বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

“সিরিয়দের ক্রমাগত হত্যা করায় আসাদের উপর বিশ্ববাসী খুশী”

Syrian protesters carry banners calling for international action against the Assad regime in Kafranbel, Idlib, in northern Syria. Image by Majid Almustafa. Copyright Demotix August 30, 2013

উত্তর সিরিয়ার ইদলিবের কাফ্রানবেলে সিরিয় প্রতিবাদকারীরা আসাদ সরকারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক পদক্ষেপ নিতে ব্যানার বহন করছেন। সর্বসত্ত্ব ডেমোটিক্স ৩০ আগস্ট, ২০১৩।  

এই পোস্টটি আমাদের বিশেষ কভারেজ সিরিয়ায় টিকে থাকা এর একটি অংশ

সিরিয়া সরকার এইমাত্র ঘোষণা করেছে, তাঁদের রাসায়নিক অস্ত্রের মজুদ আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রনের অধীনে রাখতে প্রস্তুত – এবং এরপর তাঁরা রাশিয়ার অঙ্কিত একটি নতুন চুক্তি অনুযায়ী এগুলো ধ্বংস করে ফেলবে। কিন্তু সক্রিয় কর্মীরা বলছে, যুদ্ধকৌশলটি সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদকে তাঁর ব্যবস্থায় অন্যসব ধরনের অস্ত্রের সাহায্যে আরও লোককে হত্যা করার সময় করে দিবে।

চুক্তিটির উদ্দেশ্য হচ্ছে সিরিয়াতে মার্কিন হামলা প্রতিহত করা। সিরিয়ার জনগণের বিরুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগে হামলাটির প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী, সেখানে কমপক্ষে ১ লক্ষ লোককে হত্যা করা হয়েছে এবং ২০১১ সালের মার্চে আসাদ-বিরোধী প্রতিবাদের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ২ মিলিয়ন মানুষ দেশ থেকে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছে।

সিরিয়ার সক্রিয় কর্মী সাকিব আল-জাবরি ব্যাখ্যা করেছেনঃ

জরুরিভাবে আজ যা নির্ধারিত হয়েছে, তা হচ্ছে আপনি কাউকে গুলি করে মারতে পারেন এবং শাস্তি থেকে বাঁচতেও পারেন, কারন, আপনার কাজ শেষ হয়ে যাবার পর আপনি আপনার বন্দুকটি হস্তান্তর করে দিয়েছেন। #সিরিয়া

মৌরিতানিয়ার সক্রিয় কর্মী নাসের ওয়েদাদি জানিয়েছেনঃ

শাসনতন্ত্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী রাসায়নিক অস্ত্র তত্ত্বাবধানে রাখার প্রস্তাবটিকে স্বাগত জানিয়েছেন = আসাদের যুদ্ধ যন্ত্রটি হত্যা চালিয়ে যাওয়ায় সারা বিশ্ব আনন্দিত।

এবং বিসিরিয়া আরও বলেছেনঃ

সিরিয়ার ৭ মিলিয়ন বাস্তুচ্যুত নাগরিক রাসায়নিক অস্ত্রের কারনে তাঁদের বাড়িঘর রেখে পালিয়ে যায়নি।

তখন গজল বলেছেন, আসাদের রাসায়নিক অস্ত্রের ব্যবহারের উপর শাসন করা বলতে বোঝায়, অন্যসব অস্ত্রের ব্যবহার গ্রহনযোগ্য [আরবি]:

এবং এখন তাঁরা রাসায়নিক অস্ত্র পর্যবেক্ষন করা গ্রহন করে নিয়েছে। তাঁর মানে আমরা আবার বিমানবাহিনী, কামান, গোলা প্রভৃতি ও বন্দুকের নলে ফিরে যাবো। কতো লোক মারা গেল তাতে কোন সমস্যা নেই। তাঁরা ব্যবহার করা অনুপযুক্ত বলে ঘোষণা করবে। রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করা হলো কিনা এটাই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

বিবিসি খবরের মধ্যপ্রাচ্য ব্যুরোর প্রধান রিচার্ড কোলেবোর্ন একটি ধারাবাহিক টুইটের মাধ্যমে পরামর্শ দিয়ে বলেছেন, অবশ্যই রাশিয়া এবং সিরিয়া তাঁদের কার্যকলাপ সমন্বিতভাবে করতে পারে।

#সিরিয়া – র রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন #রাশিয়া রাসায়নিক অস্ত্র প্রস্তাব নামে একটি গ্রাফিক রিপোর্ট করেছে – যা অত্যন্ত আনন্দদায়ক।

#রাশিয়া এবং #সিরিয়া – এর বক্তব্য প্রদানের সময়সূচি এবং সিরিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনের আনন্দদায়ক কভারেজ থেকে এই পরামর্শ দেয়া হয়েছে যে সবকিছুই সুন্দরভাবে সমন্বয় সাধন করা হয়েছে।

তিনি আরও লিখেছেনঃ

#রাশিয়া চুক্তি কি ওবামার জন্য একটি পথ তৈরি করে দিয়েছে ? তাঁর মানে কি দীর্ঘায়িত রাসায়নিক অস্ত্র অনুসন্ধান/ পর্যবেক্ষন জাতিসংঘ + বিশ্বকে #সিরিয়ার জন্য আমলাতান্ত্রিক সূত্র-গ্রন্থিতে একসাথে বাঁধবে ?

এই উদ্যোগ অনেক প্রশ্নের জন্ম দিচ্ছে। আল জাজিরার ইংরেজি বিভাগের প্রতিনিধি, জিনা খোদর টুইট করেছেনঃ

#সিরিয়ার নাগরিকেরা এখন প্রশ্ন করছে, হয়তো #মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সামরিক হামলার হুমকি দিয়েছে শুধুমাত্র এইটুকু নিশ্চিত করতে যে রাসায়নিক অস্ত্র যেন “ভুল লোকের হাতে” (আল কায়েদা এবং হিজবুল্লাহ) চলে না যায়।

তখন সিরিয়ার ব্লগার আনাস মারাউই বলেছেনঃ

রাসায়নিক অস্ত্র তাঁরা কোথায় হস্তান্তর করছে ? ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে শাসনতন্ত্র তাঁর মা, বাবা এবং বোনকে পর্যন্ত হস্তান্তর করতে প্রস্তুত।

এই পোস্টটি আমাদের বিশেষ কভারেজ সিরিয়ায় টিকে থাকা এর একটি অংশ

এই পোস্টে মন্তব্য বন্ধ করা হয়েছে।