বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

দি বিগ ইস্যু নামক পত্রিকাটি তাইওয়ানে এসে হাজির হয়েছে

জিয়া তাইওয়ানি সংস্করণে প্রথম প্রকাশিত দি বিগ ইস্যু নামক পত্রিকাটি বিক্রি করছেন। ছবি এমবারতাইপের সৌজন্যে।

জিয়া তাইওয়ানি সংস্করণে প্রথম প্রকাশিত দি বিগ ইস্যু নামক পত্রিকাটি বিক্রি করছেন। ছবি এমবারতাইপের সৌজন্যে।

দি বিগ ইস্যু”, এখন থেকে বিশ বছর আগে যুক্তরাজ্যে প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল। ১ এপ্রিল থেকে তা তাইওয়ানের ঐতিহ্যবাহী চীনা ভাষায় (ট্র্যাডিশনাল চাইনিজ) মাসিক সংস্করণ হিসেবে প্রকাশিত হচ্ছে। এটা একটি অভিনব প্রকল্প, যা গৃহহীন মানুষদের উপর নির্ভর করে প্রকাশিত হতে হচ্ছে, গৃহহীন মানুষেরা রাস্তায় পত্রিকা বিক্রি করবে এবং এর উদ্দেশ্য এই পত্রিকা বিক্রির মধ্যে দিয়ে তাদের বৈধ একটি কাজের ব্যবস্থা করতে সাহায্য করা। গৃহহীন মানুষেরা প্রতিটি পত্রিকা বিক্রির মধ্যে দিয়ে ৫০ তাইওয়ানি ডলার আয় করতে পারবে (পত্রিকার দামের অর্ধেক পরিমাণ টাকা)। এই বিষয়টির শুরু এবং প্রকল্পের উন্নয়নের কাহিনীর ব্যাপারে আপনি উইকিপিডিয়ায় পড়তে পারবেন।

তাইওয়ান বিশ্বের নবম দেশ যারা “বিগ ইস্যু” সংখ্যা প্রকাশ করলো। লি চি ঝং (李取中) রোডো ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা, তিনি এই প্রকল্পটিকে তাইওয়ানে পরিচয় করিয়ে দেন এই আশায় যে, এটি এখানে নতুন ধরনের এক সামাজিক ব্যবসা গড়ে তুলবে। প্রথম সংখ্যাটি প্রকাশ করার এক মাস আগে বিগইস্যু.টিডাব্লিউ সাহায্যকারীদের নিয়োগের জন্য ফেসবুকে-এ ফেসবুক ফ্যান পেজ (ফেসবুকের বিশেষ পাতা) তৈরি করে। ইতোমধ্যে এর প্রায় ২৭,০০০ জন সমর্থক তৈরি হয়েছে। তাইওয়ানের অনেক ব্লগারকে প্রথম সংখ্যায় লেখার জন্য আহ্বান জানান হয়, যার মধ্যে ছিলেন বিখ্যাত ভ্রমণ বিষয় ব্লগ লেখক কেনওর্য়াকার ও বিখ্যাত লেখক ও সঙ্গীত সমালোচক সাউন্ডফিউরি

লিন ইউ শু তাইওয়ানে বিগ ইস্যুর আগমনে উত্তেজিত:

登 陸台灣,對我個人是個振奮的消息,除了驚訝台灣亦步亦趨吸收英國的社福觀點外,作法上也漸漸同步了起來。這份街友才能販賣的雜誌,在英國發行已經超過20 年,雜誌賣點除了內容之外,附加價值在於,提供人們幫助弱勢的管道,但與捐款不同的是,讓弱勢族群也肩負自力更生的責任。

তাইওয়ানে বিগ ইস্যুর আগমন আমার কাছে এক উত্তেজনাপূর্ণ সংবাদ। আমি বিস্মিত যে তাইওয়ান কেবল যুক্তরাজ্যের দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণ করছে না, সে দেশটির সামাজিক কল্যাণ পদ্ধতিও গ্রহণ করেছে। ২০ বছর আগে যুক্তরাজ্যে কেবল গৃহহীন মানুষদের মাধ্যমে বিক্রি হওয়া পত্রিকা প্রকাশিত হয়ে আসছে। সংবাদের বিভিন্ন উপাদান ছাড়াও, এটি নাগরিকদের সংখ্যালঘু মানুষদের সাহায্য করার উপায় তৈরি করে দেয়। দান করার বদলে এইভাবে পত্রিকা বিক্রি করার পদ্ধতি, সংখ্যালঘুদের দায়িত্বশীল হবার এবং নিজস্ব আয়ে জীবন ধারনের ব্যবস্থা করে দেয়।

সিলিগ্রাফি১৯ বলছে:

… 請大家告訴大家這本雜誌的消息,轉貼我的部落格文也可以. 如果在捷運站出口處,看到穿著The Big Issue制服的街友或志工, 請停下腳步, 購買一本100元的雜誌, 作為對社會企業雜誌最直接的支持. 省下一杯星巴克的錢, 獲得的不只是閱讀的樂趣, 也幫助街友或社會弱勢的人們, 透過販售雜誌的工作機會, 賺取收入, 重建信心,重新取回生活主導權。

….দয়া করে সবাইকে এই পত্রিকার কথা বলুন, অথবা আপনি পুনরায় এই প্রবন্ধটি আবার পোস্ট করতে পারেন। যদি আপনি এমআরটি (ম্যাস রাপিড ট্রানজিট, রেলের মাধ্যমে দ্রুত যাতায়াত/পরিবহন ব্যবস্থা) স্টেশনের আশেপাশে গৃহহীন কোন ব্যক্তি বা সাহায্যকর্মীকে বিগ ইস্যুর পোশাক পরিহিত অবস্থায় দেখেন, তা হলে দয়া করে থামুন এবং সামাজিক ব্যবসার প্রতি সরাসরি সমর্থনের জন্য ১০০ তাইওয়ানি ডলার দামের পত্রিকাটি কিনুন। স্টারবাক্সের (বিখ্যাত কফি বিক্রেতা) এক কাপ কফি কম খান, পাঠের আনন্দ নেবার এবং গৃহহীন ও সংখ্যালঘুদের সাহায্য করার জন্য সেই টাকাটি জমান। পত্রিকা বিক্রি করে গৃহহীন মানুষেরা কিছু টাকা আয় করতে পারে, তারা তাদের আত্মবিশ্বাস পুনরায় নির্মাণ করতে পারে এবং নিজেদের জীবন ধারনের টাকা নিজেরাই উপার্জন করতে পারে।

যখন সাহায্যকর্মীদের গংগুয়ান এমআরটি স্টেশনের কাছে দি বিগ ইস্যুর সংখ্যা বিক্রি করতে দেখেন, তখন পার্পল বিন (紫豆子) কিছু ছবি তুলেছেন। যদিও এটিকে একটি প্রতিশ্রুতিশীল প্রকল্পের মত মনে হচ্ছে, টুইটারে এমবারতাইপে নামক ভদ্রমহিলা জনাব জিয়ার সাথে তার কথোপকথন আমাদের জানাচ্ছেনজিয়া সেই সমস্ত গৃহহীনদের মধ্য একজন, যিনি এই পত্রিকা বিক্রি করছেন:

「請支持我自食其力!」賈先生說。早上從捷運站出來遇到他,喊得聲嘶力竭卻沒有半個人停駐看一眼;賈先生說,我是他今天賣出去的第一本the big issue http://twitgoo.com/mn587

জিয়া উচ্চ স্বরে বলছিলেন, “দয়া করে আমার জীবন ধারণের টাকা উপার্জনে আমাকে সাহায্য করুন”। সকালবেলা যখন আমি এমআরটি স্টেশন থেকে বের হয়ে আসি তখন তার সাথে আমার দেখা হয়েছিল। যত জোরেই তিনি চিৎকার করেন না কেন, কোন পথিক তার চলার গতি কমাচ্ছিল না বা তার দিকে কেউ তাকাচ্ছিল না। জনাব. জিয়া বলেন, আজকের দিনটিতে আমি তার প্রথম ক্রেতা। দি বিগ ইস্যু এইচটিটিপি://টুইটগো.কম/এমএন৫৮৭

賈先生說:「大家不知道我在喊的這是什麼~」捷運站外飄 起小雨,他不能站上有屋簷的捷運手扶梯前喊,只好繼續站在階梯外喊「大誌雜誌!」的確,到底什麼是大誌?大誌有什麼?對於平常只逛拍賣只讀蘋果與GQ的上 班族來說,一個站在捷運外叫賣陌生書刊名字的中年人一點也沒有意義

জিয়া বলেন, “তারা জানে না কি কারণে আমি চিৎকার করছি”। স্টেশনের বাইরে বৃষ্টি হচ্ছিল এবং সিঁড়ির সামনে ছাদের নিচে তিনি দাঁড়াতে পারছিলেন না, কাজেই তিনি স্টেশনের বাইরে চিৎকার করে যাচ্ছিলেন “বিগ ইস্যু কিনুন”। তবে প্রশ্ন হচ্ছে “বিগ ইস্যু” আসলে কি? বিগ ইস্যুর ভেতরে কি রয়েছে? সাদা পোশাকের নাগরিকের (উচ্চ পদে চাকুরি করা ব্যক্তিদের হোয়াইট কালার বা সাদা পোশাকের নাগরিক নামে অভিহিত করা হয়) যারা অনলাইনের নিলামে জিনিস কিনতে আগ্রহী হয়, তারা প্রতিদিন কেবল এপেল ডেইলি ও জিকিউ নামক পত্রিকা পড়ে। এমআরটি স্টেশনে এক মধ্য বয়স্ক এক ব্যক্তির চিৎকার করা এবং অজনপ্রিয় পত্রিকা বিক্রির দিকে তারা খেয়াল করে না।

এন্টিব্যাডমিডিয়া একই সাথে তাইওয়ানে দি বিগ ইস্যু কঠিন ভবিষ্যৎ-এর মুখে পড়তে যাচ্ছে সেই রকম ধারণা করছেন:

再 過兩天這本雜誌就要創刊了,雖然立意很好,但是新聞中報導台北縣市以外的縣市仍由便利商店作為販售通路,恩…… 如果這本雜誌內容還不差,也確實地實踐其宗旨「由街友販售」,那大家就盡己所能支持囉!大型的社會公平不易一蹴可幾,小規模的資源流動總是可行的。除了期 待還要觀察。

দুদিন মাত্র বাকী এবং এই পত্রিকা তার প্রথম সংখ্যাটি বের করতে যাচ্ছে। উদ্দেশ্য মহৎ, কিন্তু সংবাদ জানা যাচ্ছে, তাইপে সিটি এবং তাইপের জেলাগুলোতে এই পত্রিকা সুবিধা মত দোকানে বিক্রি হবে, ঠিক আছে… যদি পত্রিকার ভেতরের সংবাদ তেমন খারাপ না হয়, এবং সত্যি যদি তা “কেবল গৃহহীন ব্যক্তিদের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়”, তা হলে এটিকে সমর্থন করার জন্য আমাদের যা করা দরকার তা করবো! বড় আকারে সামাজিক ন্যায় প্রতিষ্ঠা রাতারাতি অর্জন করা সম্ভব নয়, কিন্তু ক্ষুদ্র আকারে সম্পদের পুনর্বণ্টন এখনো সম্ভব। চলুন আমরা অপেক্ষা করি এবং দেখি কি ঘটে।

2 টি মন্তব্য

আলোচনায় যোগ দিন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .