বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নতুন মার্কিন ভ্রমণবিধিতে বিচ্ছিন্ন এই সিরীয় শরণার্থী পরিবার

ছবিতে ক্যালিফোর্নিয়ার টারলকের বাড়িতে গাসেম আল-হামাদ ও তার সন্তানদের দেখা যাচ্ছে। পরিবারটি সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ থেকে পালিয়ে এসেছে। কিন্তু এখন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মার্কিন সিরীয় শরণার্থী কর্মসূচী বাতিলের কারণে হামাদের ভাইয়ের ক্যালিফোর্নিয়াতে পরিকল্পিত পুনর্বাসন আটকে গিয়েছে। কৃতজ্ঞতা: মনিকা ক্যাম্পবেল

মনিকা ক্যাম্পবেল-এর এই গল্পটি মূলত: ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ তারিখে PRI.org (পিআরআই.অর্গ)-এ প্রকাশিত। পিআরআই এবং গ্লোবাল ভয়েসেসের মধ্যেকার অংশীদারিত্বের অংশ হিসেবে এটা এখানে পুনরায় প্রকাশিত হল।

আর কোন সিরীয় শরণার্থী নয়। অভিবাসন বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশ – অন্তত: অস্থায়ীভাবে হলেও – এই দলটিকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ থেকে আটকে দেয়া নিশ্চিত করেছে। খবরটি আসার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই জীবনগুলো পাল্টে গেল – সান ফ্রান্সিসকো থেকে দু’ঘন্টা পূর্ব দিকে কালিফোর্নিয়ার টারলকে তারা পুনর্বাসিত হওয়ার পর থেকে যে সিরীয় শরণার্থী পরিবারের সঙ্গে আমি থেকেছি – সেটা সহ।

আমি প্রায় এক বছর আগে গাসেম আল-হামাদ, তার স্ত্রী ওয়াজেদ আল খলিফা এবং তাদের চারটি ছোট্ট বাচ্চাদের দেখেছি। সিরিয়ার হোমসে তাদের বাড়ি থেকে পালানোর তিন বছরের যাত্রা শেষ করে তারা প্রায় ১০ মাস ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছে।

প্যারিসে মারাত্মক সন্ত্রাসী হামলার এবং সম্ভাব্য ইসলাম আতংকের উত্থানের বেশি দিন হয়নি এখনো। হামাদ ও তার পরিবার টারলকে আক্রমণটির হিম প্রভাব ও মুসলমানবিরোধী ধর্মান্ধতা অনুভব করেছে। হিজাব পরিধান করা খলিফা বলেছেন তিনি লক্ষ্য করেছেন যে কিছু চাহনি জ্বলন্ত দৃষ্টিতে পরিবর্তিত হয়েছে। “প্যারিসের পর থেকে … বিষয় গুলোর পরিবর্তন ঘটেছে,” তিনি বলেছেন।

কিন্তু পরিবারটিও সামনে এগিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে তারা তাদের প্রথম থ্যাংকসগিভিং (কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন) উদযাপন করেছে। হামাদ তার গাড়ি চালানোর পরীক্ষায় পাশ করে পরিবারের নতুন মিনিভ্যানে করে বাচ্চাদের বেড়াতে নিতে সমর্থ হয়েছেন। স্থানীয় মসজিদটিতে তারা তাদের সম্প্রদায়কে খুঁজে পেয়েছেন। ছোট্ট শহরটিতে  তাদেরকে সিরিয়া থেকে পুনর্বাসিত নগরীর প্রথম পরিবার হিসেবে স্বাগত জানানো হয়েছে।

আমি ফোন করে শুনতে চেয়েছি ট্রাম্পের সিরীয় শরণার্থীদের সাময়িকভাবে অবরোধ করার সিদ্ধান্তের পর থেকে পরিবারটির বিষয়াদি কিভাবে চলছে।

প্রথমদিকে সবকিছু ভালই মনে হয়েছে। ফোনের লাইনে দোভাষীর মাধ্যমে হামাদ আমাকে বলেছিলেন তার বাচ্চারা স্কুলে ভালই করছে এবং তার স্ত্রী গাড়ি চালানোর লাইসেন্স পেয়েছেন। হামাদও একজন হালাল কসাই হিসেবে অটলভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। কঠিন কাজ হলেও তিনি সিরিয়ায় অর্জন করা তার দক্ষতা  ব্যবহার করছেন।

কিন্তু তারপর কথাবার্তা এখন কী ঘটছে সেদিকে মোড় নেয়।  “ফেব্রুয়ারির ১৮ তারিখে আমার ভাই  এখানে পৌঁছানোর কথা ছিল,” হামাদ বললেন।  “কিন্তু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের কারণে তারা সমস্ত রিজার্ভেশন স্থগিত করে দিলো। আমি আমার ভাই সম্পর্কে খুবই চিন্তিত।”

হামাদের ভাইও সিরিয়া থেকে পালিয়েছেন এবং ক্যালিফোর্নিয়ার জন্যে একটি বিমানের টিকেট রয়েছে। সবকিছু ঠিক করা ছিল; কিন্তু ট্রাম্পের আদেশের ফলে হামাদের ভাই জর্দানে আটকে গিয়েছেন – সিরিয়া থেকে সেখানে তিনি এসেছেন।

তবে ভাইয়ের ২৪ বছর বয়সী ছেলে এবং ছেলের স্ত্রী একেবারে শেষ মুহূর্তে ক্যালিফোর্নিয়াতে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছিল। “সে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত জারির দু’সপ্তাহ আগে উপস্থিত হতে পেরেছিল,” হামাদ তার ভাস্তে সম্পর্কে বলেন।

তাই এখন পরিবারটি বিভক্ত। হামাদ জানেন তার ভাই সিরিয়ায় ফিরে যেতে পারবেন না।

হামাদ ও তার পরিবার কোনমতে জীবিত অবস্থায় বেরুতে পেরেছিল। পালানোর অল্প সময় পরেই তাদের বাড়িতে বোমা হামলা হয়েছিল। প্রতিবেশীরা তাদেরকে ধ্বংসস্তুপটির ছবি ইমেল করেছিল। “দেখ! এইটা তোমাদের বাড়ি! ” তারা বলেছিল।

সেই সঙ্গে, এখন যে তার ভাইকে আটকে দেয়া হয়েছে তাতে হামাদ  বিস্মিত নন। ট্রাম্প নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর থেকেই তিনি পরিবর্তন অনুভব করেছেন। টারলক ক্যালিফোর্নিয়াতে হলেও এটা গ্রাম এলাকা, বেশ রক্ষণশীল। ট্রাম্প এখানে ভাল ফলাফল করেছিল

“আর হ্যাঁ, কিছু পরিবর্তন তো ঘটেছে,” হামাদ বলেন। “আগে আমরা মনে করতাম  যে আমরা কমিউনিটির অংশ। পরবর্তীতে অনুভূতি বদলে গেছে। আমরা মনে করি যে, আমরা এখানে আগন্তুক। “

গাসেম আল-হামাদ এবং তার ছেলে মোহাম্মদ ক্যালিফোর্নিয়ার টারলকে নিজেদের মতোই আছেন। তিন বছরের একটি যাত্রার পর আল হামাদ পরিবার সিরিয়ার যুদ্ধ থেকে পালিয়ে শরণার্থী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছে। কৃতজ্ঞতা: মনিকা ক্যাম্পবেল

হামাদ আশা করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আসা কতটা কঠিন  মানুষ আরো বেশি করে বুঝুক। যে পরীক্ষা-অনুসন্ধানের মধ্য দিয়ে তিনি গিয়েছেন, তিনি বলেন যে তার ভাই গিয়েছেন – তা খুবই তীব্র। দীর্ঘ এবং বারংবার সাক্ষাৎকার। বায়োমেট্রিক তথ্যের জন্যে তার অক্ষিপট স্ক্যান করা হয়েছে। সিরিয়া থেকে পালিয়ে এসে শেষ পর্যন্ত ক্যালিফোর্নিয়ায় মাটি স্পর্শ করতে হামাদ ও তার পরিবারের প্রায় তিন বছর লেগেছিল।

তা সত্ত্বেও হামাদ জানেন যে ট্রাম্পসহ কিছু লোক বলে যে শরণার্থীরা বিপজ্জনক হতে পারে, অথবা যুক্তরাষ্ট্রের অন্য লোকেরা যেখানে সংগ্রাম করে সেখানে তাদের সহায়তা দেয়া হয়। আমি সেসব সম্পর্কে তাকে আরো জিজ্ঞাসা করেছিলাম।

“আমেরিকার মানুষ দরকার,” হামাদ বলেছেন। “কাজ করার জন্যে মানুষ।”

আর তিনি বলেছেন যে তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন। “উদাহরণস্বরূপ, আমি এখানে এসেছি, আমি কাজ করেছি, আমি ট্যাক্স দিয়েছি, আমি একটা গাড়ি কিনেছি। আমি এই দেশেকে সাহায্য করেছি, ” তিনি বলেছেন।

আমি তাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম কিভাবে তিনি তার বাচ্চাদের এই সব ব্যাখ্যা করেন, বিশেষ করে সবচেয়ে বড় – ১০ বছরের মেয়ে – আরওয়াকে। তিনি বলেছেন তিনি নিশ্চিত নন যে তিনি কি বলবেন। তবে তিনি জানেন যে সংবাদটি  সম্পর্কে আলাপ স্কুলেও পৌঁছেছে।

যার জন্যে আরওয়াও তার পিতা-মাতাকে যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে  কিছু শেখাচ্ছে। “দুই সপ্তাহ আগে মার্টিন লুথার কিং দিবস ছিল,” হামাদ বলেছেন। “আমার মেয়ে আমার কাছে এসে আজ আমাকে বলেছিল যে আজকে আমাদের একটি বড় উদযাপন আছে। আমি এটা সম্পর্কে জানতাম না। “

মার্কিন ইতিহাস। নাগরিক অধিকার। হামাদ বলেন তিনি তার কন্যার মার্কিন গণতন্ত্র সম্পর্কে জানা উপভোগ করেন, কিন্তু তিনি এখন দেশটি সম্পর্কে উদ্বিগ্ন। “আমার বড়, বিশাল উদ্বেগ,” তিনি বলেন। “বর্ণবাদ দেশটা ধ্বংস করে দিতে যাচ্ছে। আমি আমেরিকা সম্পর্কে অনেক উদ্বিগ্ন। আমেরিকায় গৃহযুদ্ধ হলে দেশটা ধ্বংস হয়ে যাবে। দেখুন সিরিয়ায় কী ঘটেছে। সিরিয়া ধ্বংস হয়ে গিয়েছে। “

হামাদ যে ভয়ের কথা বলেছেন তা বর্ণবাদকে উস্কে দিচ্ছে আর তার মতো পরিবারগুলোকে দেশের বাইরে রাখছে – তিনি আশা করেন এটা দূর হয়ে যাবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .