বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কলম্বিয়া: নির্বাচনে বিভ্রান্তিকর ব্যালট

১৪ মার্চে কলম্বিয়ায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, সে নির্বাচনে একটি অভিযোগ ছিল খুব সাধারণ: ভোট প্রদানের পদ্ধতিটি ছিল বিভ্রান্তিকর এবং লোকজন না জেনেই তাদের ভোটটিকে বাতিল করে ফেলছিল, এই কাজটি তারা করে ভোটটি ভুল বাক্সে ফেলে। এই নির্বাচনে, ব্যালটে প্রার্থীর ছবি বা নামের বদলে ভোটাররা কেবল দলের প্রতীকের ছবি দেখতে পায় এবং ভোটটি ফেলার জন্য তাদের সামনে নম্বর দেওয়া কিছু বাক্স ছিল। ভোট দেবার সময় ভোটারদের মনে করতে হত তাদের পছন্দের প্রার্থীর দল কোনটি এবং তাদের ভোট রাখার জন্য কোথায় নম্বর দেওয়া রয়েছে।

আমেরিকাস কোয়াটারলি ব্লগের সেবাস্টিয়ান চাসকেল নির্বাচনী কেন্দ্রে ভোট প্রদান করার যে পদ্ধতি তা ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করছে:

কলম্বিয়াবাসীরা প্রথমত এবং প্রধানত তাদের প্রিয় দলের জন্য ভোট প্রদান করবে। যদি দলটির উন্মুক্ত প্রার্থী (বাছাই করা নয়) তালিকা থাকে, তা হলে ভোটাররা ঠিক করবে দলের মধ্যে থেকে তারা কোন প্রার্থীকে বেছে নেবে (তবে তারা তা করতে বাধ্য নয়)। কিন্তু যদি দলের বাছাই করা প্রার্থী থাকে (অনেকেই তা করে থাকে), কোন কোন ক্ষেত্রে দলটি তার পছন্দের প্রার্থীদের তালিকা ইতোমধ্যে তৈরি করে রেখেছে এবং সেক্ষেত্রে ভোটাররা তাদের ব্যক্তিগত পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচনে বেছে নিতে পারবে না। এর ফলে অনেক ভোটার সেই সমস্ত ব্যক্তিকে নির্বাচিত করতে সাহায্য করবে, যারা তাদের পছন্দের প্রার্থী নয়।

একজন টুইটার ব্যবহারকারী মিগুয়েল ওলাইয়া (@জাগলারডেলজিপা) যিনি এই পদ্ধতির পক্ষে নন, তিনি লিখেছেন:

el sistema es mierdoso: le doy mi voto a un individuo de un partido, el man gana y le pasa el voto a un hijueputa que no quería que quedara.

এটি খুব বাজে এক পদ্ধতি। দলের কোন এক ব্যক্তিকে আমি আমার ভোটটা দিয়েছি। এই ব্যক্তিটি জিতেছে এবং ভোট এমন কিছু বিরক্তিকর ব্যক্তিকে প্রদান করতে হয়েছে, যারা নির্বাচনে আসন জিতুক আমি তা চাইনি।

এই পদ্ধতি অন্যদের একটা উপায় বের করে দিয়েছে কি ভাবে স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে এই তার ব্যাখ্যা দেওয়া যাবে। বেলেন এলাকার এক ভোট কেন্দ্রে এক সম্প্রদায়ের নেতা অনুরূপ ব্যালটের এক বিশাল ছবি টাঙ্গিয়ে দিয়েছে, যাতে ভোটার ভোট প্রদান পদ্ধতির সাথে পরিচিত হয়ে উঠতে পারে। এই কর্মটি, যাকে তিনি বলছেন শিক্ষামূলক অনেকের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ এক কাজ, তারা বলছে যে লোকজনদের বলছেন কি ভাবে ভোট দিতে হবে তিনি তা জানাচ্ছেন।

ইএএফআইটিএফটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন পত্রিকা বিটাকারো [স্প্যানিশ ভাষায়] এবং সেখানে ম্যারি লুইজ গ্যালেগা অসারিও নামক ভদ্রমহিলা বিটাকারোতে তার ব্লগ পোস্ট থেকে উদ্ধৃতি করেছেন যে, সম্প্রদায়ের ওই নেতা তার এই প্রদর্শনের সপক্ষে যুক্তি তুলে ধরেছে:

A la persona que se arrima le digo que ella misma coja el lapicero y marque el partido que quiera y la prueba la tengo aquí en el tablero que están borrados todos. El ejercicio lo hace la gente, yo no estoy apoyando a ningún candidato, la gente marca.

যে ব্যক্তি ভোট দিতে আসে, আমি তাকে বলি যে কলম নিন এবং যে পার্টিকে ভোট দিতে চান তাকে চিহ্নিত করুন, এবং বোর্ডের উপরে এর প্রমাণ রয়েছে, যেখানে আপনি দেখতে পাবেন তারা তা মুছে ফেলেছে। জনতা এই কাজটির অনুশীলন করে, আমি কোন বিশেষ প্রার্থীকে সমর্থন করছি না, লোকজন তাদের নিজেদের পছন্দের ব্যক্তিকে ভোট প্রদান করছে।

যদি কারো ইন্টারনেটে প্রবেশের সুযোগ থাকে তা হলে তার পক্ষে এই ভোট প্রদান পদ্ধতিটি বোঝা সহজ হয়ে যাবে: ভিন্ন ভিন্ন ওয়েবসাই ভোট কি ভাবে দিতে হবে সে বিষয়ে ভিডিও ও ভোট প্রদানের নির্দেশাবলি প্রদান করেছে। লা সিলা ভাসিয়ার [স্প্যানিশ ভাষায়] ব্যাপারটিও তাই, এটি একটি স্বাধীন প্রচার মাধ্যম উৎস, যার মধ্যে এক পাতায় “ভোট প্রদান অনুশীলনের পরীক্ষামূলক (ডামি) এক পদ্ধতি রয়েছে”। নির্বাচনের সময় লা সিলা ভাসিয়ার একটি সক্রিয় টুইটার একাউন্ট ব্যবহার করেছেন @লাসিলাএনভিভো নামে এবং জানাচ্ছে, ভোট প্রদান করার পদ্ধতি এবং ফলাফল সম্বন্ধে।

ব্লগ আপডেট গিকের [স্প্যানিশ ভাষায়] আলেকজান্ডার ক্যাস্ট্রো যিনি বোইয়াকা এলাকায় বাস করেন, তিনি লিখেছেন প্রথমবার ভোট দিতে যাবার অভিজ্ঞতার কথা। তিনি লিখেছেন যে, নাগরিক দায়িত্বের প্রতি উৎসাহী হয়ে নয়, ভোট দেবার সনদ দেখালে বিশ্ববিদ্যালয় যে পড়ার খরচের উপর ছাড় দেয় হয় তার কারণে ভোট দিতে গিয়েছিল। বিভ্রান্তিকর ব্যালট সম্বন্ধে সে এই কথাগুলো বলেছে:

Cuando las destape me sentí confundido, era como encontrar la salida a un laberinto, como un juego de lógica y las instrucciones que llevan impresas en la parte posterior no servia para nada, aburrido por esto pensé en tres cosas:

1.Votar todo en blanco.
2.Hacer un cuadrado y dentro un dibujo de Optimus Prime y arriba escribir partido Autobot.
3.Votar por el primero de la lista.
4.Dejar el tarjeton tal como me lo habían entregado.

যখন আমি ব্যালট উন্মোচন করলাম, আমি বিভ্রান্ত হয়ে পড়লাম। মনে হচ্ছিল যেন আমি এক গোলকধাঁধা থেকে বের হবার চেষ্টা করছি, যেন এক যুক্তির ধাঁধা সমাধান করার প্রচেষ্টা এবং এর পেছনে ভোট প্রদানের যে নির্দেশাবলি দেওয়া হয়েছিল তা কোন কাজের না, এই সব কারণে বিরক্ত হয়ে আমি তিনটি বিষয় নিয়ে ভাবলাম:

১. সর্বোপরি “খালি মার্কা” এমন জায়গায় সিল দেওয়া
২. একটা বর্গ তৈরি করা এবং তার উপর একটা অপটিমাস প্রাইমের (ট্রান্সফর্মার নামক চলচ্চিত্রের এক চরিত্র) আঁকা এবং এর উপর লেখা অটোবট পার্টি।
৩. এই তালিকায় যার নাম প্রথমে থাকবে তাকেই ভোট দেওয়া।
৪. যে ভাবে এই ব্যালটটি হাতে দেওয়া হয়েছে তাতে কোন কিছু না (কাউকে ভোট না দিয়েই) করেই রেখে যাওয়া।

ভোট প্রদান পদ্ধতি কঠিন বা সহজ, তা না দেখে, অনেকে নির্বাচনের দিনটিকে সামনে এগিয়ে যাবার দিন হিসেবে বিবেচনা করছে। ম্যানুয়েল গোমেজ (@ম্যানুয়েলজি) লিখেছে:

A mi me encanta que el voto sea una moda, mientras sea un voto consciente.

আমি ভোট দিতে পছন্দ করি, যতক্ষণ এটা সচেতনতার ভোট।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .