বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভেনিজুয়েলার অন্ধকারঃ কতক্ষণ দীর্ঘস্থায়ী হবে?

৭ মার্চ, ২০১৯ তারিখে ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাসে টানা ছয় ঘন্টা বিদ্যুৎ না থাকার ঘটনায় সেখানকার বাসিন্দারা আগুন জ্বালায়। টুইটারের প্রকাশিত লুইস কার্লোস ডিয়াজের ছবি। অনুমতিক্রমে প্রকাশিত।

এখন দিনের প্রায় বেশীর ভাগ সময় ভেনিজুয়েলার নাগরিকদের বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় কাটাতে হচ্ছে।

৭ মার্চ, ২০১৯ তারিখ স্থানীয় সময় বিকেল ৪.৫০ মিনিট, রাজধানী কারাকাস সহ দেশটির ২২টি প্রদেশ পুরোপুরি বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছে, আর যার ফলে বাসগৃহ থেকে শুরু করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, সরকারী দপ্তর এবং হাসপাতালে কোন বিদ্যুৎ ছিল না। ৮ মার্চের সকাল বেলা দেশটির সাংবাদিক এবং সাধারণ নাগরিকদের মধ্যে যারা মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করতে সক্ষম হচ্ছিল তারা অনলাইনে সংবাদ প্রদান করা শুরু করে যে জেনারেটার এবং অন্য সকল বিকল্প বিদ্যুৎ সরবরাহ যন্ত্রের কাজ করার ক্ষমতাও শেষ হয়ে আসছে।

রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে সংগ্রামরত রাষ্ট্রপতি নিকোলাস মাদুরোর সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন যে বিরোধীদের “অন্তর্ঘাত মূলক” কর্মকাণ্ডের কারণে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, আর তারা একে “বিদ্যুৎ নিয়ে যুদ্ধ” হিসেবে অভিহিত করছে, যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় যা চালিয়ে যাচ্ছে বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদো। এর প্রতিউত্তরে গুয়াইদো আক্রমনাত্মক ভাবে উত্তর প্রদান করেন এখানে কেবল একমাত্র যে অন্তর্ঘাতমূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে তা করেছে অবৈধ ক্ষমতা দখলকারীরা যারা ভেনেজুয়েলার নাগরিকদের অধিকার হরণ করেছে। মূলত ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রপতি নিকোলাস মাদুরোর ক্ষমতা গ্রহণের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি একথা উচ্চারণ করেন। বিরোধী নেতাদের দাবী মাদুরে অবৈধ এক নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করেছেন।

মাঝে মাঝে বিদ্যুৎ না থাকার মত বিষয়টি ভেনেজুয়েলায় নতুন কিছু নয়, দেশটির নাগরিকেরা এখন নিয়মিত বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় অন্ধকারে সময় কাটাতে বাধ্য হচ্ছে। তবে এত বিস্তীর্ণ এলাকায় আর দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যুত না থাকার এই ঘটনা দেশটির জন্য একেবারে আলাদা এক ঘটনা।

এখন দেশটির বাসিন্দাদের দীর্ঘ সময় অন্ধকারে বাস করতে হচ্ছে, তারা খাবার সংরক্ষণ করতে পারছে না, আর এ কারণে বৈদ্যুতিক ভাবে চালিত চিকিৎসা প্রযুক্তির ব্যবহার করা সম্ভব হচ্ছে না এবং বিদ্যুৎ চালিত গাড়ি বন্ধ হয়ে যাওয়ার বিষয়টি ছাড়াও বিদ্যুৎ না থাকার ফলে দেশটির যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রায় পুরোপুরি বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

আদিম সময়ে ফিরে যাওয়া। বাড়ির পাশের প্রতিবেশীরা টানা ছয় ঘণ্টা ধরে বিদ্যুৎ না থাকায় তারা আগুন জ্বালিয়েছে।

প্রযুক্তিগত বিষয় যাচাই করে দেখার দল নেটব্লক বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশে ইন্টারনেট সংযোগ এবং ইন্টারনেট না থাকার বিষয়টি পরিমাপ করে থাকে, সেটি ভেনেজুয়েলায় বিদ্যুৎ না থাকার কারণে ইন্টারনেট কার্যক্রমের এক পরীক্ষামূলক ফলাফল প্রকাশ করেছে। এতে দেখা যাচ্ছে বিদ্যুৎ না থাকার কারণে ইন্টারনেট কার্যক্রম খুব দ্রুত বন্ধ হয়ে এসেছে, এবং বিদ্যুৎ না থাকার ফলে যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে সে বিষয়ে পরিষ্কার কিছু তথ্য প্রদান করেছে।

ভেনেজুয়েলার ইন্টারনেট কার্যক্রমের বাস্তবতা, মার্চ ২০১৯। ছবি নেটব্লকের মাধ্যমে পাওয়া।

ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রপতি মাদুরো ও তাঁর প্রতি সমর্থন প্রদান করা সম্মিলিত সামরিক বাহিনীর সাথে জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত বিরোধী দলের লাগাতার সংঘর্ষ ও গণ প্রতিবাদ জারি রয়েছে বিশেষ করে যখন বিরোধী নেতা গুয়াইদো প্রকাশ্যে মাদুরোর বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে সাংবিধানিক প্রেক্ষাপটে নিজেকে দেশটির অন্তর্বর্তীকালীন রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করেন।

ভেনেজুয়েলার সংকট নিয়ে গ্লোবাল ভয়েসেস এর বিশেষ সংবাদ পাঠ করুন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .