বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

হাবাল-হাবাল: ফিলিপাইনের যে মোটরসাইকেলে ১০ জন যাত্রী চড়ে!

This Habal-Habal has extensions consisting of wooden planks across the seat of the motorcycle. Photo by Sherbien Dacalanio, Copyright @Demotix (9/8/2012)

কাঠের তক্তা বেঁধে মোটরসাইকেলের সিট বাড়ানো হয়েছে। ছবি তুলেছেন শার্বিয়ান দাকালানিও। স্বত্ত্ব: ডেমোটিক্স (৯/৮/২০১২)

মোটরসাইকেলে কয়জন যাত্রী চড়ে? ফিলিপাইনের কিছু কিছু জায়গায় দু'চাকার এই গাড়িতে মাল-বোঁচকাসহ ১০ যাত্রী চড়ে। মোটরসাইকেলে করে এমন যাত্রী পরিবহন ব্যবস্থাকে হাবাল-হাবাল বা স্কাইল্যাব বলে।

ফিলিপাইনের দক্ষিণাঞ্চলের মিন্দানাও-এর অনেক জায়গায় হাবাল-হাবাল অনেক জনপ্রিয় হয়েছে। বিশেষ করে প্রত্যন্ত এলাকার সংকীর্ণ রাস্তাগুলোতে। কৃষকরা হাবাল-হাবালে করে তাদের উৎপাদিত পণ্যসামগ্রী বিকিকিনির জন্য হাটে নিয়ে আসেন।

স্কাইস্ক্যানার ওয়েবসাইট হাবাল-হাবাল পরিবহনের মূল্য নিয়ে লিখেছে:

প্রতিদিন ম্যানিলা শহরে আপনি মোটরসাইকেল দেখতে পাবেন। তবে তার যাত্রী সংখ্যা এক বা দুইজন। কিন্তু আপনি যখন মিন্দানাও যাবেন, সেখানকার রাস্তায় উল্টো দৃশ্য দেখতে পাবেন। ভিসায়াসের বেশিরভাগ অংশেও তাই।

যাত্রী ধারণ ক্ষমতার ওপর ভিত্তি করে হাবাল-হাবাল দু'চাকার মোটরসাইকেলের এক অনন্য উদ্ভাবন। যেসব অঞ্চলে রাস্তাঘাট সরু, উঁচু-নিচু, খানাখন্দে ভরা সেখানে সাধারণ জনগণের বাহন হিসেবে হাবাল-হাবাল ব্যবহার করা হয়। এতে কমপক্ষে ৬ জন যাত্রী বহন করা যায়। যদিও কিছু মানুষ বলেছেন, হাবাল-হাবালে ১০ জনের বেশি যাত্রীও বসানো যায়। শুধু তাই নয়, শাকসবজি'র বস্তা, মুদি মালামাল, হাস-মুরগির ডালাও বহন করা যায়।

ট্রাভেলিংমরিয়ন হাবাল-হাবাল চালকের গাড়ি চালানো এবং ভারসাম্য ঠিক রাখার দক্ষতা দেখে আশ্চর্য হয়েছেন:

যারা পার্বত্য এলাকায় বসবাস করেন, তাদের কাছে এটা বন্ধুত্বপূর্ণ বাহন। কারণ, এখানকার বেশিরভাগ রাস্তায় চার চাকার গাড়ি চলে না। হাবাল-হাবালে যাত্রী বহন করার আশ্চর্য দিক হলো, প্রতি পদক্ষেপে যাত্রীদের ওজনের ভারসাম্য রেখে গাড়ি চালনা করা। চালকের দুই পাশে ছাড়াও সামনে-পিছনে আরো ৩-৪ জন যাত্রী থাকেন।

অধিক সংখ্যক যাত্রী বহন করার জন্য মোটরসাইকেলের সিটের দু'পাশে কাঠের তক্তা বাঁধা আছে। এজন্য অনেক মানুষ একে স্কাইল্যাব বলেন:

হাবাল-হাবাল এখন অদল-বদল করে “ইস্কাইল্যাব” নামেও ডাকা হয়। সবাই বিশ্বাস করে, ১৯৭৯ সালে মহাকাশে যাত্রাকালে ধ্বংস হওয়া মার্কিন নভোযান “স্কাইল্যাব” থেকে এই নাম নেয়া হয়েছে। তবে এটা নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। যেমন অন্য একজন বলেছেন, এটা এসেছে “সাকাই না, ল্যাব” থেকে; যার মানে হলো “ওঠে পড়ুন, ভালোবাসুন!” ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি, পরের নয় সাবেক কোনো বিষয় থেকেই শব্দটি নেয়া হয়েছে। কেন না, মোটরসাইকেলের পিছনের সিটের সাথে আটকানো তক্তা মূল অংশ পার করে চলে, যা মোটরসাইকেলের অতিরিক্ত সিট হিসেবে ব্যবহৃত হয়। আর এটা দেখতে অনেকটা স্কাইল্যাবের মতো। দেখে মনে হয় যেন কোনো স্যাটেলাইটের ডানা।

ডকট্রিন একদা হাবাল-হাবালকে “অ্যাম্বুলেন্স” হিসেবে ব্যবহৃত হতে দেখেন এবং সরকারের প্রতি হতাশ হন:

ম্যানিলা শহরে অনেক অ্যাম্বুলেন্স দেখি ব্যক্তিগত কাজে যাতায়াতের জন্য ব্যবহৃত হতে। ওদিকে মানুষ তার জরুরি প্রয়োজনে হাসপাতালে যাচ্ছে হাবাল-হাবালে করে।

এটা আমাদের সরকারের জন্য লজ্জার কথা। তারা বেসরকারি খাতের জন্য অনেক সময় ব্যয় করেন। সেখানে প্রজেক্টও নেন বেশি। অন্যদিকে হাজার হাজার দরিদ্র মানুষের মৌল চাহিদাগুলো মেটাতে কিছু করেন না। তাদের স্কুল, হাসপাতাল এবং কাজের ক্ষেত্রে প্রবেশের ব্যবস্থা করেন না।

স্কাইল্যাব, আস্তে…

ভিসায়ান অঞ্চলে যাতাযাতের বাহন … হাবাল-হাবাল…

রোদ-বৃষ্টি থেকে রক্ষা করতে কিছু হাবাল-হাবালের ছাদে তেরপল আছে:

আগুসান ডেল সুরের একটি “স্কাইল্যাবে চড়ে আছি! এটি একটি দু'চাকার গাড়ি, যা ১০ জন যাত্রী পরিবহন করতে পারে!

হোন্ডা টিএমএক১৫৫ বদলে হাবাল-হাবাল করা হয়েছে। এটিতে ড্রাইভারসহ ৮ জন বসতে পারে! রোমাঞ্চকর ব্যাপার।

এতো জনপ্রিয়তা সত্ত্বেও হাবাল-হাবাল জন পরিবহনের জন্য নিষিদ্ধ মাধ্যম। মিন্দানাওয়ের একজন সংসদ সদস্য সম্প্রতি হাবাল-হাবালকে আইনগতভাবে চালানোর অনুমতি দেয়ার জন্য প্রস্তাব করেছেন।

জনস্বার্থে: হাবাল-হাবাল অবৈধ এবং অনিরাপদ বাহন।

A Habal-Habal in Cabadbaran City. Photo by Sherbien Dacalanio, Copyright @Demotix (9/8/2012)

কাবাধারান শহরের হাবাল-হাবাল। ছবি তুলেছেন শার্বিয়ান দাকালানিও। স্বত্ত্ব: ডেমোটিক্স (৯/৮/২০১২)

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .