বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

টাইফুন কেটসানা দক্ষিণ পূর্ব এশিয়াকে বিপর্যস্ত করেছে

গত মাসে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশের উপর দিয়ে কেটসানা নামক টাইফুন বা ঘূর্ণিঝড় বয়ে যায়। এই ঘটনায় প্রায় একশত লোক মারা যায় এবং লক্ষ লক্ষ লোক গৃহহীন হয়ে পড়ে। এই টাইফুন ফিলিপাইনসে এক বন্যার সৃষ্টি করে এবং এখন পর্যন্ত ৩০ লক্ষ লোককে আক্রান্ত করেছে। এটি কেন্দ্রীয় ভিয়েতনাম, ক্যাম্বোডিয়া এবং দক্ষিণ লাওসের লক্ষ লক্ষ লোককে গৃহহীন করেছে।

“কেটসানা” ভিয়েতনামের প্রায় ৩০০,০০০ বেশি বাড়ি, স্কুল, এবং অন্যান্য কাঠামো ধ্বংস করেছে:

মঙ্গলবারে এটি উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানার পর থেকে এই ঘটনায় ৯২ জন লোক মারা গেছে, ১৯ জন নিখোঁজ রয়েছে এবং ১৯৯ জন আহত হয়েছে। এই পরিসংখ্যান টি পাওয়া গেছে জাতীয় বন্যা এবং ঘূর্ণিঝড় নিয়ন্ত্রণ কমিটির কাছ থেকে।

প্রবল বৃষ্টিপাত এবং তার সাথে পূর্ব সমুদ্র থেকে আসা নয়টি ঘূর্ণিঝড় এ বছরে প্রায় ৩৩৭,০০০ টি ঘর, স্কুল এবং মানুষের বানানো বিভিন্ন স্থাপনা ধ্বংস করেছে।

একই সাথে তা প্রায় প্রায় সাড়ে তিন লাখ এর ও বেশী লোককে ঘরছাড়া করেছে।

এই ঝড় প্রায় ১৭০,০০০ টি ঘর ধ্বংস করেছে এবং ভিয়েতনামের ছয়টি প্রদেশের শস্য নষ্ট করেছে। সরকারি কর্মকর্তা বলছে টাইফুন যে এলাকার উপর দিয়ে গেছে, সে সব এলাকার প্রায় ৩৫০,০০০ লোককে তাদের বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে হয়েছে।

সেখানকার বাসিন্দারা বলছে “কেটসানা বিগত চার থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়ংকরতম টাইফুন”। কর্মকর্তারা আশংকা প্রকাশ করছে যে “এবারের বন্যার ভয়াবহতা ঐতিহাসিক ১৯৬৪ সালের বন্যাকেও ছাড়িয়ে যাবে”।

এই ঝড় সম্বন্ধে ভিয়েতনামের টুইটারে প্রতিক্রিয়া:

জেজেলচুয়া: কেন্দ্রীয় ভিয়েতনামে টাইফুন কেটসানা আঘাত হানা সত্বেও ভিয়েতনামের দক্ষিণ অংশ বিস্ময়করভাবে অনেকটা শান্ত ছিল। সেখানে সামান্য কিছু মেঘ এবং বাতাস বইছিল।

কুয়াংডিউ৯১১: ঝোড়ো বাতাস কুয়াং নাম, কুয়াং নাগাই, এলাকাকে বিপর্যস্ত করে ফেলেছে। দয়া করে যেন তাদের ভালো কিছু ঘটে, …. দক্ষিণ ভিয়েতনামে সারারাত বৃষ্টি পড়েছে। কোথায় যাবার উপায় নেই।

এমিলিপাহাম: এই ঝড় যা ফিলিপাইনসে এক ভারী বৃষ্টিপাত বয়ে আনে, এখন তা টাইফুন বা ঘূর্ণিঝড় পরিণত হয়েছে, এই টাইফুন ভিয়েতনামকে ধ্বংস করে ফেলেছে।

সেরেনিই:@মাইকেলিসম কেটসানার তাণ্ডব এখনো শেষ হয়ে যায়নি, ভিয়েতনাম দেশটির কেন্দ্রীয় অংশে জরুরী অবস্থা জারি করেছে।

সিয়াম রিপের বন্যা, ছবি ক্যাম্বোডিয়া কলিং ব্লগ থেকে নেওয়া হয়েছে

সিয়াম রিপের বন্যা, ছবি ক্যাম্বোডিয়া কলিং ব্লগ থেকে নেওয়া হয়েছে

এ ছাড়াও ক্যাম্বোডিয়াতে কেটসানা উপর্যুপরি আঘাত হেনেছে, যার ফলে দেশটির অনেক স্থানে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। ক্যাম্বোডিয়া কলিং জানাচ্ছে এই প্রথমবার সিয়াম রিপ-এ বন্যা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে

….. এই প্রথম সিয়াম রিপে বন্যা এত খারাপ আকার ধারণ করল।

সিয়াম রিপের ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের কাছে বন্যা ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে এবং থাইডা তার মোটর সাইকেল থেকে নেমে সেটিকে ৫০০ মিটার ঠেলে নিয়ে গেছে। এর ইঞ্জিনে পানি ঢুকে গিয়েছিল এবং মোটর সাইকেল চালু হচ্ছিল না। ভদ্রমহিলা জানাচ্ছে, সে সময় গাড়ির ড্রাইভাররা রাস্তায় খুব জোরে গাড়ি চালাচ্ছিল যাতে তারা পানির মধ্যে আটকা পড়ে না যায়। এই ঘটনার কারণে পানি ছিটকে আসছিল, ফলে তার মোটর সাইকেলটিকে সামনে ঠেলে নিয়ে যাওয়া আরো কঠিন হয়ে উঠছিল।

এন্ডি ব্রাউয়ের, বন্যা আঘাত হেনেছে এমন অন্য এলাকার কথা তুলে ধরেছেন:

একরাতের বৃষ্টিতে সিয়াম রিপ এর পুরোনো বাজার বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যায়। এর সাথে ডুবে যায় পাব স্ট্রিট এবং অন্য সব এলাকা, যার মধ্য রয়েছে ওয়াট বো রোড এবং হোটেল ডে লা প্যাক্স, আমাসারা এবং লা রেসিডেন্স হোটেলের সামনের রাস্তা। অ্যাঙ্কর-এ, প্রাসাদ কারাভান ও বেনটাই কেডাই এর সামনের রাস্তা পানিতে ডুবে গেছে এবং অ্যাঙ্কর ওয়াটকে যে খাল ঘিরে রেখেছ তা বৃষ্টির পানিতে উঁপচে পড়ছিল। নমপেন এই মুহূর্তে তেমন একটা আক্রান্ত হয় নি।

চার্চ ওয়ার্ল্ড সার্ভিস জরুরী প্রয়োজনীয় পণ্যের তালিকা তৈরি করেছে যা ক্যাম্বোডিয়ান আশ্রয় কেন্দ্রে প্রয়োজন হয়ে পড়বে:

চার্চ ওয়ার্ল্ড সার্ভিস ক্যাম্বোডিয়া জানাচ্ছে যে কোমপং থোম প্রদেশের ২২৩ টি গ্রাম ও ১৪,৭৪৪টি পরিবার বন্যায় আক্রান্ত হয়েছে।

সিডাব্লিউএস চার্চ ওয়ার্ল্ড সার্ভিস ক্যাম্বোডিয়া দুর্গত এলাকায় সাহায্য ও জরুরী ভিত্তিতে কি কি প্রয়োজন তা সরবরাহ করছে, যার মধ্যে রয়েছে খাবার, থাকার জায়গা (এক ধরনের প্লাস্টিক যা দিয়ে পরিবারকে বৃষ্টি আর রোদ থেকে রক্ষা করা যায়), বিশুদ্ধ খাবার পানি, মশারি, এবং পানি ও পয়:নিষ্কাশন ব্যবস্থা দি।

(কেটসানার দ্বারা ভিয়েতনাম ও ক্যাম্বোডিয়া যে ধ্বংস সাধন হয়েছে তার ছবি দেখতে চাইলে ভিয়েতনাম নেট ব্রিজ কে আই মিডিয়ায় প্রবেশ করুন)

লাওসের দক্ষিণ অংশ “কেটসানার” দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঝেকং ও আতাপয়ু প্রদেশে ব্যাপক বন্যা ছড়িয়ে পড়েছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, প্রায় ৫০ হেক্টর পরিমাণ চাষের জমি বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।

কেপিএল লাওস সংবাদ সংস্থার মতে:

১৬ নম্বর রাস্তা, অনেক সেতু ও গ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে এবং যোগাযোগ ও বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। বুধবার সকালে সেকং প্রদেশের সেকং নদীর পানি উপচে পড়ার পর পরই এসব ঘটনার সৃষ্টি হয়।

একই সময় সেডন নদীর পানি ঝড়ের প্রভাবে বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হতে শুরু করে এবং সারাভান প্রদেশের খনংসেডন ও ভাপি জেলার কিছু ধান ক্ষেত ও গ্রাম ভাসিয়ে নিয়ে যায়।

টাইফুন কেটসানা থাইল্যান্ডে সরাসরি আঘাত হানে নি, কিন্তু তার প্রভাবে রাজধানী ব্যাংককে কিছু বৃষ্টিপাত হয়েছে। দি ব্যাংকক বিউগল লিখেছে:

সেদিন ব্যাংককের আবহাওয়া ছিল বর্ষণ সিক্ত এবং বিষন্ন। এই বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দেয়, টাইফুন কেটসানা শহরের উপর দিয়ে পার হয়ে যাচ্ছে।

সেদিন সারাদিন হালকা বৃষ্টিপাত হয়েছে। গত রাতের ৮ পর্যন্ত বৃষ্টি পড়ছিল। আমার বাসা যে রাস্তায়, তার পাশের ছোট খাল পরিপূর্ণ হয়ে গিয়েছিল, কিন্তু তা বন্যা হবার মত নয় এবং আমার অফিসে যাবার পথে তেমন কোন বিশেষ ঘটনা ঘটে নি। গতকাল শহরে বেশ জোরে জোরে বাতাস বইছিল এবং আমি হিসেব করে দেখলাম পরদিন সকালে আবহাওয়া এখনকার চেয়ে বেশি ঠাণ্ডা ছিল।

কেটসানা একটি লাও নাম, এটি একটি গাছের নাম, যা দেখতে অনেকটা সুগন্ধী আগর গাছের মত।

ফিলিপাইনসের বন্যা পরিস্থিতির সম্বন্ধে আরো পড়তে চাইলে গ্লোবাল ভয়েসেসের এই সমস্ত প্রবন্ধ পড়তে পারেন: বন্যার উপর বেশ কিছু ভিডিও রয়েছে, যার মধ্যে আছে সিটিজেন ভিডিও, চল্লিশ বছরের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা, বন্যায় আক্রান্ত ২৫ লক্ষ জনতা, ইত্যাদি।

ফিলিপাইনসের বন্যা আক্রান্ত গ্রাম, ছবি মাইগ্রান্টের সৌজন্যে

ফিলিপাইনসের বন্যা আক্রান্ত গ্রাম, ছবি মাইগ্রান্টের সৌজন্যে

টুইটারের শক্তি:

ফিলিপাইনসে বন্যা আক্রান্তদের উদ্ধার কার্যে সাহায্য করার ক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়ার যে ভূমিকা পালন করেছে তা গ্লোবাল ভয়েসেসে উদ্ধৃত করা হয়েছে। বিপর্যয়ের সময় মাইক্রোব্লগিং সাইট যেমন টুইটার ও প্লার্কের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাকে আরো সুনির্দিষ্টভাবে নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

একজন টুইটার ব্যবহারকারী এক ত্রাণকেন্দ্রে সেচ্ছাসেবী হবার জন্য সবাইকে আহ্বান জানাচ্ছে।

আরটি@টিজেমানোটক: রকওয়েল, , আজ রাতে ৩০০ গরম ডিম এবং ২০ টি পাউরুটি ২ কাতিপুনান/ অউরারো আশ্রয় কেন্দ্রে সরবরাহ করার জন্য মাকাতির সাহায্যের প্রয়োজন।

কয়েক মিনিট পরে এই টুইটার ব্যবহারকারী উত্তর পান:

আরটি@টিজেমানোটক: ধন্যবাদ, প্রচার এবং প্রস্তাবের জন্যে। আমাদের একজন স্বেচ্ছাসেবী এখন আছে ডিমগুলো পৌঁছানোর জন্যে। টুইটার তোমাকে আমরা ভালবাসি।

ম্যানিলা শহরের বেশ কিছু অংশ এখনও বন্যায় তলিয়ে আছে

ম্যানিলা শহরের বেশ কিছু অংশ এখনও বন্যায় তলিয়ে আছে

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .