বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নেপালী বাঘ সংরক্ষণবিদ যিনি একটি চোখ হারিয়েছেন এবং লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিয়-এর রোদচশমা লাভ করেছেন

Conservation hero Bhadai Tharu donning the sunglasses presented to him by Hollywood Star - Leonardo Di Caprio. Image courtesy Facebook page of the Tharu Community

সংরক্ষণ বীর ভাদাই থারু হলিউড তারকা লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিয়'র উপহার দেয়া রোদচশমা পড়ে আছেন। ছবি থারু জনগোষ্ঠী'র ফেসবুকের পাতার সৌজন্যে। 

নেপালের দক্ষিণাঞ্চলীয় সমভূমির সবথেকে বড় উদ্যান বর্দিয়া জাতিয় উদ্যান বেঙ্গল টাইগারের জন্য প্রসিদ্ধ। ভারতের কাটারনিঘাট বন্যপ্রণী অভয়ারণ্য‘র সাথে এই উদ্যানটিকে দক্ষিণ-পূর্বে সংযুক্ত করেছে খাটা করিডোর যেখান দিয়ে বন্য প্রাণীরা ভারত থেকে নেপালে এবং বিপরীতভাবে নেপাল থেকে ভারতে মূক্তভাবে যাতায়াত করতে পারে।

খাটা বন সমন্বয় জন পরিষদ এই করিডরটির ব্যবস্থাপনা ও রক্ষা করতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই পরিষদের সক্রিয় কর্মীদের অন্যতম হলেন ভাদাই থারু, যিনি বাঘ সংরক্ষণের জন্য এতোটাই অঙ্গীকারাবদ্ধ যে বাঘের আক্রমণ তাকে তার ব্যক্তিগত উদ্দেশ্য থেকে টলাতে পারে নি।

ভাদাই থারু, বাঘ মানব…যিনি একজন বাঘের সাথে লড়াই করছেন এবং এখন বাঘের জন্য লড়াই করছেন… #বীর যাকে @লিওডিক্যাপ্রিয় বাহাবা দিয়েছেন

উদ্যান কর্তৃপক্ষ স্থানীয়দেরকে সারা বছরের ব্যবহারের জন্য ঘাস কেটে সংগ্রহ করতে যে তিন দিনব্যাপী উদ্যানে প্রবেশ করার অনুমতি দেয় সেইখারখাদাই-এর সময় ২০০৪ সালে তিনি যখন উদ্যানের মধ্যে ছিলেন তখন একটি বাঘ তার একটি চোখ উপড়ে ফেলে। প্রতি বছর এখানকার মানুষ নতুন কাটা ঘাস দিয়ে তাদের ঘরের চাল পরিবর্তন করে, এবং সেই সাথে সাথে তাদের ক্ষেত থেকে জীবজন্তু দূরে রাখার জন্য বেড়াও তৈরী করে।

দুর্ভাগ্যজনক এই ঘটনার ফলে সৃষ্ট গভীর দাগ আড়াল করতে তিনি সর্বদাই একজোড়া রোদচশমা ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এগুলো সাধারণ যে কোন পুরাতন রোদচশমা নয়: এই আলোকাবরণগুলো তাকে দিয়েছে আমেরিকীয় অভিনেতা লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিয়

সংরক্ষণ বীর ভাদাই থারু টাইটানিক তারকা লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিয়'র উপহার দেয়া রোদচশমা পরিহিত আছেন।

যখন ডিক্যাপ্রিয় মে ২০১০ সালে নেপাল ভ্রমণ করছিলেন, তখন তিনি বাঘ সংরক্ষণে মানুষটির অঙ্গিকার দেখে তার পরিহিত রোদচশমাটি থারুকে উপহার দেন। ফলশ্রুতিতে এই দু'জন বেশ অনেকটা সময় একসঙ্গে অতিবাহিত করেন।

‘জঙ্গলের প্রতি বন্য প্রাণীর পূর্ণ অধিকার আছে।’ #একটিবাঘরক্ষাকরতে সাহায্য করছে এরকম অনেক লোকের মধ্য থেকে ভাদাই থারুর সাথে পরিচিত হোন।

ড্রীমস পত্রিকার সাথে একটি সাক্ষাৎকারে থারু বলেন:

“We talked about my past, and then he told me he had heard a lot about me and seen my pictures. It was one of the proudest moments of my life, as I recognized him as the hero from Titanic, the one with the girl on the boat.”

‘আমরা আমার অতীত নিয়ে কথা বলেছি, এবং তিনি তখন আমাকে বললেন যে তিনি আমার সম্পর্কে অনেক শুনেছেন এবং আমার ছবি দেখেছেন। এটি আমার জীবনের সবথেকে গর্বিত সময়ের একটি, কারণ আমি তাকে টাইটানিক-এর নায়ক হিসেবে চিনতে পেরেছি, যিনি নৌকার উপর একটি মেয়ের সাথে ছিলেন।

একজন ভূমিহীন শ্রমদাস থেকে একজন সংরক্ষণ বীর-এ পরিণত হওয়া থারুকে ২০০৪ সালে সংরক্ষণের ক্ষেত্রে তার অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ অব্রাহম সংরক্ষণ পুরস্কার প্রদান করা হয়। এখানে তিনি তার স্থানীয় থারু ভাষায় একটি সংরক্ষণমূলক গান গাইছেন:

ফেসবুকের একটি লেখায় থারু জনগোষ্ঠী নামের আদিবাসী থারুদের একটি ফেসবুক গোষ্ঠী নেপালী ভাষায় লিখেছে:

‘भारतको बाघ नेपालमा आउने,
नेपालको बाघसँग मायाप्रीति लाउने ।
उनीहरूको मायाप्रीति नछुटाऊँ है,
वन्यजन्तु हिँड्ने बाटोमा बाधा नपु¥याऊँ है..!’

कुनै जमानामा ११ वर्षसम्म कमैया बसेका सूर्यपटुवा– ४, बर्दियाका भदइ थारुले अचेल गाउँदै हिँड्ने गीत हो यो । […]

[…] “पहिले त मलाई आक्रमण गर्ने बाघलाई खोजी खोजी मारौं जस्तो लाग्थ्यो तर पछि बाघले आफू आपत्मा परेको बेला जोगिन मलाई आक्रमण गर्यो होला भन्ने लाग्यो,” उनले भने, “त्यसैले अचेल बाघको बासस्थान संरक्षणमा जुटेको छु ।” […]

‘ভারতের বাঘ এলো নেপাল,
প্রেমে পড়লো নেপালী বাঘের।
আমরা যেন তাদের প্রেমে বাঁধা না দেই,
আমরা যেন বন্যপ্রাণীর করিডোরকে বাধা না দেই।’

একদা ১১ বছর শ্রমদাস থাকার পর বর্দিয়ার সূর্যপটুয়া-৪য়ের ভাদাই থারু আজকাল এই গান গায় […]

[…] ‘যে বাঘটি আমাকে আক্রমণ করেছিল প্রথমে আমি সেটিকে খুঁজে মেরে ফেলতে চেয়েছিলাম, কিন্তু তারপর আমি ভাবলাম এটি হয়তো ওত পেতে থাকা বিপদ থেকে নিজেকে বাঁচানোর জন্য আমাকে আক্রমণ করেছে,’ ভাদাই বলেন। ‘সেই কারণেই আমি বাঘের বাসস্থান সংরক্ষণের কাজে জড়িত হয়েছি।’

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .