বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

নেদারল্যান্ডসের ফ্রিজলোনে অনলাইনসহ দৈনন্দিন জীবনের প্রায় প্রতিটি জায়গায় ফ্রিজিয়ান ভাষা ব্যবহৃত হয়

ভিলেম ফন ফল্কেনবার্গে তোলা ছবি এবং সিসি বাই ২.০ লাইসেন্সের অধীনে ব্যবহৃত।

সম্পাদকের দ্রষ্টব্য: ২০ থেকে ২৬ এপ্রিল, ২০২২ পর্যন্ত মিরিয়াম ভেলিনহা ইউরোপীয় সংখ্যালঘু অথবা আঞ্চলিক ভাষাগুলিকে পুনরুজ্জীবিত করার ক্ষেত্রে প্রযুক্তি ব্যবহারের প্রক্রিয়া অনুসন্ধানকারী ঘূর্ণায়মান @ইউরোডিজিটালভাষা টুইটার অ্যাকাউন্টটি পরিচালনা করবেন। প্রচারণাটি সম্পর্কে এখানে আরো পড়ুন।

১৯২৮ সাল থেকে আফ্যুক ডাচ প্রদেশ ফ্রিজলোনের সব ধরনের জায়গায় ফ্রিজিয়ান ভাষা ও সংস্কৃতির প্রচারের একটি সুপরিচিত সংস্থা। ভাষাটি দৈনন্দিন জীবনে টিকে থাকতে পেরেছে এবং আফ্যুকের মতে, প্রদেশেটির ৬ লক্ষ ৪২ হাজার বাসিন্দার প্রায় সবাই ভাষাটি বোঝে। আফ্যুক ওয়েবসাইটের মতে, “এর মানে হল যে আপনি ফ্রিজিয়ানদের মুখোমুখি হলে এবং প্রদেশটির সব জায়গায়: বেকারি, সুপার মার্কেট, পাঠাগার, ডাক্তারের চেম্বারে, স্কুলে, তাসের আড্ডায়, খেলাধুলার মাঠে, শহর এবং গ্রামের চিহ্নগুলিতে, মিডিয়াতে, থিয়েটারে এবং কর্মক্ষেত্রে এটি ব্যবহার করবেন।”

আফ্যুক প্রাপ্তবয়স্কদের জন্যে ভাষা শিক্ষা কোর্স, ইলেকট্রনিক বই এবং ম্যাগাজিন প্রকাশ, অ্যাপ তৈরি এবং ভাষার ব্যবহারকে উৎসাহিত করার জন্যে নীতি তৈরির বিষয়ে কোম্পানি ও সংস্থাগুলির জন্যে পরামর্শ পরিষেবা প্রদানের মতো কাজগুলো করে থাকে।

মিরিয়াম ভেলিনহা প্রদত্ত ছবি, অনুমতিসহ ব্যবহৃত

ফ্রিজিয়ান ভাষাভাষী পিতামাতার কাছে লালিত-পালিত মিরিয়াম ভেলিনহার কাছে সংগঠনটি সুপরিচিত ছিল। ফ্রিজলোন থেকে দূরে গ্রোনিংগেন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে চলে যাওয়ার পরই কেবল তিনি ভাষাটি কতটা অনন্য এবং “সংখ্যালঘু ভাষায় কথা বলার সাথে জড়িত সামাজিক, মনস্তাত্ত্বিক এবং রাজনৈতিক কারণগুলি” উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন। শীঘ্রই তিনি ইংরেজি অধ্যয়ন থেকে ফ্রিজিয়ান অধ্যয়নের দিকে চলে যান এবং স্নাতক হওয়ার পরপরই আফুকের সাথে কাজ শুরু করেন, যেখানে তিনি বিশ বছর ধরে কর্মরত। বর্তমানে তিনি আন্তর্জাতিক প্রকল্পের প্রকল্প নেতৃত্বে রয়েছেন।

রাইজিং ভয়েস ইমেইলের মাধ্যমে মিরিয়ামের সাক্ষাৎকার নিয়েছে।

রাইজিং ভয়েস (আরভি): অনলাইন ও অফলাইন উভয় ক্ষেত্রেই আপনার ভাষার বর্তমান অবস্থা কী?

মিরিয়াম ভেলিনহা (এমভি): এই মুহূর্তে ফ্রিজলোনের অর্ধেকেরও বেশি মানুষ তাদের প্রথম ভাষা হিসেবে এবং প্রায় ৭৫ শতাংশ মানুষ প্রতিদিন  ফ্রিজিয়ান ভাষায় কথা বলে। প্রদেশের প্রায় ৬ লক্ষ ৫০ হাজার অধিবাসীদের প্রায় ৯৫ শতাংশ অর্থাৎ প্রায় সবাই ভাষাটি বুঝতে পারে। যার মানে হলো যে আপনি দৈনন্দিন জীবনের সব জায়গাতেই ফ্রিজিয়ান ভাষা পাবেন।

সমস্ত ফ্রিজিয়ানদের অর্ধেক সহজেই ফ্রিজিয়ান পড়তে সক্ষম। তবে ফ্রিজিয়ানদের একটি ছোট অংশ তাদের ভাষায় ভাল লিখতে পারে। শিক্ষা এবং ফ্রিজিয়ানদের সামাজিক গণমাধ্যমের ব্যবহার বাড়তে থাকার কারণে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এই সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। অভিভাবকদের থেকে তাদের সন্তানদের ভাষা স্থানান্তর নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে। এটি ধীরে ধীরে কমছে যা একটি ভাষাকে বাঁচিয়ে রাখার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কারণ।

অনলাইনের অবস্থা বলতে গেলে একটি মধ্যবর্তী স্তরে রয়েছে। একদিকে যেমন বেশ কয়েকটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি হয়েছে আবার অন্যদিকে বড় বড় প্রযুক্তি কোম্পানিগুলি সাধারণত স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফ্রিজিয়ান ভাষায় তাদের অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে না।

এখন নিচের অ্যাপ্লিকেশনগুলি পাওয়া যায়:

  • সম্প্রদায়গত উন্নয়নের মাধ্যমে গুগল অনুবাদ
  • সম্প্রদায়গত উন্নয়নের মাধ্যমে ফ্রিজিয়ান ভাষায় ফেসবুক
  • জিবোর্ড এবং সুইফটকিতে স্বয়ংক্রিয় পাঠ্য ইঙ্গিত
  • উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে অন্তর্নির্মিত বানান ও ব্যাকরণগত সংশোধকসহ মাইক্রোসফ্ট অফিসের একটি ভাষা হিসেবে ফ্রিজিয়ান (তবে এটি আলাদাভাবে ডাউনলোড করতে হবে এবং কেনা মাইক্রোসফ্ট অফিস সফ্টওয়্যারের মতো স্বয়ংক্রিয়ভাবে হালনাগাদের সাথে সমন্বিত নয়)।
  • ওয়েজ এর মাধ্যমে ফ্রিজিয়ান ভাষায় বিচরণ
  • অনলাইন ফ্রিজিয়ান-ডাচ অভিধান এবং অনুবাদ সরঞ্জাম

আরভি: আরভি: ডিজিটাল জগতে আপনার ভাষার উপস্থিতি দেখার জন্যে আপনার অনুপ্রেরণাগুলো কী কী?

এমভি: একটা ভাষার জন্যে মানুষের দৈনন্দিন জীবনে উপস্থিতি থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সংখ্যালঘু/ ছোট/ ছোট হয়ে পড়া ভাষার জন্যে হয়তো সেই গুরুত্ব আরো বেশি। আপনাকে যে কোনো সময় সব জায়গায় আপনার ভাষাটা ব্যবহার করতে পারা উচিত। সংখ্যাগরিষ্ঠ/ প্রাধান্যবিস্তারকারী ভাষার ক্ষেত্রে সেটা আগে থেকেই থাকে; কিন্তু একটি ছোট ভাষাকে তার  স্থানের জন্যে সারাক্ষণই লড়াই করতে এবং বড় ভাষার শক্তির সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হয়। আপনার (সম্ভাব্য) বক্তারা যেখানে সেখানে আপনার ভাষাটাকেও উপস্থিত থাকতে হবে। আর যেহেতু আমরা সবাই ডিজিটাল বিশ্বে উপস্থিত, তাই আপনার ভাষাটারও অবশ্যই সেখানে উপস্থিত থাকা দরকার।

আরভি: আপনার ভাষাকে অনলাইনে পরিপূর্ণভাবে ব্যবহৃত হতে বাধা দেয় এমন কিছু চ্যালেঞ্জ বর্ণনা করুন।

এমভি: বড় বড় প্রযুক্তি কোম্পানিগুলির জন্যে ছোট কোন ভাষায় বিনিয়োগ করা অর্থনৈতিকভাবে খুব একটা আকর্ষণীয় নয়। এর মানে হলো যে আপনাকে সর্বদা এটার জন্যে আবেদন ও তদবির করতে হবে। যার মানে আপনার ভাষাটাকে অন্তর্ভুক্ত করতে অনেক সময় ব্যয় করতে হয়। সেই সময়ের মধ্যে বেশিরভাগ ভাষাভাষী সেই নির্দিষ্ট অ্যাপ্লিকেশনের জন্যে প্রভাবশালী ভাষা ব্যবহার করতে অভ্যস্ত হয়ে ওঠে এবং তাদের ফিরিয়ে আনা খুব কঠিন। আপনার ভাষা অন্তর্ভুক্ত করার জন্যে সবসময় অতিরিক্ত প্রচেষ্টা এবং অর্থ লাগে। আমরা বিশেষভাবে বাড়িতে প্রয়োগ করা প্রযুক্তিতে আগ্রহী কারণ ফ্রিজিয়ান ভাষা ব্যবহারের ক্ষেত্রে বাড়ির ডোমেনটি এখনো খুব শক্তিশালী। প্রযুক্তির মাধ্যমে বাড়িতে অন্যান্য ভাষা চালু করা হলেও, বাড়িতে থাকা আমাদের ভাষার স্বাভাবিক স্থানকে হুমকির মুখে ফেলে দেওয়া স্মার্ট হোম অ্যাপ্লায়েন্স, সামাজিক যত্ন নেওয়া রোবট ইত্যাদির কথা চিন্তা করে দেখুন। শিশুরা এটার প্রতি বিশেষভাবে সংবেদনশীল বলে তারা তাদের নিজস্ব ভাষাকে কম মূল্য দেবে।

আরভি: অল্পবয়সীদের তাদের নিজেদের ভাষা শেখা শুরু বা তাদের নিজেদের ভাষা ব্যবহার চালিয়ে যেতে উৎসাহিত করতে কোন কোন দৃঢ় পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে বলে আপনি মনে করেন?

এমভি: এই মুহুর্তে আমরা স্কুলগুলিতে (প্রাথমিক, মাধ্যমিক এবং বৃত্তিমূলক শিক্ষা) ভাষা শিক্ষা এবং ভাষা সচেতনতা ও জোর দেওয়া উভয়ের উপরই জোর দিচ্ছি। অল্পবয়সীরা ভাষা শিখে যেন এটি বলতে, পড়তে ও লিখতে পারে সেটা গুরুত্বপূর্ণ হলেও এটাও গুরুত্বপূর্ণ যেন তারা এ্টা ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে, তাদের ভাষা আচরণ ও ভাষার ব্যবহার এবং এর পিছনের প্রক্রিয়াগুলি সম্পর্কে আরো বেশি করে বুঝতে পারে। স্কুলে তাদের ভাষা ব্যবহার এবং নির্দিষ্ট অ্যাসাইনমেন্ট সম্পর্কে জোড়ায় জোড়ায় কথোপকথন ব্যবহারিক উপায়ে ভাষা নিয়ে কাজ করার উপর মনোনিবেশ (উদাহরণস্বরূপ তারা যেখানে তাদের ইন্টার্নশিপ করবে সেখানে ফ্রিজিয়ান কীভাবে আরো দৃশ্যমান হতে পারে সে সম্পর্কে চিন্তা করা) আমাদের অভিজ্ঞতায় খুব ভাল কাজ করে।

ডিজিটালভাবে তরুণদের ভাষা ব্যবহার সহজ করার জন্যে আমরা বেশ কিছু অনুবাদ সঞ্জাম তৈরি করেছি এবং জি_বোর্ড এবং সুইফট_কি এর মতো অন্যান্য সরঞ্জামও রয়েছে। এগুলো যে আছে তা সবাই জানে না বলে আমরা সেই সরঞ্জামগুলিকে একটি আকর্ষণীয় উপায়ে প্রচার করার দিকেও মনোযোগ দিয়েছি (বেশ কয়েকটি সামাজিক গণমাধ্যম মঞ্চে ছোট ছোট ক্লিপ বিতরণ করা হয়েছে)।

পরবর্তী প্রজন্মের জন্যে ভাষাটি ব্যবহার করার জন্যে অল্পবয়সী বা তরুণ পিতামাতাদের সংখ্যালঘু ভাষার মূল্য এবং বিভিন্ন পরিস্থিতিতে কীভাবে বহুভাষায় শিশুদের বড় করা যায় সে সম্পর্কে শিক্ষিত করা অপরিহার্য। ফ্রিজলোনে তরুণ পিতামাতাদের স্থানীয় সরকারের কাছে তাদের সন্তানের জন্ম নিবন্ধন করার সময় একটি বিশেষ ভাষা উপহার (তালকাডো) প্রদানের মাধ্যমে এই সম্পর্কে অবহিত করার জন্যে একটি ম্যাগাজিন এবং একটি অনলাইন মঞ্চ রয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .