বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

বাহরাইন: একদিনের জন্য সংবাদপত্র বন্ধ

২২ জুন সোমবার, বাহরাইনের সব থেকে বেশী প্রকাশিত সংবাদপত্র আকবার আল খারিজকে বন্ধ করা হয় ওই দিনের জন্য। এই খড়্গ নেমে আসে একটা প্রতিবেদন ছাপানোর পরে যাতে কিছু ইরানী নেতাদের সমালোচনা ছিল আর মাহমুদ আহমাদিনেজাদের কথিত ইহুদি বংশ নিয়ে ইশারা ছিল। এই পদক্ষেপ মনে হচ্ছে নেয়া হয়েছে বাহরাইনের শিয়া সংখ্যাগুড়ুদের মধ্যে অশান্তি রোধের জন্য।

ইয়াগুব খুশি নন:

এটা বাহরাইনের বাক প্রকাশের স্বাধীনতার উপরে আর একটা আঘাত। ইতিমধ্যেই ব্যাপক ওয়েব সেন্সরশীপ দেখেছি আমরা যার লক্ষ্য বিরোধী ওয়েবসাইট, অশ্লীলসামগ্রী, জুয়া, ইসলাম বিরোধী ওয়েবসাইট, ওয়েব প্রক্সি আর গুগুল ভাষান্তর সব ব্লক করে দিয়ে ‘পরিষ্কার ওয়েব’ বানানো। এখন মনে হচ্ছে ক্রমে লম্বা হওয়া সেন্সরের হাত সুবিধাজনকভাবে মূলধারার মিডিয়ার উপরে আঘাত করেছে!

এই নিষেধাজ্ঞার সব থেকে অদ্ভুত আর ভীতিজনক জিনিষ হলো এটা আকবার আল খালেজের বিরুদ্ধে, যে সংবাদপত্র মূলত: সরকার পন্থী। তাহলে এই নখবিহীন বিড়ালছানা সংবাদপত্র কি করেছে সরকারের কিছু পালক ওড়ানোর মতো?? সময় এটা বলবে কিন্তু এখনের জন্য বাহরাইনের ইতিহাসে এটা খুব দু:খের দিন যখর এর প্রচেষ্টা নিজেকে গণতান্ত্রিক দেশ করার…

এই সিদ্ধান্তের ব্যাপারে মাহমুদও একমত না:

এটা না যে আমি আকবার আল খালেজকে ভালোবাসি, যদি হয় এটার থেকে বেশি সত্য থেকে দূর কিছু হতে পারে না। কিন্তু এই জরাজীর্ন কাগজ সম্পর্কে আমার মতামত হচ্ছে যে এর প্রকাশক বা এর কিছু তথাকথিত সাংবাদিক হয়ত মূল্যহীন, কিন্তু যে কোন কারনেই হোক এটাকে নিষিদ্ধ করা যায় না বা সরকারের কোন সংস্থা দ্বারা ধরে রাখা যায় না যারা বাকস্বাধীনতার উপরে নতুন নতুন নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছেন। আমার সূত্ররা জানিয়েছে যে এই সংবাদপত্র নিষিদ্ধ হয়েছে শুরা কাউন্সিল সদস্য জনাবা সামিরা রাজাবের ধারালো এক প্রতিবেদনের কারনে যিনি বির্তকের ব্যাপারে একেবারেই নতুন নন। তার সূত্র আর সমালোচনামূলক লেখা বিশেষ করে শিয়া আর তাদের বিশ্বাস নিয়ে তার লেখার কারনে বাহরাইনের অনেক লোক তাকে ঘৃণা করেন। এটাও গোপন কিছু না যে তিনি ইরানের শাসকদের ঘৃণা করেন আর সাদ্দাম হোসেনের ইরাকি শাসকদের প্রতি খুব সমব্যাথী ছিলেন।

তারপরেও একটি সংবাদপত্রকে একটা কলামের জন্য নিষিদ্ধ করা বাক স্বাধীনতার মুখে একটা চড় যা তুলে ধরতে এই মন্ত্রণালয় অনেক কষ্ট করেছে- বেশ স্ববিরোধী হিসাবে, বিশেষ করে তারা যখন তাদের প্রিয় কাজ হিসেবে নিয়েছে ওয়েবসাইট ব্লক করা।

তবে, সব ব্লগার এই বন্ধ করা নিয়ে অখুশী নন, গ্রীন ওয়েসিস সন্তুষ্ট:

تستحق الجريدة هذا الاغلاق لانها مشاركة في نشر هذه الاصوات النشاز […] شكراً لوزارة الإعلام على الاغلاق

এই সংবাদপত্র বন্ধ হওয়া উচিত কারন এটা এমন অসহিষ্ণু কথা ছাপে। ধন্যবাদ তথ্য মন্ত্রানলয়কে বন্ধ করার জন্য।

আপডেট: নিষেধাজ্ঞা কিভাবে ওঠানো হয়েছে তা নিয়ে ইয়াগুবের দৃষ্টিভঙ্গী এখানে দেখুন

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .