বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

চীনের মহা (অগ্নি)প্রাচীরে তেজী তথ্য চোরাচালান শিল্প

@ইউকেটাইমস-এর ওয়েইবো’র পর্দাছবি।

চীনের তথাকথিত মহা অগ্নিপ্রাচীরটি (কম্পিউটার ব্যবস্থায় বা নেটওয়ার্কে ফায়ারওয়াল বা অগ্নিপ্রাচীর হলো বাইরের অনুরূপ ব্যবস্থার সঙ্গে তথ্য ভাগাভাগি ও যোগাযোগের নিয়ন্ত্রণ) চীনা নেটিজেনদেরকে বিদেশী ওয়েবসাইটগুলোতে প্রবেশে যে বাধা দেয় সেটা সবাই জানে। তবে এই অগ্নিপ্রাচীরটির প্রধান পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলোর একটি – বিদেশী মাধ্যম থেকে সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোর সংবাদ “পাচার” করে চীনা মূল ভূখণ্ডে নিয়ে আসা – সম্পর্কে বিদেশীরা কমই জানে।

হংকংয়ের অনুসন্ধানী সংবাদ মঞ্চ ইনিটিউম (লাতিন ভাষায় – “শুরুতে”) বিদেশী মূল ভূখণ্ড চীনের ঘরোয়া নেটওয়ার্কে সংবাদ সাইটে বিষয়বস্তু অনুবাদ বা পুনঃপ্যাকেজ করার জন্যে সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট চালানো গণযোগাযোগ মাধ্যম কর্মী অথবা তথাকথিত “তথ্য পাচারকারীদের” সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেছে

এসব তথ্য পাচারকারীরা বিদেশী ওয়েবের বিষয়বস্তুতে প্রবেশ করার জন্যে ছদ্মবেশী সরঞ্জামের উপর নির্ভর করে।

ইনিটিউম ওয়েইবো এবং উইচ্যাটে আনুষ্ঠানিক পাবলিক অ্যাকাউন্ট পরিচালনাকারী একটি গণযোগাযোগ মাধ্যম প্রতিষ্ঠানে কর্মরত একজন মহিলার সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেছে। মিস ইয়ু ইনিটিউমের কাছে তার দৈনন্দিন কাজ বর্ণনা করেছেন: তিনি চীনা মূল ভূখণ্ডের পাঠকদের কাছে আকর্ষণীয় হতে পারে এমন সংবাদ খুঁজে বের করার জন্যে ছদ্মবেশী সরঞ্জাম ব্যবহার করে বাজফিড, রেডিট ও টাম্বলারে ঢুকেন। অ্যাক্সেস করতে প্রতারণা সরঞ্জামগুলি ব্যবহার, এবং খবর যে। তিনি গল্পগুলো নকল করে তাদের আবার চীনা লিখে স্থানীয় দর্শকদের জন্যে আকর্ষণীয় শিরোনাম যোগ করে প্রতিষ্ঠানটির দাপ্তরিক অ্যাকাউন্টে গল্পগুলো প্রকাশ করেন।

“তথ্য পাচার”কে একটি শক্তিশালী খাতে পরিণত করার জন্যে চীনের সর্বব্যাপী সেন্সর ব্যবস্থাকে ধন্যবাদ। ইয়ু’র মতে:

新聞管制壓住了傳統媒體,防火牆擋住了外媒,我就有工作了。

সেন্সর পদ্ধতি প্রচলিত সংবাদ মাধ্যমের (সংবাদ সংগ্রহ করাকে) অবদমন করে। মহা অগ্নিপ্রাচীরটি বিদেশী গণযোগাযোগ মাধ্যমকে অবরুদ্ধ করেছে। এভাবেই আমার কাজ পূরণ হয়।

ইয়ু ব্যাখ্যা করেছেন প্রতিটি গল্পের জন্যে কয়েক ঘন্টা করে সময় দিয়ে সাধারণত: তিনি প্রতিদিন সংবাদমাধ্যমের জন্যে তিনটি গল্প লিখে থাকেন। । কয়েক মিনিটের মধ্যে সদ্য প্রকাশিত পোস্টটি শত শত “পছন্দ” এবং মন্তব্য আকর্ষণ করতে পারে। গল্পগুলোর অধিকাংশই চীনের সঙ্গে প্রাসঙ্গিকতাহীন  মজার টুকরো হওয়ায় এগুলো সেন্সরের সম্ভাবনা কম থাকে।

যেখানে প্রযুক্তিগত সেন্সর অবকাঠামো শক্তিশালী সেখানে এধরনের তথ্য পাচার চর্চা দিন দিন সাধারণ হয়ে উঠছে। ইরানের তুশেহ নামের একটি অলাভজনক প্রকল্প (ফার্সি ভাষায় – “বান্ডিল”) হাজার হাজার প্রযুক্তিপ্রেমী ক্রেতাদের একটি টিভি উপগ্রহ সংযোগ প্রণালীর মাধ্যমে সেন্সর করা সংবাদ এবং মিডিয়ার প্যাকেজ করা ফাইল ডাউনলোড করার সুযোগ দেয়। কিউবাতে সেন্সরকৃত বা (সংযোগের ধীর গতির কারণে) পাওয়া কঠিন তথ্যগুলো নিয়মিতভাবে থাম্ব ড্রাইভে প্রচার করা হয়। ইয়ু তার কাজকে এমনকি কিউবার অনানুষ্ঠানিক বাজারে প্রতি সপ্তাহে বিক্রি করা কিউবার গণযোগাযোগ মাধ্যমের সংগ্রহ প্যাকেতে সেমানাল  বা “সাপ্তাহিক প্যাকেজ”  এর সঙ্গে তুলনা করেছেন:

我所做的事情和他們一模一樣——騎在牆上把外面的果子摘進牆裏。唯一的區別可能就是我還得把果子按照國人口味打成營養液;中國人現在太忙了。

আমি ঠিক [সাপ্তাহিক প্যাকেজের মতো] একই কাজ করছি – আমি দেয়ালে চড়ে দেয়ালের বাইরের ফল তুলে নিচ্ছি । একমাত্র পার্থক্য হয়তো আমাকে আমার সহকর্মীর স্বাদ অনুযায়ী ফলের রসটি বানাতে হচ্ছে। আজকাল মানুষজন খুবই ব্যস্ত।

পুণরায় প্যাকেট করা সংবাদ প্রতিষ্ঠানগুলো খুবই লাভজনক।

বিদেশী বিষয়বস্তু “পাচার করা” সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাকাউন্টগুলির একটি “বৃটিশ নিউজ সিস্টার” বা @ইউকেটাইমস @英國報姐) নামে পরিচিত। ২০১৩ সালে শুরু হওয়া সংবাদ প্রতিষ্ঠানটি প্রধানত: বিদেশী বিনোদন ও উত্তেজনাপূর্ণ কাহিনী প্রকাশ করে থাকে। এমনকি গ্লোবাল টাইমসের মতো সরকারি গণযোগাযোগ মাধ্যম প্রতিষ্ঠান এবং জনগণের দৈনিকের মতো সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাকাউন্টগুলি তাদের পোস্টগুলি পুনঃপ্রকাশ করেছিল। ২০১৭ সালের গোড়ার দিকে @ইউকেটাইমসের ওয়েইবোতে এক কোটি ৩৩ লক্ষ ৫০ হাজার এবং উইচ্যাটে পাঁচ লক্ষ ৮০ হাজারের বেশি গ্রাহক ছিল। এর গড় পোস্টগুলি এক কোটির বেশি দর্শক পেতো।

@ইউকেটাইমস পরিচালনাকারী ব্যক্তি গ্রেট ব্রিটেন এবং হংকং উভয় জায়গায় পড়াশুনা করে বর্তমানে একটি পিএইচডি ডিগ্রি নিচ্ছেন। তিনি বিদেশে অধ্যয়নের তথ্য ও অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করার জন্যে অ্যাকাউন্টটি শুরু করলেও তিনি এটা এমন একটি প্রভাবশালী সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমে বিবর্তিত হবে। @ইউকেটাইমস পরিচালনা করার জন্যে সম্প্রতি তিনি মূল ভূখণ্ডের একটি চীনা বিশ্ববিদ্যালয়ে তার শিক্ষকতার অবস্থান থেকে পদত্যাগ করছেন।

বিদেশী সংবাদের বিষয়বস্তুর আরেকটি জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান হলো “দৈনিক উত্তর আমেরিকার চীনা শিক্ষার্থী” (@北美留學生日報)। @ইউকেটাইমসের মতোই দৈনিক উত্তর আমেরিকার চীনা শিক্ষার্থীর উইচ্যাট অ্যাকাউন্টটি মূলধারার রাজনৈতিক সংবাদ প্রকাশ করে এবং তার পাঠকদের অধিকাংশই কানাডা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অধ্যয়নরত মূল ভূখণ্ডের চীনা শিক্ষার্থী। প্রতিদিন গড়ে ৬০ হাজার দর্শক এর শিরোনামের গল্পটি দেখে এবং এটি প্রবাসী চীনা শিক্ষার্থীদের একটি প্রধান তথ্যের উৎসে পরিণত হয়েছে।

দৈনিক উত্তর আমেরিকার চীনা শিক্ষার্থীর প্রধান সম্পাদক গুয়ু লিন ২০১২ সালে মিয়ামি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করার পর ক্যালিফোর্নিয়ার একটি অ্যাকাউন্টিং ফার্মে কাজ করেন। উইচ্যাটের প্রকাশ্য অ্যাকাউন্টটি চালিয়ে তার ক্যারিয়ার গড়ার জন্যে তিনি ২০১৪ সালে তার কাজটি ছেড়ে দিয়েছেন।

এক বছরের মধ্যে দৈনিক উত্তর আমেরিকার চীনা শিক্ষার্থী প্রবাসী চীনা শিক্ষার্থী পরিষেবা কোম্পানীর কাছ থেকে এক কোটি হংকং ডলার (আনুমানিক ১০ কোটি টাকা) বিনিয়োগ লাভ করেছে।

পাচারকারীরা ভাল সাংবাদিকতার কোন নিশ্চয়তা প্রদান করেন না

বৈদেশিক সংবাদ নির্বাচন করে পুণরায় প্যাকেট করা তাদের চীনা পাঠকদের কাছে আমদানী সংবাদ প্রতিষ্ঠানগুলোতে কর্মরত সম্পাদকদের অধিকাংশেরই সাংবাদিকতার প্রশিক্ষণ নেই। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তথ্য পাচারকারীরা জনগণকে তীব্রভাবে আকর্ষণ করা সাংবাদিকতার চেয়ে বেশি বেশি ক্লিক পাওয়া জিনিসগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে।

দৈনিক উত্তর আমেরিকার চীনা শিক্ষার্থীর একজন সাবেক সম্পাদক ইনিটিউমকে বলেছেন:

基本上這個工作誰都可以做,會英文就行,也確實什麼樣的人都在做。…因為翻譯錯誤被要求重翻的可能性很小;編輯擔任的角色不是檢查事實,而是提高文章的『爆點』和可讀性。如果原文是某校學生受到『性侵』,編輯就會把題目改成『強姦』。

যে কেউ এই কাজটি করতে পারেন। আপনার শুধু ইংরেজি জানতে হবে। এবং ঠিক এভাবেই মিডিয়াগুলো চলে… খুব খুব কম সময়ই কোন ব্যক্তিকে একটি নিবন্ধ পুনরায় অনুবাদ করার কথা বলা হয়ে থাকে; সম্পাদকদের ভূমিকা প্রকৃত ঘটনা যাচাই নয় বরং আরো আকর্ষণীয় এবং পাঠকবান্ধব করা। মূল লেখাটি – একজন স্কুল শিক্ষার্থীর “যৌন হয়রানি হয়েছিল” – হলে সম্পাদক একে পরিবর্তন করে “ধর্ষিত হয়েছিল” করবে।

“দৈনিক উত্তর আমেরিকার চীনা শিক্ষার্থী” এধরনের একটি ভুল করেছিল। ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট তারিখে প্রকাশ্য অ্যাকাউন্টটি শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট জিমারের “বাক স্বাধীনতা একটি সত্যিকারের শিক্ষার ভিত্তি” শিরোনামের একটি নিবন্ধকে “রাজনৈতিক শুদ্ধতা বেড়ে যাওয়ায় শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট বাক স্বাধীনতার উপর বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছেন” অনুবাদ করেছিল।

অনুবাদটি যে মূল নিবন্ধটিকে একটি উত্তেজনাপূর্ণ জিনিসে রূপান্তরিত করেছে সেটা নেটিজেনরা সঙ্গে সঙ্গেই উল্লেখ করেছিল। কেউ কেউ প্রকাশ উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল যে প্রবাসী চীনা শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভাগাভাগি করা রাজনৈতিক শুদ্ধতাবিরোধী অনুভূতিতে আবেদন তৈরি করার একটি প্রচেষ্টা হিসেবে শিরোনামটি রদবদল করা হয়েছিল।

ক্লিক আকর্ষণ করার প্রচেষ্টায় কোন কোন পাচারকারী এমনকি সুস্পষ্ট মিথ্যা সংবাদও অনুবাদ করে থাকে। চীনা-মার্কিন সাংবাদিক যেটা পর্যবেক্ষণ করেছেন সেটা মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচন চলাকালে প্রকাশিত চীনা সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমের “প্রতিবেদনে” আলোর মুখ দেখেছে:

在美國大選期間,英文世界內的許多低質量內容、甚至包括假新聞網站上的內容,都被營銷號不加篩選地包裝成新聞大量進口。像『Spirit Cooking』(『邪教門』)、『希拉里暗殺官員』等消息,在美國只被當做花邊新聞傳播,大媒體大多並沒有報導;而中文世界裏許多營銷號都添油加醋把它當做當天新聞頭條,給很多人留下了『希拉里那邊稀奇古怪的負面新聞很多,不可能全是假的吧』的印象。

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন চলাকালীন সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমের প্রকাশ্য অ্যাকাউন্টগুলো ব্যাপকভাবে স্থানীয় মানসম্পন্ন বা এমনকি নকল সংবাদ বিষযবস্তু আমদানী করেছিল। সত্য যাচাইকারীরা “প্রেতাত্মাদের রন্ধন” এবং “হিলারী ক্লিনটনের সরকারি কর্মকর্তা হত্যা“র মতো নকল সংবাদ অস্বীকার করলেও বেশিরভাগ মূলধারার গণযোগাযোগ মাধ্যম এই কালিমা লেপনের উপর প্রতিবেদন পর্যন্ত করেনি। তা সত্ত্বেও “হিলারি ক্লিনটন সম্পর্কে এত সব নেতিবাচক প্রতিবেদন এবং কাহিনীর সবটাই নকল হতে পারে না” – মানুষের মধ্যে এই ধারণা প্রতিপন্ন করার জন্যে চীনা বিশ্বের অনেক প্রকাশ্য অ্যাকাউন্ট এসব নকল সংবাদকে শিরোনামে স্থান দিয়েছিল।

নকল সংবাদ এবং বিকৃত তথ্য প্রচার সত্ত্বেও তথ্য পাচার খাতটির বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। মহা অগ্নিপ্রাচীর, দেয়ালের বাইরের তথ্যের জন্যে তৃষ্ণা এবং তথ্যের প্রবাহকে জনহিতকর কিছু একটার চেয়ে মুনাফা বানানোর একটি প্রচেষ্টা হিসেবে দেখতে পছন্দ করা পুঁজি বিনিয়োগকারীদেরকে ধন্যবাদ।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .