বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কাজাখস্তান: আমলাতন্ত্র, কুটনীতি এবং ব্যক্তিত্ব পুজা

ব্লগাররা কাজাখস্তানের রাজনৈতিক অবস্থা সম্পর্কে তাদের মতামত প্রদান অব্যাহত রেখেছে। মেগাখুইমিয়াক রিপোর্ট করছে যে রাষ্ট্রপতির নতুন আদেশ অনুসারে অর্থনৈতিক পুলিশদের আরও ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। এখন দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিলে পুরস্কার দেয়া হবে, আমলাদের আয় এবং সম্পত্তির হিসাব রাখা হবে:

তবে এর খারাপ দিক হচ্ছে এখন কর্মকর্তারা সিদ্ধান্ত নিতে ভয় পাবে, ফলে কাজ বন্ধ করে দেবে।

দয়দিলভো -লেতো জানাচ্ছে যে দেশের সবচেয়ে বড় কয়লা খনিটি, যা (পুর্ব কাজাখস্তানের) একিবাস্তুজ শহরের অর্থনীতির প্রাণ, শরৎ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। ফলে হাজারো নারী-পুরুষকে কাজ এবং আয় ছাড়া বেশ কয়েকমাস চলতে হবে। পার্শবর্তী শহর কারাগান্দা থেকে প্রিবাল্টজ সরকারের ব্যায়ের রিপোর্ট অনুসন্ধান করে কিছু অনিয়ম পেয়েছে:

প্রসুতীসেবার সেন্টার কিনেছে পেট্রোল, করাত এবং কাঠের গুড়ো। আমার এটাও মনে পড়ছে ইউক্রেইনের সংস্কৃতি দিবস পালনের জন্যে টেন্ডার দেয়া হয়েছে তাতার সংস্কৃতি কেন্দ্রকে!

নেরুয়াদ রুষ্ট উজবেকিস্তানে কাজাখবাসীদের গ্রেফতারের ঘটনায় এবং এ নিয়ে সরকারের নিস্ক্রিয়তায়:

২৭ জন কাজাখের গ্রেফতারের ২ মাস পরে সরকারের নজরে আসে ব্যাপারটি। বৈদেশিক মন্ত্রনালয় তেমন চেষ্টাই করেনি ব্যাপরটি খতিয়ে দেখতে। সরকারী প্রচার মাধ্যম ঘটনাকে আড়ালে রেখেছে আর ওদিকে আটকে পরাদের আত্মীয় স্বজন চিন্তায় মরে যাচ্ছে যে সরকারের এই নিষ্ক্রিয়তার ফলে তাদের ভবিষ্যৎ কি হবে।

কাতেলকা বিস্মিত যে সে রাজনীতির ব্যাপারে আগ্রহ দেখাচ্ছে:

আমি এখন প্রতিদিন কাজাখ খবর পড়ি। আগে বছরে দুবারও পড়তাম কিনা সন্দেহ। তবুও আমি ব্লগারদেরই বেশী বিশ্বাস করি।

ওদিকে থাউজ্যান্ড-পা ব্যাক্তিপুজোর নতুন স্বরুপ খুঁজে পেয়েছে। ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল “নুর ওতান” আন্তানার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরকে (রাষ্ট্রপতি) নুরসুলতান নজরবায়েভের নামে নামকরন করতে চাচ্ছে:

আমার মনে হয় একজন ক্ষমতাসীন রাষ্ট্রপতির নামে বিমানবন্দরের নামকরণ একটু তাড়াতাড়িই হয়ে যায়। তারা অবশ্য বিমানবন্দরের নামকরণের নমুনা দেখাচ্ছে – তবে সব উদাহরণেই গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির মৃত্যুর পরে বিমানবন্দরের নামকরণ করা হয়েছে।

নিউইউরোএশিয়াতেও এটি প্রকাশিত হয়েছে।

1 টি মন্তব্য

  • আমলাগণের পলিটিশিয়ান-পায়রামী কালচার

আলোচনায় যোগ দিন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .