বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

আমরা এখনো জানি না, বাসেল কোথায়ঃ সিরিয়ার ওয়েব ডেভলপার দুই মাস ধরে নিখোঁজ

প্রচারণার এই ছবি ক্যালি টাইলর-এর

সিরীয় ফিলিস্তিনি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার বাসেল খারতাবিল, যিনি একই সাথে বাসেল সাফাদি নামে পরিচিত, ৪ অক্টোবর, ২০১৫ থেকে তার আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না, গুজব ছড়িয়ে পড়েছে যে সিরীয় সরকার গোপনে তাঁকে শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেছে।

ওপেন সোর্স সফটওয়্যার ডেভলপার এবং ব্লগার বাসেলকে মার্চ ২০১২ থেকে সিরীয় সরকার কারারুদ্ধ করে রেখেছে, ২০১৫ সালের অক্টোবরে আদরা কারাগার থেকে তাঁকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। তার স্ত্রী, নৌরা ঘাজি, সংবাদ প্রদান করেছে যে সামরিক আদালতের আদেশে সামরিক একদল পুলিশ তাঁকে সিলগালা করা এক আদেশপত্রের মাধ্যমে বাসেলকে আদরা কারাগার থেকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গেছে। নভেম্বর ১২, ২০১৫ তারিখে ঘাজি সংবাদ প্রদান করে যে সে এমন একদল লোকের সাথে দেখা হয়েছে যারা নিজেদের আসাদ সরকারের ভেতরের লোক হিসেবে চিহ্নিত করে এবং তারা বাসেলের স্ত্রীকে মৃত্যুদণ্ডের ঘটনার সম্বন্ধে জানায়।

ঘাজি, ফেসবুকে লিখেছে:

إجاني خبر صاعق انو باسل محكوم اعدام وهاد بيعني انو نقلو عالشرطة العسكرية كتير خطير … ما بعرف شي غير هيك وما بعرف اذا تنفذ شي بحقو … يارب نقدر نساعد باسل … يا رب ما يكون فات الاوان عالمحاولات …. كتير خايفين على حياة باسل

এই মাত্র আমি এক খারাপ এবং হৃদয় বিদারক সংবাদ পেলাম যে বাসেলকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। আমি মনে করি এর মানে হচ্ছে সামরিক কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া খুবই বিপজ্জনক। আমি সত্যিকার অর্থে বাকি আর কোন সংবাদ জানি না। পরম করুণাময় আমাদের সাহায্য করুন, আমি আশা করি খুব বেশী দেরি হয়ে যায়নি। তার জীবন নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন।

এদিকে যে সব গুজব ছড়িয়ে পড়েছে সে গুলোকে নিশ্চিত করা খুব কঠিন, বাসেলের বর্তমান অবস্থান সম্পর্কে বিস্তারিত এখন অজানা। এদিকে ৩৭,০০০-এরও বেশী সমর্থক এক উন্মুক্ত দরখাস্তে স্বাক্ষর করেছে যেটিতে সিরীয় সরকারের কাছে আহ্বান জানানো হয়েছে বাসেলের অবস্থান সম্বন্ধে তার পরিবারের কাছে পরিষ্কার করে এবং তাঁকে দয়া প্রদর্শন করে সমর্থকেরা এবার জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুনের শরণাপন্ন হয়েছে এবং তার কাছে সাহায্য চেয়েছে। মহাসচিব বিশ্বের বিভিন্ন সরকারকে চাপ প্রয়োগ করেছে যেন তারা চেতনার বন্দিদের ছেড়ে দেয়, যার মধ্যে তিনি সফল হয়েছেন। আমরা মহাসচিবের কাছে আহ্বান জানিয়েছি যেন আন্তর্জাতিক এক মানবাধিকার প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন প্রদান করে এবং বাসেলের দ্রুত এবং নিরাপদ মুক্তি প্রদানে আমাদের সাথে যোগ দেন।

বাসেলের ঘটনাকে সমর্থন করুন:

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .