বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

মার্কিন দুর্নীতিবিরোধী তালিকা সালভাদরের জনপ্রিয় রাষ্ট্রপতি বুকেলের পতন ঘটাবে না

৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ তারিখে এল সালভাদরের তৎকালীন নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি নাইব বুকেলের সাথে বাম দিকে উপবিষ্ট এল সালভাদরে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত জাঁ ম্যানের সাক্ষাৎ। ডগলাস টোবারের তোলা ছবি ফ্লিকার থেকে নেওয়া। মার্কিন দূতাবাসের জনসংযোগ দপ্তর, এল সালভাদোর। প্রকাশ্য ডোমেইনের অধীনে।

এই গল্পটি প্রথমে এলসালভাদরইনফো.নেট-এ প্রকাশিত হয়। পরে এর একটি সম্পাদিত সংস্করণ গ্লোবাল ভয়েসেসে পুনরায় প্রকাশিত হয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর ১ জুলাই, বৃহস্পতিবার বহুল প্রত্যাশিত দুর্নীতি তালিকা বা “এঞ্জেল তালিকা” প্রকাশ করে। প্রকাশিত প্রতিবেদনে বর্তমান নায়িব বুকেলে প্রশাসনের অংশ সালভাদরের চারজন শীর্ষ কর্মকর্তা এবং রাষ্ট্রপতি বুকেলের দু'জন প্রাক্তন মন্ত্রী অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও গণতন্ত্রকে বাধা প্রদানের অভিযোগ রয়েছে যারা নিষেধাজ্ঞার মুখোমুখি এবং তাদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশাধিকার অস্বীকার করা হতে পারে।

তথাকথিত এঞ্জেল তালিকাটির নামটি এসেছে তৎকালীন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জন্যে এল সালভাদর, হন্ডুরাস এবং গুয়াতেমালার উচ্চ-পদস্থ দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের একটি তালিকা প্রস্তুত করতে বলা — এঞ্জেল মার্কিন-উত্তর ত্রিভুজের বর্ধিত কর্ম — আইনের স্থপতি এবং পৃষ্ঠপোষক এলিয়ট এঞ্জেলের নাম থেকে এসেছে।

সরকারি দপ্তরে দুর্নীতি সমস্যাটি গত কয়েক দশক ধরে এল সালভাদোরকে গ্রাস করে চলেছে। দেশের সর্বোচ্চ স্তরে দুর্নীতির একটি সুস্পষ্ট উদাহরণ হলো আগের চারজন সালভাদরের রাষ্ট্রপতি তিনজনই দুর্নীতি সংক্রান্ত আইনী সমস্যার মুখোমুখি হয়েছেন। দুর্নীতির বিচারের অপেক্ষায় থেকে প্যাকো ফ্লোরস মারা গেছেন, টনি সাকা দুর্নীতির দায়ে ১০ বছরের কারাদন্ডে জেলে রয়েছেন এবং মরিসিও ফুনেস সালভাদর এবং গুয়াতেমালার প্রত্যাবাসনের আবেদন থেকে পালিয়ে নিকারাগুয়ায় লুকিয়ে রয়েছেন।

এঞ্জেল তালিকাটি আন্তর্জাতিকভাবে বুকেলে প্রশাসনের জনপ্রিয়তাকে আরেকটু এগিয়ে দিয়েছে। কর্তৃত্ববাদী প্রবণতা জন্যে বুকেলে অনেক সময় নিন্দিত হলেও এল সালভাদরে এই তালিকাটি জনপ্রিয় নায়িব বুকেলে প্রশাসনের সামান্যই ক্ষতি করতে পারবে। এই তালিকাটিতে যাদের অন্তর্ভুক্ত করা দরকার ছিল এমন লোকজন বাদ পড়েছে এবং দেশের মধ্যে রাষ্ট্রপতি বুকেলের এখনো একটি উচ্চ অনুমোদন সূচক রয়েছে।

উদাহরণস্বরূপ, রাজনীতিবিদ নরমান কিহানো, এর্নেস্তো মুইসোন্দ, বেনিতো লারা এবং আরিস্তিদেস ভ্যালেন্সিয়া ২০১৪ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচন এবং ২০১৫ সালের পৌর ও আইনসভা নির্বাচনে ভোটের জন্যে অপরাধী সংগঠনগুলিকে অর্থ প্রদান করেছেন বলে অভিযোগ থাকলেও তাদেরকে তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ভিডিও এবং অডিও প্রমাণ থাকা ছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে মামলার বিচার চলমান রয়েছে।

এমনকি সালভাদোর থেকে লক্ষ লক্ষ ডলার চুরির অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মরিসিও ফুনেসও সেই তালিকায় নেই। ফুনেস এল সালভাদর এবং গুয়াতেমালায় দুর্নীতির অনেক অভিযোগের মুখোমুখি হচ্ছেন।

পরিশেষে, টনি সাকা প্রশাসনের সময় অবৈধ বোনাস পাওয়া রাজনীতিবিদরাও রয়েছে। ডানপন্থী রাজনৈতিক দল আরেনার সদস্য এবং বর্তমানে আইন প্রণেতা মার্গারিতা এসকোবার একটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে অবৈধ বোনাস পাওয়ার কথা স্বীকারও করেছেন। কেন তিনি সে তালিকায় নেই?

জবাবে এল সালভাদোরে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত জাঁ ম্যান পরিষ্কার করে বলেছেন যে এই তালিকাটি একটি জীবন্ত নথি যা বছরে অন্তত একবার হালনাগাদ হয়। “যকোন সময় আরো নাম অন্তর্ভুক্ত হতে পারে,” তিনি বলেন।

তবুও কিছু কিছু কথিত দুর্নীতিবাজ ব্যক্তিকে বাইরে রেখে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র বিভাগের করা দুর্নীতির তালিকাটিকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে হামলার চেয়ে বরং জনপ্রিয়  নায়িব বুকেলে প্রশাসনের উপর আক্রমণের উদ্দেশ্য প্রণোদিত মনে হতে পারে। কিছু কিছু মার্কিন কর্মকর্তা, যেমন ক্যালিফোর্নিয়ার ৩৫তম জেলার জন্যে মার্কিন প্রতিনিধি নর্মা তোরেস এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন দীর্ঘদীন ধরে বুকেলে প্রশাসনের সমালোচনা করে যাচ্ছে। এই বছর আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র এবং এল সালভাদোরের মধ্যে সম্পর্ক হ্রাস পাচ্ছে এই বছর, বিশেষত এল সালভাদোরের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলি ধ্বংসের জন্যে বুকেলে সমালোচিত হওয়ার পর থেকে।

তবে শতকরা ৭৫ ভাগের বেশি অনুমোদনের হার নিয়ে বুকেলে প্রশাসনের পক্ষে এই তালিকাটি যে দুর্নীতির উপর হামলা নয় বরং শুধুই যে নিরেট রাজনীতি – সেটা বোঝাতে খুব বেশি অসুবিধা হবে না।

বাস্তবে রাষ্ট্রপতি নায়িব বুকেলে ইতোমধ্যে এঞ্জেল তালিকার  বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেছেন যে “তালিকাটির জন্যে ধন্যবাদ। তবে এল সালভাদরে আমাদের নিজস্ব তালিকা রয়েছে।” বুকেলে তার ফেসবুক পাতায় একটি দীর্ঘ প্রতিক্রিয়াও লিখেছেন। তিনি জিজ্ঞাসা করেন, “আপনি কি দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত লড়াইয়ের সাথে যোগসূত্রহীন নিখুঁতভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে তৈরি একটি তালিকাকে গুরুত্বের সাথে নিতে পারেন? “

সুতরাং, তালিকাটি বুকেলের প্রতিচ্ছবিতে আঘাত হানার পরিবর্তে সম্ভবত তার প্রশাসনের ধারাবাহিক জনপ্রিয়তা নিশ্চিত করতে পারে।

বেশিরভাগ সালভাদরবাসী বুকেলের প্রশাসন এবং গত দু'বছরের কাজকে অনুমোদন করে চলছে; নামীদামী বিভিন্ন সংস্থা পরিচালিত বহু জরিপে এটা নিশ্চিত হয়েছে। এগুলির বুকেলেকে সমালোচনা করা দুটি বিশ্ববিদ্যালয় ইউসিএ  এবং ফ্রান্সিস্কো গাভিদিয়া বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত জরিপ রয়েছে।

বুকলেকে সালভাদরবাসীর অনুমোদনের মূল কারণটি হলো গৃহস্থালী হত্যাকাণ্ডের হার হ্রাস; দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে দেশটিতে নথিবদ্ধ হত্যাকাণ্ড খুবই কমে গেছে। তার ওপর, বেশিরভাগ সালভাদরবাসী বুকেলের শুরুতেই সবকিছু বন্ধ করা থেকে শুরু করে টিকা দেওয়ার প্রক্রিয়া পর্যন্ত দুর্দান্তভাবে মহামারী নিয়ন্ত্রণের কথা স্বীকার করেছে।

এঞ্জেল তালিকাটি মধ্য আমেরিকা অঞ্চলে গণতন্ত্রকে জোরদার এবং দুর্নীতি হ্রাস করার লক্ষ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি জো বাইডেনের দুর্নীতিবিরোধী পদক্ষেপের একটি অংশ। কম দুর্নীতি এবং শক্তিশালী গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলি যুক্তরাষ্ট্রে অনিয়মিত অভিবাসন কমাতে পারে। সাম্প্রতিককালে মার্কিন সীমান্তে অভিবাসীদের সংখ্যা একটি নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে

তালিকাটি এই দেশে কার্যকর করতে হলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরকে সালভাদরের অ্যাটর্নি-জেনারেলের কাছে এইসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করার মতো প্রমাণ উপস্থাপন করতে হবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .