বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

তোরাজা উৎসবে উঠে এলো ইন্দোনেশিয়ার ঐতিহ্যবাহী নাচ

Pagellu’ dance

একদল তরুণী পাজেলু নাচ নাচছেন। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

চলতি মাসের শুরুতে দক্ষিণ সুলাওয়েসি’র হাজার হাজার মানুষ বার্ষিক তোরাজা সাংস্কৃতিক উৎসবে যোগ দিয়েছিলেন। সেখানে তারা ইন্দোনেশিয়ার সব ঐতিহ্যবাহী নাচের মাধ্যমে উৎসবটি উদযাপন করেন।

তোরাজা ইন্দোনেশিয়ার একটি আদিবাসী সম্প্রদায়। এদের বাস পার্বত্যময় দক্ষিণ সুলাওয়েসিতে। এরা প্রতিবছর একটি সাংস্কৃতিক উৎসবের আয়োজন করে। এই উৎসবটিকে তারা আদর করে ডাকে “ভালবাসার তোরাজা” নামে। উৎসবে আদিবাসীদের নাচ-গান পরিবেশন করা হয়। এবছর উৎসবটি অনুষ্ঠিত হয় রানতেপাও শহরে। নভেম্বরের ৯ তারিখে।

উৎসব শুরু হয় ৫০০ শিক্ষার্থীর একটি সম্মিলিত পরিবেশনার মধ্যে দিয়ে। তারা মল্লযুদ্ধের নাচ সিসেম্বা এবং পাজেলু পরিবেশন করে। এরপরেই যুদ্ধের নাচ মাটেনটেন পরিবেশন করা হয়। আদিবাসীরা সাধারণত মহিষ বলি দেয়ার ঐতিহ্যবাহী উৎসবে মাটেনটেন নাচ নেচে থাকে। এরপরে মানগারু নাচ পরিবেশন করা হয়। আদিবাসী গোষ্ঠীগুলো তাদের নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এই নাচ নেচে থাকে। যোদ্ধাদের নাচ হলো মারানডিং। এই নাচের মাধ্যমে আমন্ত্রিত অতিথিদের স্বাগত জানানো হয়। এই নাচের একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো নাচিয়েরা যোদ্ধাদের পোশাক পরেন এবং বৃহৎ আকারের ঢাল-তলোয়ার বহন করেন। এই নাচও উৎসবে পরিবেশিত হয়।

তোরাজা উৎসবের সবচে’ পুরোনো নাচ হলো পাতিরা। এই নাচের মূল বিষয় হলো ঈশ্বরের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন। নাচের সময়ে বাঁশের তৈরি এক ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হয়। এই অস্ত্র দিয়ে শয়তানদের দূরে তাড়িয়ে দেয়া হয়।

এছাড়াও আরো অনেক নাচ ও গানের পর্ব ছিল। তবে ছয়টি আলবিনো মহিষ নিয়ে শোভাযাত্রা এই উৎসবের আরেকটি অন্যতম দিক ছিল। তোরাজায় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে পশু বলি হিসেবে মহিষকে উৎসর্গ করা হয়ে থাকে। পশু বলি দেয়া হয়ে যাওয়ার পর মহিষের শিং দিয়ে ঘরবাড়ি সাজানো হয়ে থাকে।

এবারের উৎসবে জিম্বাবুয়ে, চিলি, ক্রোয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, মঙ্গোলিয়া এবং বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ছাড়াও আরো ১০টি দেশের কূটনৈতিক প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। তাছাড়া উৎসবে যোগ দিতে তোরাজা অঞ্চলে এসেছিলেন ১১০,০০-এর মতো পর্যটক।

তোরাজা উৎসবের কিছু ছবি রইলো নিচে:

Ma'katia

ঐতিহ্যবাহী মাকাটিয়া নাচ। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে অতিথিদের স্বাগত জানাতে এই নাচ নাচা হয়। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

Manimbong

মানিমবং নাচ। ঈশ্বরের কৃপার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে এই নাচ নাচা হয়। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

Manganda’ dance

মানগান্ডা নাচ। এই নাচের সময় পুরুষরা সিলভার কয়েন, মহিষের শিং দিয়ে মাথা সাজিয়ে নেন। আর গায়ে জড়িয়ে নেন পবিত্র কালো কাপড়। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

Katekka

কাটেক্কা। তোরাজার ঐতিহ্যবাহী খেলা। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

Albino buffalo led by the shepherds

মেষপালক আলবিনো মহিষ নিয়ে যাচ্ছে। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

Lettoan

লেট্টোয়ান। নতুন বাড়ির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে লেট্টোয়ান মিছিলের অংশগ্রহণকারীরা কাঁধে করে পশুসম্পদ বহন করছেন। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

Tongkonan: traditional houses of Toraja tribe from Indonesia.

টংকোনান: ইন্দোনেশিয়ার আদিবাসী তোরাজা সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী ঘরবাড়ি। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

Fashion on the street created by designer Dessy Ramona and Asdar Habie

ডিজাইনার ডেসি রামোনা এবং আসদার হাবি’র পোশাকে ফ্যাশন শো। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

Alice Mageza

জিম্বাবুয়ের রাষ্ট্রদূত আলিস মাজেজা উৎসবে বক্তব্য রাখছেন। ছবি তুলেছেন অর্পন রাচমান।

সবগুলো ছবিই তুলেছেন অর্পন রাচমান।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .