বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

ইরান: আহমাদিনেজাদের গাড়ি, এক নারী এবং এক ক্ষুধার্ত বৃদ্ধ

অনলাইনের এক ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে ১০ এপ্রিল ২০১২ তারিখে, ইরানের রাষ্ট্রপতি মাহমুদ আহমাদিনেজাদ যখন বন্দর আব্বাস (ইরানের দক্ষিণের এক সমুদ্র উপকূলীয় শহর) ভ্রমণ করছিলেন, সে সময় এক তরুণী তারা গাড়ির আচ্ছাদনের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে যা কিনা প্রচণ্ড সংঘর্ষের সৃষ্টি করে।

উক্ত তরুণী রাষ্ট্রপতির সাথে কিছুক্ষণ কথা বলেন,যার গাড়ি তার নিরাপত্তারক্ষীদের দ্বারা ঘিরে ছিল। ইতোমধ্যে এক বৃদ্ধ তার দিকে এগিয়ে আসে। সে আর্তনাদ করে উঠে, “আহমাদিনেজাদ আমি ক্ষুধার্ত! আহমাদিনেজাদ তার হাসি বজায় রাখে এবং হাত নাড়তে থাকে যেন তার গাড়ির আচ্ছাদনে তারই মত একজন নাগরিকের সাথে সাক্ষাৎ করে সে বের হল।

কৌতূহলজনক বিষয় হচ্ছে, বেশীর ভাগ পশ্চিমা প্রচার মাধ্যম যখন উক্ত মেয়েটির কথা আলোচনা করছে, তখন ইরানী ব্লগাররা সেই ক্ষুধার্থ বৃদ্ধের ঘটনায় মনোযোগ প্রদান করছে।

কারণসাদর বলছেন [ফারসী ভাষায়]:

এই বৃদ্ধ মানুষটি আর্তনাদ করে উঠেছিল যে, “আমি ক্ষুধার্থ, আমি একজন অবসরপ্রাপ্ত নাগরিক”, আর এতে বোঝা যাচ্ছে যে আহমাদিনেজাদের প্রদান করা সকল প্রতিশ্রুতি ছিল মিথ্যা। আমরা স্মরণ করতে পারি যে তিনি বলেছিলেন, “ইরান হচ্ছে বিশ্বের একমাত্র রাষ্ট্র যেখানে কেউ ক্ষুধার্ত নয়”।

বাবকদাদ লিখেছে [ফারসী ভাষায়]:

একদিন, এই সমস্ত নাগরিকরা হয়ত আমাদের জিজ্ঞেস করবে, “যখন আমরা ক্ষুধার সাথে লড়াই করছিলাম, তখন তোমরা কি করছিলে?” আমাদের কাছে কি এর উত্তর আছে? আমার সন্দেহ আছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .