বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

অলিম্পিক ফুটবলে মেক্সিকোর ঐতিহাসিক স্বর্ণজয়

এই প্রবন্ধটি লন্ডন অলিম্পিক নিয়ে করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

অলিম্পিক ইতিহাসে মেক্সিকো এই প্রথম বার পুরুষদের ফুটবলে স্বর্ণপদক জয় লাভ করল, ১১ আগস্ট ২০১২ তারিখে যার ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয় । দেশটি তখন এক উদযাপনে মেতে ওঠে, যখন মেক্সিকোর ফুটবল দল ফাইনালে ব্রাজিলকে ২-১ গোলে পরাজিত করে। সারা দেশের জনতা, বিভিন্ন চত্বর এবং রাস্তায় পতাকা ওড়াতে এবং নাচতে থাকে। দেশটির রাজধানী মেক্সিকো সিটির অন্যতম নিদর্শন ইন্ডিপেন্ডেনস এঞ্জেল নামক এলাকায় হাজার হাজার সমর্থক এক ব্যাপক উদযাপনের জন্য সমাবেত হয়।

টুইটারে, নিবিড় এক আলোচনার সৃষ্টি হয় এবং এমনকি কেউ কেউ হাস্যরসের সৃষ্টি করে। এই খেলা চলা অবস্থায় এবং খেলা শেষে কয়েকটি প্রধান হ্যাশট্যাগ ছিল #ভামোসমেক্সিকো (“মেক্সিকো এগিয়ে যাও”) #মেক্সিকোডিওর (“সোনালী মেক্সিকো”) #সোমোসওর (“আমরা স্বর্ণময়”) এবং #মেক্সিকোক্যাম্পেওন ( “মেক্সিকো চ্যাম্পিয়ান”)।

মারিথে আয়ালা অরটিজ (@ওয়েরিসমো) [স্প্যানিশ ভাষায়] জোর দিচ্ছেন যে শনিবার সকালে কেন্দ্রীয় মেক্সিকোর জনগনকে সকাল ৯টায় খেলা দেখার জন্য কতটা সকালে ঘুম থেকে জেগে উঠতে হয়েছিল:

@werismao: Realmente tienes la pasión y el amor por tu México si en sábado estas despierto a esta hora #MéxicoDeOro #Londres2012

@ওয়েরসমো:আপনি সত্যি মেক্সিকোকে ভালোবাসেন এবং তার প্রতি আগ্রহী, যদি আপনি শনিবার সকাল বেলা ঘুম থেকে ওঠেন#মেক্সিকোডেওর #লন্ড্রেস২০১২

মেক্সিকোর অলিম্পিক ফুটবল দলের ছবি, যারা তাদের স্বর্ণ জয় উদযাপন করছে। ছবি মেক্সিকোর জাতীয় ফুটবল দলের ফেসবুকের পাতা “ সেলেকশিওন ন্যাশনাল ডে মেক্সিকো” –থেকে নেওয়া।

এই বিষয়ের সাথে রাজনীতি এবং নতুন নির্বাচিত রাষ্ট্রপতিকে নিয়েও যথারীতি আলোচনা হয়েছে। ক্রিস পি (@টিটিটিলা) [স্প্যানিশ ভাষায়] লিখেছেন:

@tititila: Ojalá gane México a ver si puedo olvidar un ratito el pasado 1 de julio y los próximos 6 años uhuuuuuu!

@টিটিটিলা:আমি আশা করি যে মেক্সিকো জিতবে, দেখা যাক জুলাই-এর প্রথমে যা ঘটেছিল এবং [আগামী] ছয় বছর যা ঘটবে, আমি তা ভুলে যেতে পারি কিনা উহুউউউউউ!

ফার্নান্দো দেলাফ্লোর (@এফ৩আরএন) [স্প্যানিশ ভাষায়] জাতীয় সঙ্গীত শোনার সময় তার অনুভূতি নিয়ে রসিকতা করেছেন:

@F3rn: Lloré más cantando el Himno Nacional que cuando me cortó mi ex.

@এফ৩আরএন:আমার প্রাক্তন বান্ধবীর সাথে আমার সম্পর্ক ভেঙ্গে যাওয়ার সময় আমি যতটা কেঁদেছিলাম, এবার জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার সময় আমি তার চেয়ে বেশী কেঁদেছি।

বিবিসি মেক্সিকোর সংবাদদাতা ইগনোসিও ডে লস রেয়েস (@বিবিসি_ ডেলওজাভার) [স্প্যানিশ ভাষায়] খেলায় শেষে দেশটির রাজধানী শহরকে “আনন্দে উন্মত্ত শহর” হিসেবে বর্ণনা করেছেন:

@bbc_delosreyes: México roza su Oro, euforia en las calles del DF y todos gritando “Vámonos al Ángel!” Hoy esta ciudad se va a volver loca!

(@বিবিসি_ ডেলওজাভার:মেক্সিকো স্বর্ণ পদক জিতল, আর মেক্সিকো সিটির (কেন্দ্রীয় এলাকায়) সব রাস্তায় আনন্দ ছড়িয়ে পড়ল। সকলে আওয়াজ তুলল, চল এঞ্জেল নামক জায়গায় যাই! আজ শহরটি আনন্দে উন্মাদ হয়ে যাবে।

অভিনেতা গেইল গার্সিয়া বার্নাল (@গেইলগার্সিয়াবি) [স্প্যানিশ ভাষায়] একই সাথে মেক্সিকোর এই ঐতিহাসিক খেলাটিকে উদযাপন করেছেন:

@GaelGarciaB: A llorar un ratito. Quedito! Ganamos carajo, ganamos!

@গেইলগার্সিয়াবি:আসুন সামান্য কিছুক্ষণ কাঁদি। চুপ! আমরা জিতেছে, সব কিছু গোল্লায় যাক, আমরা জিতেছি!

লেটি আরর (লেটি১এসেট্রিক) [স্প্যানিশ ভাষায়] এই খেলার শেষে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে এসেছেন:

@letylectric: Ese gol de México rompió: 1. El récord olímpico. 2. Récord mundial (en una final). 3. El corazón de millones de brasileños. #MexicoDeOro

@লেটি১এসেট্রিক:মেক্সিকোর গোলঃ ১. একটি অলিম্পিক রেকর্ড ২. একটি বিশ্ব রেকর্ড ( যে কোন ফাইনাল খেলায়) ৩. ব্রাজিলের লক্ষ লক্ষ নাগরিকের হৃদয় ভেঙ্গে দিয়েছে। #মেক্সিকোডেওর

সব শেষে ইয়াজমিন লোপেজের (@ইয়াজলোপেজ) [স্প্যানিশ ভাষায়] করা এই টুইট মেক্সিকোর নেট নাগরিকদের ইতিবাচক মনোভাব তুলে ধরছে:

@YazLopez: Me gustas así: feliz, vencedor y contento! Te amo México!

@ইয়াজলোপেজ: আমি পছন্দ করি, আপনিও এটি পছন্দ করেনঃ সুখ, জয় এবং পরিতৃপ্তি! মেক্সিকো, আমি তোমাকে ভালোবাসি!

এই প্রবন্ধটি লন্ডন অলিম্পিক নিয়ে করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .