বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

#দমন_অভিযান_বন্ধ_কর: বৈশ্বিক গোষ্ঠীর ভিয়েতনামে মানবাধিকার সুরক্ষার আহ্বান

মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো ভিয়েতনামের ১৬৫ জন ভিন্নমতাবলম্বী বন্দী মুক্তির আহ্বান জানিয়েছে।

বৈশ্বিক বিভিন্ন নাগরিক সমাজ সংগঠন (সিএসও) ভিয়েতনামের বিপজ্জনক মানবাধিকার পরিস্থিতি তুলে ধরতে ধারাবাহিক একটি উদ্যোগ চালু করেছে।

ভিন্নমতাবলম্বী বন্দীদের অনলাইন ডাটাবেস

১৪টি মানবাধিকার সংগঠন নিয়ে গঠিত এখন! প্রচারাভিযান অবিলম্বে ভিয়েতনামের ১৬৫ জন ভিন্নমতাবলম্বী বন্দী মুক্তির আহ্বান জানিয়েছে। প্রচারাভিযানটি ভিয়েতনাম ভিন্নমতাবলম্বী বন্দীদের সম্পর্কে তথ্য সম্বলিত একটি ব্যাপক অনলাইন ডাটাবেস বানিয়েছে।

ডাটাবেসটি অনুসারে, ভিয়েতনামের ভিন্নমতাবলম্বী বন্দীদের মধ্যে ব্লগার, সাংবাদিক, পরিবেশবিদ, শিক্ষার্থী, কৃষক এবং শ্রমিক রয়েছে যাদের শান্তিপূর্ণ কর্মকাণ্ডের জন্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

একসঙ্গে হিসেব করা হলে এইসব নারী-পুরুষ মিলে সাকুল্যে ৯৫৫ বছর এবং এক মাস কারাগারে এবং পরে ২০৪ বছর গৃহবন্দী জীবন কাটিয়েছেন।

তাদের বেশিরভাগই “সরকারকে উৎখাত করার পরিকল্পনা”র জন্যে ফৌজদারী আইনের ৭৯ অনুচ্ছেদ এবং “রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালানো”র জন্যে ৮৮ অনুচ্ছেদ লঙ্ঘনে অভিযুক্ত।

কিন্তু এখন! প্রচারাভিযানের একজন সদস্য নাগরিক অধিকার সুরক্ষাকারী বলেছেন ভিন্নমতাবলম্বী বন্দীদের সংখ্যা বেশি হতে পারে:

সরকার ভিয়েতনামের মিডিয়াগুলির পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণের কাছাকাছি চলে এসেছে এবং কিছু কিছু ভিন্নমতাবলম্বী বন্দী, বিশেষ করে জাতিগত সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর লোকদের গ্রেপ্তার ও কারাদণ্ডকে ঘিরে গোপনীয়তার মানে হলো ভিন্নমতাবলম্বী বন্দীদের ক্ষেত্রে তথ্য পাওয়াটাও কঠিন এবং নিশ্চিতভাবে বলাও অসম্ভব যে দেশের সকল ভিন্নমতাবলম্বী বন্দীদেরকে চিহ্নিত করা গেছে।

এপেক নেতাদের প্রতি চিঠি

রাষ্ট্রীয় বাহিনীর মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি উত্থাপন করার জন্যে ভিয়েতনামে অনুষ্ঠেয় এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা (এপেক) -এর ২০১৭ শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ১৭টি নাগরিক সমাজ সংগঠন একটি চিঠি স্বাক্ষর করেছে । চিঠিটি এপেকের নেতাদের জানিয়েছে যে গত বছর থেকে ভিয়েতনাম কমপক্ষে ২৫জন শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকারী ও ব্লগারকে আটক করে রেখেছে।

এই দমন অভিযানটি এবছরের এপেক সম্মেলনের বিবৃত থিম “একটি অংশীদারী ভবিষ্যত লালনের জন্যে নতুন গতিশীলতা নির্মাণ” লক্ষ্যের বিপরীত। আন্দোলনকারী ও মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মীদের নির্বিচারে আটক, সেন্সরশিপ এবং রাষ্ট্রীয় মদদে সহিংসতা আমাদের সাধারণ মানবিকতার অবমান ছাড়াও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন ও মানদণ্ডের গুরুতর লঙ্ঘন।

আমরা বিশ্বাস করি এপেক এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জোরালো স্বার্থেই ভিয়েতনামে ব্যাপক বিস্তৃত ও পদ্ধতিগত মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে কথা বলা দরকার।

এদিকে আটককৃত ভিন্নমতাবলম্বী ব্লগার মে ন্যাম (মাদার মাশরুম) এর কন্যা এনগুয়েন বোপো এনগুয়েন তার মায়ের মুক্তিতে সাহায্য করার জন্যে মেলানিয়া ট্রাম্পকে উদ্দেশ্য করে চিঠি লিখেছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি ভিয়েতনামে এপেক শীর্ষ সম্মেলনের সময় রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন।

আমি সামাজিক গণমাধ্যমে পড়েছি এবং জানতাম যে এপেক শীর্ষ সম্মেলনের সময় আপনার পরিবার ভিয়েতনাম পরিদর্শন করবে। আমার জন্মদিনটি মাত্র কয়েক দিন দূরে। আমি এবং আমার ভাই গাউ (৪বছর বয়েসী বিয়ার) মা ছাড়া আরেকটি জন্মদিন পার করতে যাচ্ছি। আমরা মাকে খুব ভালোবাসি এবং আমরা শুধু আমাদের মায়ের সাথে বাড়িতে থাকতে চাই।

#ভিএন_দমনঅভিযান_বন্ধ_কর

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ব্লগার ও আন্দোলনকারীদের দমন অভিযান এবং রাষ্ট্রের সমালোচনাকারীদের কঠোর কারাদণ্ড প্রদানের নিন্দা করে  নয়টি মানবাধিকার সংগঠন প্রচারাভিযান #ভিএন_দমনঅভিযান_বন্ধ_কর চালু করেছে

লেখক ও ভিয়েত টান রাজনৈতিক দলের একজন সদস্য ডন লে ব্যাখ্যা করেছেন কীভাবে কর্তৃপক্ষ নাগরিকদের থামিয়ে দেয়ার জন্যে কুখ্যাত অনুচ্ছেদ ৭৯ এবং ৮৮ ব্যবহার করছে:

আইনটি কর্তৃপক্ষগুলোকে জাতীয় নিরাপত্তা এবং শৃঙ্খলা ব্যাহতকারী বিভিন্ন সমাবেশকে “উদ্বুদ্ধ” করতে পারে এমন যে কোন তথ্যের ভিত্তিতে নেটওয়ার্কগুলোকে পরিস্রুত, অবরুদ্ধ বা অস্থায়ীভাবে বন্ধ করার সুযোগ করে দেয়। ভিয়েতনাম সরকারের জাতীয় নিরাপত্তার বিস্তৃত ব্যাখ্যা আমলে নেওয়া হলে আমাদের হয়তো স্বাধীন গণমাধ্যম ও ব্লগারদের লক্ষ্য করে আরো বেশি পরিমাণ আক্রমণ ও বন্ধ করে দেয়া এবং শান্তিপূর্ণভাবে সম্প্রদায়ের সমাবেশকারীদের গ্রেপ্তার হওয়া দেখতে হবে।

এমনকি গত জুলাই মাসে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনারের দপ্তরও নাগরিক সাংবাদিকদের আটক ও নিপীড়নের বিষয়ে একটি বক্তব্য প্রকাশ করেছে:

আমরা ভিয়েতনাম কর্তৃপক্ষকে অবিলম্বে মত প্রকাশের স্বাধীনতার অধিকার প্রয়োগের কারণে আটককৃতদের মুক্তি প্রদান এবং অনর্থক বিস্তৃত ভুলভাবে সংজ্ঞায়িত যেসব আইন জাতীয় নিরাপত্তার অজুহাতে ভিন্নমতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে দমন অভিযান পরিচালনা করার জন্যে ব্যবহার করা হচ্ছে সেগুলো সংশোধন করার অনুরোধ করছি।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .