বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ফিলিপাইনস: যৌন শিক্ষার উপর ব্লগারদের দৃষ্টিভঙ্গি

ফিলিপাইনসের বাগুইয়োতে একটি মৌমাছি একটি ফুলের পরাগায়ন ঘটাচ্ছে। ছবি ফ্লিকারের সুয়াসিন -এর (অনুমতিক্রমে ব্যবহার করা হয়েছে)

এই শিক্ষা বছরে, ফিলিপাইনস সরকার সেখানকার বিদ্যালয়গুলোতে শিশু ও কিশোরদের জন্য জাতিসংঘ সমর্থিত যৌন শিক্ষা কর্মসূচি চালু করেছে। সারা দেশে কেবল নির্বাচিত কিছু বিদ্যালয়ে প্রাথমিক ভাবে যৌন শিক্ষা কর্মসূচি চালু করা হয়েছে এবং তার মধ্যে কিছু বিষয় যুক্ত করা হয়েছে যেমন স্বাস্থ্য, এইচআইভি/এইডস প্রতিরোধ এবং পরিবার পরিকল্পনা।

দেশটির ক্যাথলিক চার্চ এই কর্মসূচির কঠোর বিরোধিতা করছে। ব্লগাররা এই বিষয়ের উপর মন্তব্য করেছে।

টম মার্টিন প্রশ্ন করছে যৌন শিক্ষা কোথায় প্রদান করা হবে “শ্রেণীকক্ষে নাকি কোন গাছের আড়ালে”?

যে সমস্ত স্থানে ছেলেমেয়েদের যৌন শিক্ষা প্রদান করা হবে তার কোনটিতে কোন বাবামার কোন পরিপূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেই। আমার কাছে মনে হচ্ছে যে একজন বুদ্ধিমান বাবা মা অন্তত চাইবে যে গাছের আড়ালে তার সহপাঠীর কাছ থেকে যৌন বিষয়ে জ্ঞান লাভ করার বদলে তার সন্তান নিয়ন্ত্রিত এক বিদ্যালয়ের এক দক্ষ শিক্ষকের কাছে এই বিষয়ে জ্ঞান লাভ করুক।

দি পিনয় ক্যাথলিক স্থানীয় যাজকদের অবস্থানের প্রতিধ্বনি করছে এবং দৃঢ়তার সাথে পরামর্শ প্রদান করছে যে যৌন শিক্ষার বিষয়টি কেবল পিতামাতার হাতেই ছেড়ে দেওয়া উচিত।

এ ফিলিপাইন মম ব্লগার জানাচ্ছেন যে কি ভাবে সন্তানের সাথে যৌন বিষয় নিয়ে কথা বলতে হবে তা অনেক বাবামাই জানে না:

“কি ভাবে পিতামাতা খোলামেলাভাবে সন্তানের সাথে যৌন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবে সে বিষয়ে আমাদের কোন ধারণা নেই। অনেকে হয়ত পুনরুত্পাদন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা কি, তা বোঝার মত শিক্ষিত নয় এবং প্রাকৃতিক জন্ম নিয়ন্ত্রণের ধারণা লাভে ব্যর্থ হবে”।

দি ক্যাটাকম্ব পরামর্শ দিচ্ছে করছে যে সন্তানের বদলে পিতামাতাকে যৌন শিক্ষা দেওয়া প্রয়োজন।

এখন এই সমস্ত শিশুদের নিজেদের পথে ছেড়ে দেই.. অথবা যথাযথ বাবামা হবার জন্য সরকার একটি আইন প্রয়োগ করতে পারে, যেখানে বাবামাকে ধারাবাহিক ভাবে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে অথবা আলোচনা বা সম্মেলনের ব্যবস্থা করতে হবে, যা তাদের সন্তানকে সঠিক ভাবে বেড়ে উঠার ব্যাপারে যাবতীয় জ্ঞান প্রদান করবে। এই বিষয়টি ছেলেমেয়েদের ক্ষেত্রে কেবল যৌনতার বিষয়ে সংবেদনশীলতাকে প্রকাশ করবে না, একই সাথে তা তাদের সন্তানদের সাথে এক সুন্দর সম্পর্ক গড়ার সুযোগ তৈরি করবে, তাদের সাথে সুন্দর সময় কাটানোর সুযোগ প্রদান করবে, তাদের দিকে প্রয়োজনীয় মনোযোগ প্রদান এবং ভালোবাসা ও যত্ন নেবার সুযোগ প্রদান করবে….

দি এক্স-পাইলস বিশ্বাস করে যে, যারা যৌন শিক্ষার বিরোধী তারা যেন এই দিকে মনোযোগ দেবার বদলে গণমাধ্যমের দিকে মনোযোগ প্রদান করে।

প্রজন্মে উপর যৌন বিকৃতি সৃষ্টির জন্য যারা প্রকৃতপক্ষে দায়ী, চার্চ তাদের উপেক্ষা করে যাচ্ছে-এই আসল অপরাধী হচ্ছে গণমাধ্যম। অনেক টিভি অনুষ্ঠান এবং চলচ্চিত্রে সংঘর্ষ এবং যৌনতার উপাদান দেখা যাচ্ছে এবং এ সবকিছু তরুণ এবং শিশূদের মাথায় চলে আসছে। এই সকল বিষয় একটি তরুণের বিকাশমান মনের নৈতিক ধারণাকে পাল্টে দেবার ক্ষমতা রাখে, কোনটা ভালো এবং কোনটা মন্দ তাদের ভেতর এই নিয়ে এক দ্বন্দ্ব তৈরি করে।

এদিকে কোয়াড ডিক্সিট ডিক্সিট এই কর্মসূচি প্রয়োগের ব্যাপারে সরকারের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন

এটা আমার কাছে পরিষ্কার নয় যে সরকার তার চিন্তার দিকে একলাফে এগিয়ে যাচ্ছে যে অতিরিক্ত জনসংখ্যা ফিলিপাইনসের দারিদ্র্যের অন্যতম এক কারণ এবং এরপর থেকে এটিকে কমিয়ে আনতে হবে। (বিশেষ দ্রষ্টব্য: আমি সবসময় ধারণা করি এবং সম্ভবত আমি সঠিক যে আমাদের দেশের দারিদ্র্যের প্রধান কারণ অসাধু উপায়ে মুনাফা ও দুর্নীতি এবং প্রচণ্ডভাবে পরিবেশ ও প্রাকৃতিক সম্পদের লুটপাট)।

মহিলা সংস্থা গ্যাব্রিয়েলা এই কর্মসূচিকে এক সঠিক দিকনির্দেশনা হিসেবে দেখছে

শিক্ষাবিভাগ (ডিপএড) এর ২৬ নম্বর স্মারক যৌন শিক্ষা প্রদানের অনুমতি প্রদান করে যা এক ইতিবাচক পদক্ষেপ, ডিপএড তার অন্যান্য স্টেকহোল্ডার বা অংশীদারদের নিয়ে পরিপূর্ণ শিক্ষা প্রয়োগের আগে স্বল্প সমযের জন্য এই বিষয়ে নিবিড়ভাবে এক পদ্ধতি পরিচালনা করবে। এই বিষয়টি নিশ্চিত করে যে, এই কর্মসূচি যান্ত্রিকভাবে প্রয়োগ করা হয়নি এবং সকল যুক্তি শোনা হয়েছে। আমাদের অংশে গ্যাব্রিয়েলা, গ্যাব্রিয়েলা ওমেন্স পার্টি ও সালিনলাহি স্বেচ্ছায় আমাদের পরামর্শ প্রক্রিয়ার অংশীদার হতে ইচ্ছা প্রকাশ করেছে এবং শিশু ও পিতামাতাকে আমাদের লিঙ্গ ও যৌনতা বিষয়ে প্রদান করা শিক্ষার বিষয়ে যে নিবিড় অভিজ্ঞতা তা ভাগাভাগি করে নিতে রাজি হয়েছে।।

তবে ডাকি পারেডেস বিশ্বাস করে যে এই অনুষ্ঠান মৃত একটি বিষয়ের মত সুন্দর। যেখানে নতুন ক্ষমতায় আসা একুইনো (কোরাজন একুইনোর ছেলে) শিক্ষা প্রশাসনে ব্রাদার আরমিন লুইস্রো এফএসপিকে (ব্রাদার শব্দটি খ্রিস্টানদের যাজকদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়) সচিব হিসেবে নিয়োগ প্রদান করেছেন।

তাহলে কি জাতি সংঘের অর্থ সাহায্যে চলা সরকারি স্কুলে যৌন শিক্ষা প্রদান করার এখানে ইতি ঘটছে? সম্ভবত! কি ভাবে একজন বিশ্বাস করবে একজন খ্রিস্টান ব্রাদার (যাজক) প্রাথমিক ও উচ্চ বিদ্যালের ছাত্রদের মাখে যৌন শিক্ষাকে সমর্থন করতে পারে, যেখানে কিছু ক্যাথলিক চার্চের ক্ষেত্রে বিবেচনা করা হয় যে তারা বিশ্বাস করে, ছাত্রীদের যৌন এবং যৌনতা বিষয়ে শিক্ষা প্রদান, তাদের কেবল অবাঞ্ছিত গর্ভধারণের দিকে ঠেলে দেয়

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .