস্থা বর্ণনা করছেন। তিনি বলছেন:

এর কাঠের মেঝের অবস্থা বেশ ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এর মেঝের উপর বিভিন্ন জায়গায় দিয়ে বিদ্যুতের তার এদিক সেদিক চলে গেছে। এর নিওনের বাতিগুলোর অবস্থা বেশ ভয়াবহ। জং ধরা ফাইলপত্র রাখার দেরাজগুলো উপচে পড়ছে। জানালার পাল্লার কাচ ভেঙ্গে গেছে, সেখানে শক্ত কাগজ লাগানো হয়েছে এবং পুরো এলাকার উজ্জ্বল পবিত্র বিকিরণ যা এক সময় অনুভব করা যেত বিশাল গম্বুজ ও জানালার স্টার অফ ডেভিড (তারকা চিহ্নিত ইহুদিদের প্রতীক) এর মাঝ দিয়ে, এর বদলে এখন সে এলাকা বিবর্ণ অনুজ্জ্বল ধুসর মোগামা৩ (মিশরের এক ভবন)-এর অনুভূতি এনে দেয়।

সারাহ কার এই সিনাগগের ছবি ট্রাভেলারস উইদিনে পোস্ট করেছে এবং ম্যাক্স স্ট্রাসার বলছেন হারিয়ে যাওয়া সিনাগগের কথা যেখানে তিনি খেলতে ভালবাসতেন এবং সিনাগগ উধাও হয়ে গেলে তিনি কি ভাবে চলবেন!

Synagone

ম্যাক্সট্রেসার@সারাহকার@ট্রাভেলারডাব্লিউ “সিনাগগ” সেটা ছিল এক কথায় অসাধারণ!!!! মাসের সেরা কৌতুক
সারাহকার@ ট্রাভেলারডাব্লিউ থ্রিইইইইইইব
ট্রাভেলারডাব্লিউ@ সারাহ কার সিনাগগ কি অক্ষরের ধরন নাকি তা শব্দের খেলা
সারাহ কার কায়রো সিনাগগের ছবি এইচটিটিপি://বিআইটি.এলওয়াই/৫পিআইকেজেওয়াই- পাওয়া যাবে ভায়া @ট্রাভেলারডাব্লিউ-এর মাধ্যমে।
ট্রাভেলারডাব্লিউ: কায়রো সিনাগগ যা সরকারে এক কার্যালয়ে পরিণত হয়েছে!এইচটিটিপি://টিনইয়ুরাল.কম/ওয়াই৮৮১৫৪৩=> ছবি!এইচটিটিপি://বিট.লেই/৫পিকজেই।

আল মাসরি আল ইয়োম সাংবাদপত্রের লিনা আতালাহ এবং মোহামেদ এল দাহসান [ ছবি এখানে ] মোফটাসার প্রথম পোস্টে মেগান আব্রাহামের সিনাগগকে নিয়ে লেখাকে অনুসরণ করেছেন এবং দ্বিতীয় পোস্টে যে ভাবে তিনি বিষয়টি তুলে ধরেছেন তা উল্লেখ করেছেন।

ইজিপশিয়ান জুইশ কমিউনিটি কাউন্সিল বা মিশরীয় ইহুদী সম্প্রদায় সংঘের (জেসিসি) সভাপতি কারমনে উইনস্টাইন জানাচ্ছেন: “এই উপাসনালয়টি তৈরি করেছিলেন আড্ডা পরিবার”।

আড্ডা পরিবার ছিল মিশরীয় এক ইহুদী পরিবার। তাদের ছিল শিল্পকারখান ও ব্যাংক ব্যবসা। ১৯৪০-এর দশকে এই পরিবারটি মিশরের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে সহায়তা করে। উইনস্টাইন বলনে,”আমি চাই মিশর সরকার এই উপাসনালয়টি সংরক্ষণ করুক, যা কায়রো শহরের এক বৈচিত্রময় অংশ”। “১৯৫২ সালের পূর্বে ইহুদী সম্প্রদায়ের মাঝে নিজেদের এলাকায় সিনাগগ নির্মাণ একটা প্রথা হিসেবে বিরাজ করত। ইহুদীরা নিজ এলাকায় সকলে মিলে একটা সিনাগগ তৈরি করত”। তিনি আরো জানান, এক সময় কায়রো শহরে ২৯ টি সিনাগগ ছিল এখন তার মাত্র ১৩ টি কোনো ক্রমে রয়ে গেছে।

যখন এই ভবন সম্বন্ধে আরো তথ্য জানার জন্য সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়, কায়রোর কর্তৃপক্ষ ভবনের বিশেষ মর্যাদা সম্বন্ধে বিস্ময় প্রকাশ করে।

সরকারে একজন কর্তা ব্যক্তি যিনি তার নাম গোপন রাখতে চেয়েছেন, তিনি জানান, প্রশাসনের খাতায় এই ভবনটিকে আলাদা ভাবে চিহ্নিত করা আছে, তবে অনুমতির বা মালিকানার কোন কাগজপত্র নেই।

এর মানে এই ভবনকে শ্রদ্ধা জানানোর কোন জায়গা নেই, এর ধ্বংস সাধন ও পুন:নির্মাণের ক্ষেত্রে কোন বিশেষ পরিমাপ নেই। এ ছাড়াও হাদায়েক এল-কোব্বা এলাকার প্রধান প্রশাসক বিশ্বাস করেন যে “এই নির্মাণ কাজ হবে স্থায়ী এবং নিরাপদ”। তিনি বলেন, “ যেহেতু এই সিনাগগের মালিকানার কোন কাগজ নেই, তাই সরকার এখানে হস্তক্ষেপ করেছে”।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .