বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কিরগিজস্তানে মালবাহী বিমান বিধ্বস্ত, কয়েক ডজন মানুষ নিহত, দেশজুড়ে শোকের ছায়া

Kyrgyzstan's Manas airport in Bishkek. Creative commons.

কিরগিজস্তানের রাজধানী বিশকেকের মানাস বিমানবন্দর। ক্রিয়েটিভ কমন্সের আওতায় প্রকাশিত।

১৭ জানুয়ারি কিরগিজস্তানের জন্য ছিল একটি শোকের দিন। এদিন তুরস্কের একটি মালবাহী বিমান অবতরণ করতে গিয়ে বিধ্বস্ত হয়। এতে ৩০ জনের বেশি মানুষ মারা যান। নিহতদের বেশিরভাগই পার্শ্ববর্তী গ্রামের বাসিন্দা। ঘন কুয়াশার মধ্যে বিমানটি দেশটির প্রধান বিমানবন্দর অবতরণের সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ভিডিওচিত্রে দুর্ঘটনার পর মুহূর্তে বিধ্বস্ত বিমান দেখা যাচ্ছে। একটি কিরগিজ গ্রামের ওপরে পড়েছিল। গ্রামের অনেকটা অংশ ধ্বংস হয়ে গেছে। মারা গেছে ৩৭ জন।

মৃত ব্যক্তিদের বেশিরভাগই গ্রামের স্থানীয় মানুষ। কিছু কিছু মৃত্যু খুবই বেদনাদায়ক।

A little boy got up and went to school. As he was getting there, a plane fell on his house and his whole family died. What horror.

এক শিশু ভোরে উঠে স্কুলে গিয়েছিল। সে ফিরে এসে দেখে, বিমান তাদের বাড়ির ওপর পড়েছে। আর বাড়ির সবাই মারা গেছে। কী বেদনাদায়ক ঘটনা!

বিধ্বস্ত হওয়ার পরপরই কিরগিজ সরকার দুর্ঘটনার জন্য বিমানের পাইলটকে দায়ী করেছে। এ ঘটনায় কিরগিজসস্তানের বহু মানুষ হতাশ হয়েছেন। উল্লেখ্য, বিধ্বস্ত বিমানটি তুরস্কের এসিটি এয়ারলাইন্স কোম্পানির।

সাংবাদিক আনা লেলিক ফেইসবুকে লিখেন:

На расследование авиакрушений уходят многие месяцы. Наши власти, не найдя еще черных ящиков, без расшифровок, спустя всего лишь несколько часов, умудряются уже публично делать достаточно уверенные заявления о предварительных причинах. Без расследования, на очень высоком уровне, успевают судить о происшествии, которое случилось не в ясную солнечную погоду, а в сильный густой туман (и да, за считанные часы до этого президентский самолет посадили в Тамчы, а не в Бишкеке). Я надеюсь, что по итогам должного расследования будет восстановлена объективная картина и оглашены причины, а всем пострадавшим оказана помощь.

Мои соболезнования семьям и близким всех погибших в последствиях авиакатастрофы около аэропорта “Манас”. Пострадавшим – здоровья и поскорее пойти на поправку. Спасателям и медикам, всем помогающим, спасибо за их работу в такой холод.

Air crash investigations take many months. Our authorities had not yet found the black boxes, there were no transcripts, and yet after only a few hours, they had already managed to make a fairly confident statement about preliminary causes. Without an investigation, and at the highest levels, they have found time to judge an incident, that took place not in clear, sunny weather but in heavy fog (and yes, a few hours before the presidential plane [was forced to land in] Tamchy, not in Bishkek [due to fog]. I hope that an objective picture will emerge on the basis of a proper investigation, and that all victims will be assisted. My condolences to the families and relatives of all the casualties in the aftermath of the plane crash near the Manas airport. To the injured, health and a speedy recovery. To rescuers and doctors, thanks for all your work in such cold weather.

বিমান দুর্ঘটনা তদন্ত করতে অনেক সময় লাগে। আমাদের সরকার এখনো বিমানের ব্ল্যাক বক্স খুঁজে পায়নি। কোনো ট্রানস্ক্রিপ্টও খুঁজে পায়নি। অথচ দুর্ঘটনা ঘটার মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তারা কত আত্মবিশ্বাসের সাধে বিমান বিধ্বস্তের কারণ খুঁজে পেল। কোনো তদন্ত ছাড়াই আমাদের সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ বিমানটি কেন বিধ্বস্ত হলো তা বিচার করার সময় পেল। যদিও কেন বিধ্বস্ত হলো, সেটা পরিষ্কার নয়। আমি আশা করবো, যথাযথ তদন্তের মাধ্যমে সঠিক চিত্র আমরা জানতে পারবো। ভুক্তভোগীরাও তদন্ত কাজে সহযোগিতা করবেন। মানাস বিমানবন্দরের কাছে বিমান বিধ্বস্ত হওয়ায় ঘটনায় যারা মারা গেছেন, তাদের পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই। যারা আহত হয়েছেন, তারা খুব দ্রুত সেরে উঠুন, এটাই কামনা করি। তীব্র ঠান্ডা আবহাওয়ার মধ্যে যেসব ডাক্তার ও স্বেচ্ছাসেবী উদ্ধার কাজে ছিলেন, তাদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই।

তবে এই বিমান দুর্ঘটনা দেশটির ইতিহাসে সবচে বড় সংহতির জন্ম দিয়েছে। বিপুল সংখ্যক মানুষ দুর্ঘটনায় আক্রান্তদের সহযোগিতার করার জন্য একত্রিত হয়েছিলেন। সবার কাছ থেকে বেশি সহযোগিতা এসেছে নগদ টাকা এবং খাদ্যসামগ্রী’র মাধ্যমে। এগুলো ওই এলাকার মানুষদের মধ্যে বন্টন করা হয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .