বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইন্টারনেট লক্ষ্য করে মিশরে সন্ত্রাসবাদ বিরোধী আইন

একটি খসড়া “সন্ত্রাসবাদ বিরোধী” আইন কার্যকর হলেই মিশরে নতুন করে তদন্তের অধীনে ইন্টারনেটের অন্য সাইটগুলোর মধ্যে ফেসবুকও অন্তর্ভুক্ত হবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের করা এই খসড়া আইনটি বিচারবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়েছে, যা আবার ঘুরে অনুসমর্থনের জন্য মন্ত্রিপরিষদে যাবে। খসড়া আইনটিতে বলা হয়েছে, সন্ত্রাসবাদে প্ররোচিত করা ইন্টারনেট সাইটগুলোকে সেন্সর করা হতে পারে। এর মধ্যে জনপ্রিয় ইন্টারনেট সাইট ফেসবুকও রয়েছে, যেটি ক্রমবর্ধমানভাবে ভিন্নমত পোষণকারী মিশরীয়দের মধ্যে একটি চ্যানেলে পরিণত হয়েছে।

আরব দৈনিক আল শেরক এর মতে [আরবি ভাষায়]:

تضمن مشروع قانون «مكافحة الإرهاب» المرسل من وزارة الداخلية للعدل، قبل إرساله إلى مجلس الوزراء، لإقراره، ولأول مرة موادَّ جديدة لضمان فرض السيطرة على الجرائم «الإرهابية» بشكل أكثر شمولًا من مواد قانون العقوبات، بداية من فرض الرقابة اللازمة على مواقع فيسبوك والإنترنت؛ لمنع استخدامها في الأغراض «الإرهابية» المنصوص عليها

সন্ত্রাসবাদ বিরোধী আইনটি মন্ত্রিপরিষদের অনুমোদনের আগেই প্রথমবারের মতো স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সেটি বিচারবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। নতুন আইনে “সন্ত্রাসবাদ” অপরাধের উপর ব্যাপক ভাবে নিয়ন্ত্রণের নিশ্চয়তা রয়েছে, যা ফেসবুক এবং ইন্টারনেট পর্যবেক্ষণ দিয়ে শুরু হবে। সেগুলো যাতে সন্ত্রাসের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা না হয়, সেটাই এই আইনের মূল লক্ষ। 

মিশরীয় ব্লগার রামি ইয়াকুব নোট লিখেছেন: 

মিশরের নতুন সংবিধানের ৩১ নম্বর অনুচ্ছেদের প্রথম বাস্তবায়ন হচ্ছে সন্ত্রাসবাদ বিরোধী আইন বিলটিতে, যেটিতে ইন্টারনেট সাইট ব্লক করা, ফেসবুক নিরীক্ষণের মত প্রস্তাব করা হয়েছে।  

তিনি আরও বলেনঃ 

ব্যাপারটি হাস্যকর হয়ে উঠছে। ব্যক্তিগত যোগাযোগের পবিত্রতা নিয়ন্ত্রণে একটি আন্তর্জাতিক চুক্তি প্রয়োজন। 

ঔপন্যাসিক এজেদিন চউক্রি ফিসের বলেছেন, নতুন বিলটি সন্ত্রাসবাদকে বেশী প্রভাবিত করবে:

অভিনন্দন মিশর! পরিবেশ রক্ষা এখন একটি সন্ত্রাসবাদ আইনে পরিণত হয়েছে। 

 

এবং মাই এল-সাদানি উপসংহার টেনে বলেছেন:

নতুন সন্ত্রাসবিরোধী খসড়া আইনটি ইন্টারনেট এবং সামাজিক মিডিয়া পর্যবেক্ষণে [ওরফে, গুপ্তচরবৃত্তি] নিগমবদ্ধ হবে। 

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .