বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

গাজায় ইসরায়েলি হামলার পর তুরস্কে জ্বলে উঠেছে ইহুদি বিদ্বেষী আগুন

Turkey's prime minister has denounced Israel repeatedly. Screenshot from video uploaded by YouTube user Tamerscadence

তুর্কিশ প্রধানমন্ত্রী বরাবর ইসরায়েলের কঠোর সমালোচক। ইউটিউব ব্যবহারকারী তামেরস্কাডেন্স এর আপলোড করা ভিডিও থেকে স্ক্রিনশটটি নেওয়া হয়েছে। 

দীর্ঘদিন তুরস্কের জনগণের মাঝে সকল পেশার ফিলিস্তিনিদের জন্য প্রচুর সমবেদনা রয়েছে। তবে গাজায় ইসরায়েলের চলমান হামলাকে এখন প্রকাশ্যে ইহুদি বিদ্বেষ ছড়িয়ে দেওয়ার একটি অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এ সপ্তাহে তুরস্কে ঘটে যাওয়া যেসব ইহুদি বিদ্বেষী আবেগ সুস্পষ্টভাবে দেখা গেছে, সেগুলোর সাথে জাস্টিস এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির কোন না কোন সম্পর্ক রয়েছে। তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী এবং ইসরাইলের কথিত সমালোচনাকারী রিসেপ এরদোগান এই রাজনৈতিক দলটির প্রধান।

১. আইএইচএইচ একটি দাতব্য সংস্থা। এটি ২০১০ সালে গাজার উপর ইসরায়েলি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার একটি প্রচেষ্টা স্বরূপ অবশ্যম্ভাবী গাজা ফ্রিডম ফ্লোটিলার আয়োজন করেছিল। সংস্থাটির প্রধান (হিউম্যান রিলিফ ফাউন্ডেশন) বুলেন্ট ইলিদিরিম সরকার পক্ষের টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেনঃ 

ইসরায়েলের নির্মম আচরণের পরিণাম হিসেবে তুরস্কে বসবাসকারী ইহুদি সম্প্রদায়ের ধ্বংস বয়ে আনছে। অন্যথায় এর চেয়েও আরও খারাপ কিছু ঘটবে…

তাঁর বক্তব্য টুইট করার পর সেই রাতেই এক দল প্রতিবাদকারী ইস্তাম্বুলে অবস্থিত ইসরায়েলি দূতাবাসের দালান লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপ করেছে। ইসরায়েলের সাথে কোন ধরনের সম্পর্ক নেই এমন একটি অন্তর্মুদ্রাবাহী ভাস্কর্য তারা ভেঙ্গে দিয়েছে। প্রতিবাদকারীদের নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়েছে। ইসলামপন্থী প্রতিবাদকারীদের দমন করতে সরকারের খুব সাধারন কৌশল হিসেবে কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করার বিষয়টি বেশ লক্ষণীয়।

২. প্রসিদ্ধ একেপি দলের সংসদ সদস্য, সামিল তাইয়্যার ইহুদি বিদ্বেষ মিশ্রিত নিচের টুইটটি করেছেনঃ 

আশা করছি, অনেক অনেক নতুন হিটলারের অধীনে আপনাদের সম্প্রদায় শীঘ্রই হাওয়ায় মিলিয়ে যাবে। 

৩. উগুর ইসিলাক একজন শিল্পী। রিসেপ এরদোগানের ক্ষমতাসীন একেপি (সুবিচার) দলের নির্বাচনী প্রচারাভিযানে তাঁর গাওয়া গান ব্যবহার করা হয়েছিল। তিনি ১৮ জুলাই তারিখে নিচের বার্তাটি টুইট করেছেনঃ  

আপনাদের [ইসরায়েল] ক্ষমতার নির্মম ব্যবহারে হিটলারের ছায়া দেখা যাচ্ছে। বর্তমানে হিটলারের বিরুদ্ধে কথা বলা দেশ হিসেবে আপনারাই সর্বশেষ। 

আল্লাহ তা’আলা জালিমের উপর জুলুম করে তাঁর কর্মফল মনে করিয়ে দেন। #টেরোরিস্টইসরায়েল।

স্থানটিকে একটি দেশ হিসেবে আখ্যায়িত করা হলে সে মানুষটির মানবতা নিয়ে অন্যদের সন্দেহ প্রকাশ করা উচিৎ। 

৪. এরদোগান সমর্থক টেবলয়েড পত্রিকা, ইয়েনি আকিট অবশেষে ১৯ জুলাই তারিখে ধর্মীয় দিক থেকে রক্ষনশীলভাবে সাজান একটি ধাঁধাঁ প্রকাশ করেছে। সেখানে গাজায় বোমা হামলা বন্ধ করতে সবার কাছে প্রিয় বিখ্যাত ইহুদি বিদ্বেষী উক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। 

দুঃখজনক…… তুর্কি সংবাদপত্র আকিট হিটলারের ছবি সম্বলিত একটি ধাঁধাঁ প্রকাশ করেছে, যার মূল অর্থ, “আমরা আপনাকে খুঁজছি”। 

সেদিনই পরে কাল সাগরের অর্দু শহরে জনসম্মুখে বক্তব্য রাখার  সময় এরদোগান হিটলার এবং ইসরায়েলি সরকারের মাঝে মিল তুলে ধরে সামিল তাইয়্যারের কথাগুলোরই যেন প্রতিধ্বনিত করেছেন। তিনি দাবি করেছেন, ইসরায়েলি সরকার বর্বরতার দিক থেকে হিটলারকে “ছাড়িয়ে গেছে”। তবে তিনি তুরস্কে বসবাসরত ইহুদিদের উপর আক্রমণ চালাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। 

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .