বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

রাষ্ট্রপতির জেলে : যারা ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে রয়েছেন?

Source: ক্রেমলিন.আরইউ

উৎস:ক্রেমলিন.আরইউ

সেপ্টেম্বর মাসে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন ও প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ ইলমেন হ্রদ ভ্রমণে গিয়েছিলেন। হ্রদটি মস্কো থেকে ৫০০ কি:মি: উত্তর-পশ্চিমে নভগরদ ওবলাস্ট অঞ্চলে অবস্থিত। সেখানে ‘কাকতালীয়ভাবে’ একদল স্থানীয় জেলের সঙ্গে তাঁদের দেখা হয় এবং তাঁরা জেলেদের রান্না করা স্যুপ গ্রহণ করেন। সুপরিকল্পিত এই সফরটির রাষ্ট্রীয় প্রচারমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার করা হয়- যার উদ্দেশ্য ছিল পুতিন ও মেদভেদেভ-এর সঙ্গে রাশিয়ার আমজনতার ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের বিষয়টিকে উজ্জ্বল করে দেখানো।

আরইউ.নেট ব্যবহারকারীরা পুতিন এবং মেদভেদেভ-এর সাথে স্থানীয় জেলেদের সাথে তাদের প্রাত্যহিক কর্মস্থলে দেখা হবার বিষয়টিকে প্রহসন হিসাবে গ্রহণ করলেও প্রকৃত কৌতুক শুরু হয় ৭ জানুয়ারির পরে। এসময় একজন ব্লগার লক্ষ করেন যে একই জেলেরা ইলমেন হ্রদের তীরে ভেলেকি নভগরদে রাষ্ট্রপতি আয়োজিত বড়দিনের অনুষ্ঠানের ছবিতে উপস্থিত রয়েছেন

যখন তারা সাজগোজ পাল্টাতে ভুলে যায়

রাষ্ট্রপতি সফরে না এলে ইলমেন হ্রদের জেলেদের প্রকৃতপক্ষে যেমনটা দেখায় ।

এ এক ধরনের প্রদর্শনী- পুতিনের জেলে

ব্লগার রুস্তেম আদাগামভসহ অনেকেই মনে করে- এটা কোনো বড় ব্যাপার না।

আমাকে বোঝাও, কী ধরেছো। সেপ্টেম্বরে ইলমেন হ্রদে যে জেলেদের সাথে পুতিনের দেখা হয়েছিল তারা যদি পুতিনের সঙ্গে আবার দেখা করতে আসে তাতে অসুবিধা কোথায়?

অনেক আরইউ.নেট ব্যবহারকারী সুনির্দিষ্ট করে বলেছে পুতিনের পিছনে দাঁড়িয়ে থাকা মানুষগুলো ফেডারেল প্রতিরক্ষামূলক পরিষেবার (এফএসও) কর্মকর্তা। এদের সরকারি দায়িত্ব হলো রাষ্ট্রপতি ও অন্যান্য কর্মকর্তাদের নিরাপত্তা প্রদান করা।

জাতির উদ্ভট মৎস্যজীবী

জাতির উদ্ভট মৎস্যজীবী ২.

একজন এফএসও কর্মকর্তা আর একজন এফএসও কর্মকর্তাকে দূর থেকে চিনতে পারে। আপনি একটি পুকুরেও মাছ ধরতে পারবেন না, একজন এফএসও কর্মকর্তা ছাড়া।

ব্লগার লিওনিদ ভলকভ উপসংহারে বলেছেন- এই মৎস্যজীবীরা আসলে নভগরদ অঞ্চলের কর্মী। ৭ জানুয়ারি বিকেলে নিজ ফেসবুক পেজে ভলকভ লিখেছেন উভয় ছবিতে যে মহিলাকে দেখা যাচ্ছে তিনি হলেন ল্যারিসা স্যারগুকিনা। তিনি নভগরদ অঞ্চলের একজন উদ্যোক্তা এবং কর্মী। বড়দিন উদযাপনের প্রতিলিখন দেখায় যে, অনুষ্ঠানের অনেকটা সময় পুতিন তার সাথে কথা বলে কাটিয়েছেন।

এই পোস্টটি হালনাগাদ করা হয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .