বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মাইকেল ফেলপসকে পরাজিত করে স্বর্ণ পদক জয় করা সিঙ্গাপুরের সাতারু ছাড়াও দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার অন্যান্য স্বর্ণপদক জয়ীদের জানুন

Singapore's first ever Olympic gold medal. Photo from the official Facebook page of Singapore swimming champion Joseph Isaac Schooling.

অলিম্পিকে সিঙ্গাপুরের প্রথম স্বর্ণপদক, অলিম্পিক স্বর্ণপদক জয়ী সিঙ্গাপুরের সাতারু জোসেফ স্কুলিং-এর নিজস্ব ফেসবুক পাতা থেকে নেওয়া।

অলিম্পিক প্রতিযোগিতার এখনো পরিসমাপ্তি ঘটেনি, কিন্তু ইতোমধ্যে এ বছরের অলিম্পিক প্রতিযোগিতায় দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশ নিজেদের ঐতিহাসিক জয় উদযাপন করেছে।

রিও ২০১৬ অলম্পিক প্রতিযোগিতায় পূর্বের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন যুক্তরাষ্ট্রের মাইকেল ফেলপস এবং দক্ষিণ আফ্রিকার সাদ লে ক্লসকে ১০০ মিটার বাটারফ্লাই সাতার প্রতিযোগিতায় পরাজিত করে সিঙ্গাপুরের জোসেফ স্কুলিং তৎক্ষণাৎ আন্তর্জাতিক খ্যাতি অর্জন করে।

স্কুলিং ছাড়াও এই প্রবন্ধটি প্রকাশ হওয়ার সময় পর্যন্ত দক্ষিণ এশিয়ার তিনজন রিও অলিম্পিকে স্বর্ণপদক জয় করেছে। তারা হচ্ছেন থাইল্যান্ডের মহিলা ভার উত্তোলনকারী সুকন্যা শ্রীসুরাত এবং সপিতা তানাসান এবং ভিয়েতনামের শুটার হোয়াং শুয়ান ভিন।

স্কুলিং-এর এই বিজয় ছিল আলাদা, কারণ এটা হচ্ছে অলিম্পিকে সিঙ্গাপুরের প্রথম কোন সোনার পদক অর্জন।

এটা এখন আনুষ্ঠানিক ভাবে স্বীকৃতঃ সিঙ্গাপুরের প্রথম অলিম্পিক স্বর্ণপদক বিজেতা হচ্ছেন জোসেফ আইজাক স্কুলিং।

ক্রীড়াপ্রেমীরা সাথে এই বিষয়টি উল্লেখ করেছে যে সাতারু স্কুলিং তার আদর্শ মাইকেল ফেলপসকে পরাজিত করেছে, যার সাথে তার আট বছর আগে দেখা হয়েছিলো।

২০০৮ সালে সিঙ্গাপুরের জোসেফ স্কুলিং-এর সঙ্গে ফেলপসের দেখা হয়, স্কুলিং গতকাল ফেলপসকে পরাজিত করে স্বর্ণপদক জয় করে।

এদিকে রিও অলিম্পিকে দক্ষিণ এশিয়ার হয়ে প্রথম স্বর্ণ পদক জয় করেন থাইল্যান্ডের সোপিতা তানাসান যিনি ৪৮ কেজি ওজনের মহিলা ভারোত্তোলনে প্রথম হন।

তার জয়ের সংবাদে বিশেষ করে তার নিজ প্রদেশ চুম্পাহন-এর এলাকাবাসীরা দারুন উল্লসিত, এমনকি যেখানে সরকারি কর্মকর্তারা তার এই পদক জয়ের সম্মানে তার গ্রামের বাড়ীর রাস্তা পাকা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছে

থাইল্যান্ডের একজন স্বর্ণ জয় করেছে। সোপিতা তানাসান তার রাজ্যের জন্য এটা অর্জন করেছে। প্রথম মহিলা ভার উত্তোলনকারীর প্রতিযোগিতায় স্বর্ণ জয়। অভিনন্দন।

থাইল্যান্ডের দ্বিতীয় স্বর্ণ পদক অর্জন করে সুকন্যা শ্রীসুরাত যে ৫৮ কিলোগ্রাম ওজন শ্রেনীতে ১১০ কিলোগ্রাম উত্তোলন করে এক নতুন অলিম্পিক রেকর্ড স্থাপন করেন।

সুকন্যা শ্রী সুরাত স্নাচ (১১০ কেজি) বিভাগে এক নতুন অলিম্পিক রেকর্ড স্থাপন করে মেয়েদের ৫৮ কেজি ওজন শ্রেণীতে স্বর্ণপদক জয় লাভ করেছে।

১০ মিটার এয়ার পিস্তল বিভাগে হোয়াং জুয়ান ভিন-এর বিজয় ছিল এক স্মরণীয় ঘটনা কারণ এটা ভিয়েতনামের ছিল প্রথম স্বর্ণ জয়।

ক্রীড়া বিষয়ক ধারাভাষ্যকারেরা উল্লেখ করছে যে ভিন-এর বিজয় এ কারণে অত্যন্ত স্মরণীয় যে, তার একটি চোখে সমস্যা রয়েছে এবং অর্থভাবে তিনি কাগজের টুকরা দিয়ে অনুশীলন করতেন এবং তাঁর গুলির স্বল্পতা ছিল।

হোয়াং জিয়ান ভিন পুরুষদের ১০ মিটার এয়ার পিস্তলে প্রথম হওয়ার মধ্যে দিয়ে ভিয়েতনাম অলিম্পিকে প্রথম স্বর্ণপদক জয় লাভ করল।

আর এই বিষয়টি প্রত্যাশিত ছিল যে এটি ভিয়েতনামের একটি আলোচিত বিষয়ে পরিণত হবে:

আজ সকালে ভিয়েতনাম তার প্রথম স্বর্ণপদক জয় লাভ করল, আর এতে ভিয়েতনামের অনুসন্ধান জগতে হোয়াং জিয়ান ভিন সবচেয়ে বড় তারকায় পরিণত হয়েছে।

অবশেষে অলিম্পিকে একটি স্বর্ণপদক জয় করতে পেরে সিঙ্গাপুর এবং ভিয়েতনাম উল্লসিত। এ বছর অলিম্পিকে থাইল্যান্ড ইতোমধ্যে দুটি স্বর্ণ পদক জয় করেছে।

ফিলিপাইনস এখন পর্যন্ত অলিম্পিকে কোন স্বর্ণ পদক জয় করতে পারেনি, কিন্তু ২০ বছর পর দেশটি আবার কোন অলিম্পিক পদক জয় লাভ করতে সমর্থ হয়, যখন হিদিলিয়ান এফ. দিয়াজ মেয়েদের ৫৩ কেজি ওজন শ্রেনীতে রৌপ্য পদক জয় লাভ করে।

অলিম্পিক নিয়ে আমাদের বিশেষ প্রতিবেদন পাঠ করুন: রিও অলিম্পিকে উল্লাস, হতাশা এবং অন্যায়।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .