বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রেখে উগাণ্ডায় সমকাম বিরোধী বিল উত্থাপন

Protest against Uganda anti-gay legislation

উগান্ডায় সমকাম বিল উত্থাপনের বিরুদ্ধে একটিভিস্ট জন বস্কো (হাতকড়া) এবং বিসি আলিমি (চিহ্ন প্রদর্শনকারী) কারা পোষাক পরিহিত অবস্থায় লন্ডনে প্রতিবাদরত। ছবি রিপোর্টার #২০২৯৯, স্বত্ব ডেমোটিক্স (১০ ডিসেম্বর, ২০১২)

গত ২০ ডিসেম্বর, ২০১৩ তারিখে উগাণ্ডার সংসদ বিতর্কিত সমকাম বিরোধী বিল পাশ করেছে। এ বিলে সমকামী নারী ও পুরুষদের জন্য যাবজ্জীবন শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে এবং ক্ষেত্র বিশেষে কর্তৃপক্ষের কাছে সমকামীদের বিষয়ে অবহিত না করার জন্য কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

মিনি স্কার্টের মত স্বল্প বসন পরিধান করে মহিলাদের ঊরু প্রদর্শনকে অপরাধের অন্তর্ভুক্ত করে দেশটির সামাজিকভাবে রক্ষণশীল সংসদ পর্নোগ্রাফি বিরোধী বিল পাশ করার পর পরই এ বিল পাশ করে।

২০০৯ সালে উগাণ্ডার সংসদ সদস্য ডেভিড বাহাতি সমকাম বিরোধী বিল সংসদে উত্থাপন করেন। জনগণ ও আন্তর্জাতিক চাপের কারনে বিলটিতে মৃত্যুদণ্ডের বিধান অবলোপন করে তিনি পুনরায় বিল উত্থাপন করেন।

সংসদে ভোটের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ সংসদ সদস্য উপস্থিত না থাকায় সংসদের বিতর্ক চলাকালে প্রধানমন্ত্রী আমামা বাবাজি এবং সংসদের স্পিকার রেবেকা কাদাগার মধ্যে বিষয়টি নিয়ে উত্তপ্ত বাক যুদ্ধ চলে।

আইনটি এখন রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের অপেক্ষায়। বিলটিকে আইনে পরিণত করতে রাষ্ট্রপতি দুই মাসেরও কম সময় পাবেন, অথবা সংশোধনের জন্য সংসদে প্রেরণ করবেন।

অনলাইন বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া তুলে ধরা হলঃ

সমকামীদের অধিকার বিষয়ে সোচ্চার উগাণ্ডার লৈঙ্গিক সংখ্যালঘুদের নেতা ফ্র্যাঙ্ক মুগিশা টুইটে বলেনঃ

তাজা খবর: সরকারিভাবে আমি অবৈধ: উগান্ডার সংসদ সমকাম বিরোধী বিল, ২০০৯ পাশ করেছে

উগাণ্ডার বিবিসি রেডিও সাংবাদিক এলান কাসুইজা আশাবাদীঃ

এটা একেবারেই অসম্ভব যে রাষ্ট্রপতি সমকাম বিরোধী বিলে সম্মতি প্রদান করবেন @আমামাবাবাজি এটার বিরোধী।

রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর ছাড়াই কিভাবে আইনটি পাশ হতে পারে সে বিষয়ে সমকামী অধিকার এক্টিভিস্ট জুলিয়ান ওঞ্জিএমা মন্তব্য করেনঃ

দ্বিতীয়বারের মত এটা সংসদ ফেরত পাঠাতে পারে, যদি দ্বিতীয় বারেও এটা প্রত্যাখ্যাত হয় তাহলে রাষ্ট্রপতিকে ছাড়াই দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতায় আইন পাশ হতে পারে।#এএইচ বিউগাণ্ডা

বিলের বিষয়ে এমেকা অকেচুকুউ মর্মাহতঃ

#সমকামবিরোধীবিলপাশ হয়েছে #উগাণ্ডাতে সত্যি দুঃখজনক। কেউ সমকামী এবং তার বিরুদ্ধে রিপোর্ট না করাও অপরাধ? পাগল আর কাকে বলে।

@ইজেএস বলেনঃ

ভবিষ্যৎের দিক থেকে উগান্ডা পেছন ফিরে হাটছে। মহিলারা কি ধরণের কাপড় পরবে তার অধিকার আইন দ্বারা নিষিদ্ধ #সমকামবিরোধীবিলপাশ, #মানবাধিকার

সংবাদটি শোনার পর জেমস হউলেট উচ্ছাস প্রকাশ করেনঃ

#সমকামবিরোধীবিলপাশ!! হাল্লেলুইয়াহ!!!! #ঈশ্বরওআমারদেশেরজন্য!!!

ইজিএস নামের একজন পাঠক ডেইলি মনিটর ওয়েবসাইটে মন্তব্য করেনঃ

হাস্যকর! মিনি স্কার্ট ও সমকামে নিষেধাজ্ঞা। কোন সন্দেহ নেই এটা পৃথিবীর উন্নয়নশীল দেশগুলোর একটা!!! হা হা (সংসদ সদস্যগণ; সঠিক চাকুরি করুন এবং ট্যাক্স প্রদানকারীদের টাকা চুরি বন্ধ করুন!)

জন বুলুমা নামের আরেকজন পাঠক বলেন যে সমকাম ছাড়াও দূর্নীতির মত আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আছেঃ

এই মাত্র নিশ্চিত হওয়া গেল যে সমকামীদের জন্য উগান্ডা হল পৃথিবীর সবচাইতে খারাপ জায়গা। দেশ যখন দুর্নীতিতে নিমজ্জিত তখন কেন এই গৌণ ইস্যুকে এত গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে?

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .