বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নেটনাগরিক প্রতিবেদন: ইন্টারনেটকে ফিল্টার-মুক্ত রাখতে ইইউ আন্দোলনকারীদের চূড়ান্ত ধাক্কা

“সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।” ফ্রিটস আহলেফেল্টের আঁকা, প্রকাশ্য ডোমেনে প্রকাশিত।

অ্যাডভক্স নেট-নাগরিক প্রতিবেদন বিশ্বজুড়ে ইন্টারনেট অধিকারগুলির ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা, সমস্যা থেকে উত্তরণ এবং উদীয়মান প্রবণতাগুলির একটি আন্তর্জাতিক আলোকপাত উপস্থাপন করে। এই প্রতিবেদনটিতে ২০১৯ সালের মার্চ মাসের ৯ থেকে ২০ তারিখের বিভিন্ন সংবাদ এবং ঘটনা বর্ণিত হয়েছে।

মার্চের শেষ দিনগুলিতে ইউরোপীয় সংসদটি একটি যুগান্তকারী কপিস্বত্ব সংস্কারের উপর ভোট দিতে যাচ্ছে। এটা ইউটিউব এবং ফেসবুকের মতো সৃজনশীল ও রাজনৈতিক অভিব্যক্তিগুলির অনলাইনের প্রধান প্রধান জায়গাগুলি পাল্টে দিতে পারে।

মূলতঃ বন্ধ দরজার আড়ালে প্রণীত এবং আলোচিত ধারা ১৩ সংযুক্ত ইইউ কপিস্বত্ব নির্দেশনার সর্বশেষ খসড়াটি অনুসারে ইউটিউবের মতো ইন্টারনেট মঞ্চগুলির ক্ষেত্রে “ফিল্টার আপলোড” ইনস্টল করার দরকার হবে। এটা ব্যবহারকারীদের ইন্টারনেট এবং সামাজিক মিডিয়ার মঞ্চগুলিতে কপিস্বত্ব-সুরক্ষিত বিষয়বস্তু আপলোডে বাধা প্রদানকারী কার্যকরভাবে “প্রাক-সেন্সর” ব্যবস্থা কার্যকরভাবে প্রয়োগ করার মতো একটি প্রযুক্তিগত প্রক্রিয়া।

২৬ থেকে ২৮ মার্চের মধ্যে কপিস্বত্ব নির্দেশনার উপর একটি চূড়ান্ত ভোট আশা করা হচ্ছে। ভোটের আগের দিনগুলিতে এই অঞ্চলের নাগরিক এবং ডিজিটাল অধিকার সমর্থকরা এই নীতি পুনর্বিবেচনা করতে রাজি হওয়ার জন্যে আইন প্রণেতাদের চূড়ান্ত একটি ধাক্কা দেবে। ১২ মার্চ পর্যন্ত ১৩ ধারার বিরুদ্ধে অর্ধ কোটিরও বেশি লোক একটি আবেদনে স্বাক্ষর করেছে এবং হাজার হাজার লোক তাদের ইউরোপীয় সংসদ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ইমেল পাঠিয়েছে।

২৩ মার্চ তারিখে ডজনখানেক প্রকাশ্য বিক্ষোভের এবং ২১ মার্চ তারিখে জার্মান, চেক, দিনেমার এবং স্লোভাক উইকিপিডিয়া সংস্করণসহ প্রভাবিত হতে পারার মতো কয়েকটি বড় বড় ওয়েবসাইট একটি প্রতীকী ব্ল্যাকআউটের পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

এধরনের পরিবর্তন আইনিভাবে শুধুমাত্র ইইউ সদস্য রাষ্ট্রগুলোর জন্যে প্রযোজ্য হলেও এটা বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেটকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করতে পারে। এধরনের ফিল্টার করার ব্যবস্থাগুলো তৈরি করে ইউরোপে স্থাপন করা গেলে অন্যান্য দেশের সরকারগুলো আগ্রহী হয়ে তাদের নিজস্ব অঞ্চলের জন্যে অনুরূপ (বা এমনকি অভিন্ন) প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে পারে।

এধরনের প্রচেষ্টাগুলো সম্পর্কে আরো জানতে আপানার ইন্টারনেট বাঁচান প্রচারের সাইটটি দেখুন।

ইরাক বিতর্কিত সাইবার অপরাধ খসড়া আইনের উপর বিতর্ক স্থগিত করেছে

ইরাকের প্রতিনিধি পর্ষদ “দেশের স্বাধীনতা, সংহতি ও নিরাপত্তা বা তার সর্বোচ্চ অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামরিক, বা নিরাপত্তাজনিত স্বার্থ “ক্ষুন্ন অথবা “ইলেকট্রনিক আর্থিক ব্যবস্থার আস্থা দুর্বল করার উদ্দেশ্যে ইচ্ছাকৃত মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রকাশ বা সম্প্রচার” করার জন্যে “কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট” ব্যবহারের দায়ে দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তিদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং সাংঘাতিক জরিমানা আরোপ করতে পারা বিতর্কিত সাইবার অপরাধ সম্পর্কিত একটি খসড়া আইন বিবেচনা করছে।

এই মাসের গোড়ার দিকে মানবাধিকার সংগঠনগুলো ইরাকি সংসদকে খসড়া আইনটি প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে। ১৪ মার্চ তারিখে খসড়া আইনটি নিয়ে একটি বিতর্ক অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও পরে এটি দিনের কার্যসূচী থেকে বাদ দেওয়া হয়েছিল। টুইটারে ইরাকি প্রতিনিধি পর্ষদের আনুষ্ঠানিক অ্যাকাউন্টটি কোন আইনকে নির্দিষ্ট না করে “কিছু আইনের সমালোচনা” করার জন্যে এটির সাথে যোগাযোগকারীদের ধন্যবাদ জানিয়েছে।

কাজাখ কর্তৃপক্ষ জিনজিয়াং আটক কেন্দ্রবিরোধী প্রচারণার নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে

কাজাখ রাষ্ট্রপতি নুরসুলতান নাজারবায়েভের হঠাৎ পদত্যাগের দুই সপ্তাহেরও কম সময় আগে কাজাখ কর্তৃপক্ষ ১১ মার্চ তারিখে আলমাতি থেকে রাজনৈতিক কর্মী সেরিকঝান বিলাসকে গ্রেপ্তার করেছিল

প্রকাশ্য বক্তৃতায়  জিনজিয়াংয়ের “পুনঃশিক্ষা শিবির” বিষয়ে বিলাশ  চীনের সাথে যুদ্ধে যেতে চান এমন কথা বলার পর তাকে “জাতিগত ঘৃণা উস্কে দেওয়া”র দায়ে অভিযুক্ত করা হয়। তিনি এটিকে একটি “তথ্য যুদ্ধ” হিসেবে ব্যাখ্যা করলেও কর্তৃপক্ষ স্পষ্টভাবেই এই পার্থক্যটিকে গ্রহণ করেনি। তখনই তাকে রাজধানী আস্তানায় উড়িয়ে নিয়ে গিয়ে গৃহবন্দী হিসেবে মুক্তি দেওয়া হয়।

বিলাশ জাতিগত ও ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে চীনা সরকারের দমনাভিযানের মাঝে হাজারখানেকেরও বেশি কাজাখকে প্রতিবেশী চীনের জিনজিয়াং অঞ্চলে তাদের আটক বা নিখোঁজ প্রিয়জনদের বিষয়ে কথা বলতে সাহায্য করা আতা-জার্ট নামের একটি গোষ্ঠীর নেতৃত্ব দিচ্ছেন। জিনিজিয়াংয়ের আক্রান্তদের ডেটাবেজের ইংরেজি ভাষার তত্ত্ববধায়ক জিন বুনিনের অনুমান অনুসারে আতা-জার্ট প্রাক্তন বন্দী এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে কমপক্ষে ৩,০০০ প্রামাণিক ভিডিও সাক্ষ্য প্রকাশ করেছে।

টেলিগ্রাম চ্যানেল চালাতে গিয়ে কোমার্সান্ত প্রতিবেদক পদত্যাগে বাধ্য

রাশিয়ার নেতৃস্থানীয় ব্যবসায়িক দৈনিক কোমার্সান্ত(বণিক) এর একজন প্রতিবেদক মারিয়া কার্পেনকো বলেছেন যে পত্রিকাটির প্রধান সম্পাদকের সঙ্গে যৌথভাবে পরিচালিত টেলিগ্রাম চ্যানেল নিয়ে দ্বন্দ্বের কারণে তিনি পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন

টেলিগ্রাম চ্যানেলটি রাতোন্ডা নামে পরিচিত সেন্ট পিটার্সবার্গের অন্যান্য প্রকাশনার একদল সাংবাদিকদের দ্বারা পরিচালিত হয় এবং স্থানীয় রাজনীতিকে গুরুত্ব দিয়ে থাকে। এর প্রায় ১০,০০০ অনুসারী রয়েছে। এক সাক্ষাৎকারে কার্পেনকো বলেছেন যে তিনি বিশ্বাস করেন সমালোচনামূলক নিবন্ধ এবং সামাজিক মিডিয়ার পোস্টগুলোর জন্যে তাকে বরখাস্ত করতে – সম্ভবতঃ সেন্ট পিটার্সবার্গে প্রশাসন বা এমনকি ক্রেমলিনের কেউ – তার সম্পাদককে চাপ প্রয়োগ করেছে।

সংকটের মাঝেই ভেনিজুয়েলার সাংবাদিক আটক

ভেনিজুয়েলার সাংবাদিক ও মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মী লুইস কার্লোস দিয়াজ ১১ মার্চ সন্ধ্যায় নিখোঁজ হওয়ার পর তাকে সরকারি গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের কাছে আটক পাওয়া যায়। মুলতবি অভিযোগ এবং পরবর্তী আটদিনের প্রতিদিন কর্তৃপক্ষের কাছে হাজিরা দেওয়ার শর্তে ১২ মার্চ তিনি মুক্তি পেয়েছিলেন।

লুইস কার্লোস গ্লোবাল ভয়েসেস সম্প্রদায়ের একজন দীর্ঘদিনের এবং নামকরা সদস্য। এক দশকেরও বেশি সময় ধরে তিনি ভেনিজুয়েলার চলমান সংকটের মধ্যে বাক স্বাধীনতা সুরক্ষা এবং তথ্যে জনসাধারণের প্রবেশাধিকার বজায় রাখার জন্যে ডিজিটাল নেটওয়ার্কের ব্যবহেরের জন্যে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি এবং তার স্ত্রী নাকি সোটো (আগে ইউটিউবে হলেও বর্তমানে প্যাট্রেয়নে) খুবই জনপ্রিয় একটি ভিডিও অনুষ্ঠান চালান, যেখানে তারা রাজনৈতিক ভাষ্য এবং হাস্যরস প্রদান করে থাকেন।

মিশরীয় কর্তৃপক্ষ ব্লগার আলা আব্দ এল ফাত্তাহের মুক্তি বিলম্বিত করছে

মিশরীয় কর্তৃপক্ষ বিশিষ্ট ব্লগার এবং সক্রিয় কর্মী আলা আব্দ এল ফাত্তাহের মুক্তি বিলম্বিত করেছে ১০ দিন। ১৭ মার্চ, ২০১৯ তারিখে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড পূর্ণ করা আব্দ এল ফাত্তাহার কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। বিশিষ্ট ব্লগার এবং রাজনৈতিক কর্মীকে ২০১৯ সালের নভেম্বরে তার পরিবারিক বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তার এক বছরেরও বেশি সময় পরে, অননুমোদিত বিক্ষোভ নিষিদ্ধ করা ২০১৩ সালের একটি আইনে “প্রতিবাদ সংগঠিত” করার দায়ে তাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছিল। তিনি বেসামরিক নাগরিকদের সামরিক বিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে অংশ নিলেও এটা সংগঠিত করার ক্ষেত্রে তার কোন ভূমিকা ছিল না।

#লাল_আমলো_ভালোবাসা: মেক্সিকোর একটি নতুন টুইটার বাহিনী

গুয়াদালাজারার জেসুইট বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক মিডিয়া গবেষণা গোষ্ঠী সিগন্যাল_ল্যাবের নতুন গবেষণায় “আমলো” নামে পরিচিত মেক্সিকোর নতুন রাষ্ট্রপতি আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর প্রশাসনের সমর্থকদের মধ্যে একগুচ্ছ প্রবণতার আবির্ভাব দেখা যাচ্ছে। গবেষণাটিতে টুইটার কর্মকাণ্ডের এমন সব নমুনা দেখা যাচ্ছে যেগুলোকে নতুন সরকারের অবস্থান এবং স্বার্থকে উন্নীত করা এবং সমালোচকদের দুর্বল করে দেওয়ার নানা সমন্বিত প্রচেষ্টা বলে মনে হচ্ছে।

রাজনৈতিক_প্রাণীর সাথে একটি সাক্ষাৎকারে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এনরিকে পেনা নিয়েতোর সঙ্গে যুক্ত টুইটার প্রচারণার এক লক্ষ্যবস্তু গবেষণা প্রধান রোসানা রেগুইলো নতুন প্রশাসনের সাথে এই প্রবণতার পুনরুত্থানের জন্যে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, এই ধরনের হামলাগুলি “একপেশে প্রবণতা এবং ঘৃণাত্মক বক্তব্যের পরিবেশে তৈরিতে সাহায্য করে, যা গণতন্ত্রের সাথে ভালভাবে যায় না”।

পাকিস্তানে অনলাইন হুমকির মুখে নারীদের ‘আওরাত মিছিল’ নেতৃত্ব

৮ মার্চ তারিখে পাকিস্তানের সাতটি শহরে নারী ও এলজিবিটিকিউ জনগণের অধিকার প্রচারের লক্ষ্যে নারীরা জাতীয় “আওরত মার্চ” (নারী মিছিল) এর একটি বর্ণাঢ্য প্রকাশ্য সমাবেশে অংশগ্রহণ করেছিল।  মিছিলগুলো অনলাইনে গুরুত্বপূর্ণ সমর্থন তৈরির পাশাপাশি যেমন সরকারি কর্মকর্তাদের নীরিক্ষার লক্ষ্যবস্তুতে  পরিণত হয়েছিল তেমনি পাকিস্তানের নারী আন্দোলনের কোন কোন নেতৃস্থানীয় কণ্ঠ উন্মুক্ত হুমকির লক্ষ্যবস্তুতেও পরিণত হয়েছিল। ডিজিটাল অধিকার ফাউন্ডেশনের পরিচালক ও গ্লোবাল ভয়েসেস সম্প্রদায়ের সদস্য নিঘাত দাদ প্রকাশ্যেই বলেছেন  যে তিনি এবং আরো কয়েক শত নারী টুইটারে ধর্ষণের হুমকি পেয়েছেন।

সাইবার আক্রমণের নিন্দা করেছে ফিলিপাইনের মিডিয়া গোষ্ঠীগুলি

স্বাধীন মিডিয়া সাইটগুলিতে সাইবার হামলার নিন্দা জানিয়ে  একটি প্রতিবাদ-বিক্ষোভ আয়োজনের মাধ্যমে ফিলিপাইনের কয়েকটি মিডিয়া গোষ্ঠী ১২ মার্চ তারিখে বিশ্ব সাইবার সেন্সরবিরোধী দিবস পালন করেছে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর থেকে বুলাতলাত, কোডাও প্রোডাকশন্স, সাপ্তাহিক পিনয় এবং আলটারমিডিয়ার মতো সাইটগুলো (বিভিন্ন উৎস থেকে অসংখ্য কৃত্রিম অনুরোধের মাধ্যমে পরিষেবাকে ধীর গতির অথবা কার্যতঃ অকার্যকর করার মাধ্যমে) বিস্তৃত পরিষেবা অস্বীকার (ডিডস)  হামলার শিকার হয়েছে। গোষ্ঠীগুলো বলেছে যে এই হামলাগুলি ফিলিপাইন সরকার সমর্থিত ছিল। ফিলিপাইনের জাতীয় সাংবাদিক ইউনিয়নের ওয়েবসাইটটিও আক্রমণের লক্ষ্যবস্তু ছিল।

নতুন গবেষণা

  • Reckless VII: Wife of Journalist Slain in Cartel-Linked Killing Targeted with NSO Group’s Spyware (বেপরোয়া সপ্তম: কার্টেল-সংযুক্ত হত্যাকাণ্ডে সাংবাদিকের নিহত স্ত্রীকে এনএসও গোষ্ঠীর নজরদারি যন্ত্রপাতি দিয়ে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করা হয়েছে) – টরোন্টো বিশ্ববিদ্যালয়ের নাগরিক পরীক্ষাগার
  • The Index of Racism and Incitement in Israeli Social Media 2018 (২০১৮ সালের ইসরায়েলি সামাজিক মিডিয়ায় বর্ণবাদ ও উস্কানির সূচক) – ৭আমলেহ/ সামাজিক মিডিয়া উন্নয়নের আরব কেন্দ্র
  • Free To Be Mobile: Ensuring that women, girls, queer and trans persons can inhabit digital spaces freely and fearlessly (ভ্রাম্যমাণ হওয়ার স্বাধীনতা: নারী, বালিকা, উৎকট এবং তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিরা যেন মুক্ত এবং নির্ভীকভাবে ডিজিটাল স্থানে বসবাস করতে পারে) – দৃষ্টিকোণ / ভারত

 

নেট-নাগরিক প্রতিবেদনের গ্রাহক হোন

 

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .