বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নেট-নাগরিক প্রতিবেদন: নজরদারীর খোঁচা ভারতে, ক্যামেরুনে স্তিমিত

২০১০ সালে কাশ্মীরে বারক্যাম্প প্রযুক্তি কর্মশালার জন্যে একটি ব্যানার।  ফ্লিকারের মাধ্যমে এহসান কুদ্দুসের তোলা ছবি (সিসি বাই-এসএ ২.০)

গ্লোবাল ভয়েসেস এডভোকেসির নেট-নাগরিক প্রতিবেদনে বিশ্বজুড়ে ইন্টারনেটের অধিকারের চ্যালেঞ্জ, বিজয় এবং উঠতি প্রবণতাগুলো নিয়ে একটি সংক্ষিপ্ত আন্তর্জাতিক আলোকপাত করা হয়েছে।

ভারত-শাসিত কাশ্মীরের কর্তৃপক্ষ ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ এবং টুইটারসহ ২২টি সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাপ্লিকেশন অবরুদ্ধ করেছে

২৬ এপ্রিল তারিখে জারি করা একটি আনুষ্ঠানিক রাষ্ট্রীয় বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে কাশ্মীর উপত্যকার “শান্তি ও শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি”কে অস্থির করে তোলার জন্যে সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যম পরিষেবাগুলোকে “অপব্যবহার করছে জাতি এবং সমাজ বিরোধী বিভিন্ন উপাদান” এবং এটি ৩০ দিন পর্যন্ত বন্ধ থাকতে পারে। অন্যান্য নিষিদ্ধ সাইটগুলোর মধ্যে কিউকিউ, বাইদু, উইচ্যাট, গুগল প্লাস, স্কাইপ, পিন্টারেস্ট, স্ন্যাপচ্যাট, ইউটিউব এবং ফ্লিকার রয়েছে।

কাশ্মীরের ক্রমবর্ধমান অস্থিরতার মুখে এই পদক্ষেপটি এসেছে। সাম্প্রতিক সময়ে ভারতের সশস্ত্র বাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা আইন (এএফএসপিএ)-এর অধীনে নিয়োজিত কঠোর পদক্ষেপ কৌশলের মাধ্যমে “বিশৃঙ্খল” হিসেবে বিবেচিত অঞ্চল গুলিতে উল্লেখযোগ্যভাবে সামরিক শক্তি বৃদ্ধির বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত এবং সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যম উভয় ক্ষেত্রেই শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভগুলি তীব্রতর হয়ে উঠেছে।

ইজাইন ডেইলিও.আইএন  এর জন্যে লেখায় অংশুকান্ত চক্রবর্তী ভারতীয় কর্তৃপক্ষের চেয়ে ভিন্নতর একটি বিবরণ প্রদর্শনের কারণে কাশ্মীরের সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যম লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন:

কাশ্মীরের কাহিনীর অন্য দিকটি উপস্থাপনার মাধ্যমে, স্থানীয়রা আবারও অল্প সময়ের জন্যে হলেও কাশ্মীরের অত্যন্ত জটিল ও দ্বন্দ্ব-সংঘাতপূর্ণ বর্ণনা দিতে সক্ষম হওয়ায় সেটা সরকারকে নৈতিকতার উচ্চ অবস্থান থেকে সরিয়ে অত্যন্ত অস্বস্তিকর জায়গায় নামিয়ে এনেছে।

অবরোধটি বাবসায়ে মারাত্মকভাবে আগাত হেনেছে। স্থানীয় আইটি খাতের প্রায় ১৫,০০০ কর্মী তাদের চাকুরির সামর্থ্যের সামান্যই করতে পারছে। ই-বাণিজ্য এবং ইন্টারনেট নির্ভরশীল ব্যবসাগুলি হারাতে বসেছে।

এদিকে ভারতীয় শহর কেন্দ্রপাড়ায় দর্শকদের ভাষায় নবী মোহাম্মদের অবমাননাকারী “আপত্তিকর” ভিডিও প্রচার প্রতিরোধ করার জন্যে প্রাদেশিক কর্মকর্তারা ৪৮ ঘণ্টার জন্যে ইন্টারনেট সংযোগ অবরুদ্ধ করে দিয়েছে। এই অবরোধ দেখে মনে হচ্ছে কর্তৃপক্ষ এপ্রিলের প্রথমদিকের জন অস্থিরতার মাত্রা কমাতে এটা করেছে। সে সময় সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমে হিন্দু দেবতাদের সম্পর্কে অপমানজনক বার্তা সম্বলিত একটি পোস্ট পার্শ্ববর্তী ভদ্রক শহরে গোলমাল উস্কে দিয়েছিল

ভাল সংবাদটি হলো ক্যামেরুনের সরকার ৯৪ দিন বন্ধ রাখার পর দেশটির ইংরেজি ভাষাভাষী অঞ্চলে অবশেষে ইন্টারনেট সংযোগ ফিরিয়ে দিয়েছে। উত্তর ও দক্ষিণ উপদ্বীপের বিদ্যালয় ও আদালতগুলোতে ফরাসি ভাষা চাপিয়ে দেয়া এবং জন পরিষেবার ক্ষেত্রে ফরাসীভাষী ও ইংরেজিভাষী জনগোষ্ঠীর মধ্যে অন্যান্য বৈষম্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের অব্যবহিত পরেই অবরোধটি আরোপিত হয়। ক্যামেরুন মোট জনসংখ্যার ২০% ইংরেজিভাষী জনগণ। ইন্টারনেটকে “ক্যামেরুনীয়দের মধ্যে ঘৃণা ও বিভাজনে ইন্ধন দেয়ার একটি হাতিয়ার” মনে হলে আবার বন্ধ করে দেয়া হবে এই হুমকিসহ সরকার প্রবেশাধিকার অবরোধ তুলে নিয়েছে।

মালদ্বীপের ব্লগারের ছুরিকাঘাতে মৃত্যু

মালদ্বীপের ব্লগার ও অ্যাক্টিভিস্ট ইয়ামিন রশিদকে ২০১৭ সালের ২৩ এপ্রিল তারিখ খুব সকালে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছ। সরকার এবং চরমপন্থী ধর্মভিত্তিক রাজনীতির একটি স্পষ্টভাষী সমালোচক রশিদ ইতোপূর্বে পুলিশের কাছে ক্ষুদেবার্তা এবং সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমে মৃত্যু হুমকি পাওয়ার অভিযোগ করেছিলেন। মালদ্বীপবাসীরা তার মৃত্যুর একটি আন্তর্জাতিক তদন্ত দাবি করছে। রশিদ যে স্টক এক্সচেঞ্জ অফিসে একজন আইটি প্রযুক্তিবিদ হিসেবে কাজ করতেন সেটি তার সম্মানে একদিন বন্ধ ছিল।

সৌদি নারী কর্মকাণ্ডের জন্যে বিচারের মুখোমুখি

সৌদি ইন্টারনেট অ্যাক্টিভিস্ট নাইমা আল-মাত্রুদ রাষ্ট্রবিরোধী বিক্ষোভে অংশগ্রহণ এবং রাজ্যে আটক থাকা অন্যান্য মানবাধিকার রক্ষাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যম দু’টি অ্যাকাউন্ট তৈরির মাধ্যমে জনশৃংখলা ভঙ্গের অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়ার এক বছর পর বিচারের মুখোমুখি হয়েছেন। উপসাগরীয় মানবাধিকার কেন্দ্র সৌদি আরবে আল-মাত্রুদ এবং আটক থাকা অন্যান্য সকল মানবাধিকার রক্ষাকর্মীদের অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানিয়েছে।

ইন্দোনেশীয় ওয়েবসাইটকে মার্কিন গণযোগাযোগ মাধ্যমের গল্প স্থানীয় ভাষায় অনুবাদের জন্যে সতর্কীকরণ

ইন্দোনেশিয়ার সামরিক প্রধান জেনারেল গাতোত নুরমান্তো আরেকটি সংবাদ ওয়েবসাইটের একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ  করার জন্যে ইন্দোনেশিয়ার প্রেস কাউন্সিলে স্বাধীন সংবাদ ওয়েবসাইট ত্রিতো.আইডি’র বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। প্রতিবেদনটিতে রাষ্ট্রপতি জোকো উইডোডোকে ক্ষমতাচ্যুত করার চক্রান্তে কিছু সেনা কর্মকর্তা জড়িত এবং এসব কর্মকর্তাদের সঙ্গে আইএসআইএসের সম্পর্ক রয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

মূলত: যুক্তরাষ্ট্র-ভিত্তিক সাইবার সিকিউরিটি এবং নাগরিক স্বাধীনতা বিষয়ক সংবাদ সাইট দি ইন্টারসেপ্ট(হস্তক্ষেপ) প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে ষড়যন্ত্রে জেনারেল নুরমান্তোর জড়িত থাকার কথা বলা হয়েছে।

তৃতীয় হাউস কমিশনের সদস্য আহমদ সাহরোনি জেনারেল নুরমান্তোর এই পদক্ষেপের প্রশংসা করে বলেছেন, “আমি বিশ্বাস করি যে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেয়া একটি চক্রের মধ্যে ফেঁসে যেতে চান না বলেই টিএনআই প্রধান একটি ভাল পদক্ষেপ নিয়েছেন।”

ব্রিটিশ পুলিশ কি ম্যালওয়ার ব্যবহার করছে?

ভাইস মিডিয়া্র প্রযুক্তি ব্লগ মাদারবোর্ডের একটি প্রতিবেদন অনুসারে, ব্যবহারকারীকে মোবাইল ফোনে ও কম্পিউটারে ম্যালওয়ার চালু করতে দেয়া লক্ষ্যবস্তু নজরদারি সফটওয়্যার ফ্লেক্সিস্পাই লন্ডনের এক পুলিশ কর্মকর্তা কিনেছেন। এটি তাদের ফোন কলে আঁড়িপাতা, দূরনিয়ন্ত্রিত ভাবে মাইক্রোফোন সক্রিয় করা এবং ম্যালওয়ার সংক্রামিত ডিভাইসগুলোর ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলে নেয়ার সুযোগ দেয়। সেই পুলিশ কর্মকর্তা ব্যক্তিগত নাকি প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবহারের জন্যে সফটওয়্যারটি কিনেছেন সেটা স্পষ্ট নয়।

কানাডার নেট নিরপেক্ষতার প্রতি সমর্থন

কানাডীয় রেডিও-টেলিভিশন এবং টেলিযোগাযোগ কমিশন (সিটিআরসি) নতুন একটি নিয়ন্ত্রণ কর্ম-কাঠামো জারি করেছে যা জোরালোভাবে নেট নিরপেক্ষতাকে সমর্থন করে। এটা টেলিযোগাযোগ পরিষেবা প্রদানকারীদেরকে গ্রাহকদের জন্যে নির্দিষ্ট সামগ্রীগুলিকে দ্রুত সরবরাহ করার পরিবর্তে সামগ্রিকভাবে ইন্টারনেটের সকল সামগ্রী এবং উপকরণগুলিকে সমানভাবে বিবেচনা করার নীতিকে মেনে চলে। এছাড়াও এটি শূন্য-রেটিং চর্চা অথবা বিনামূল্যে নির্বাচিত ইন্টারনেট পরিষেবা সেবা প্রদানের বিরুদ্ধে একটি সিদ্ধান্ত জারি করেছে। জিরো-রেটিং স্কিমগুলি ইন্টারনেট সামগ্রীর অসামঞ্জস্যপূর্ণ আচরণের প্রতিনিধিত্ব করে, কারণ তারা পরিষেবা প্রদানকারীদেরকে তাদের গ্রাহকদের অত্যন্ত সহজে পাওয়ার মতো সামগ্রী সঙ্গে সঙ্গে দিয়ে দেয়ার সুবিধা প্রদান করে থাকে।

নতুন গবেষণা

 

ইমেলের মাধ্যমে নেট-নাগরিক প্রতিবেদন পাওয়ার জন্যে গ্রাহক হোন

 

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .