বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিশরঃ সিরিয়ার নাগরিকদের দুর্দশার প্রতি সবার মনোযোগ আকর্ষণ করার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠা

এই পোস্টটি সিরিয়া বিক্ষোভ ২০১১/১২-নিয়ে করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ।

সিরিয়ার শাসকরা তাদের জনতার প্রতি যে নিষ্ঠুরতা প্রদর্শন করছে সে বিষয়টির প্রতি মনোযোগ আকর্ষণ করার জন্য প্রবাসী সিরীয় একটিভিস্ট এবং শিল্পীরা প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে অনশন ধর্মঘট পালন করে আসছে।

সিরিয়ার বিখ্যাত কবি এবং লেখিকা লিনা তিবি সহ ছয় জন নারী কায়রোয় অবস্থিত আরব লীগের সদর দপ্তরের সামনে আজকের দিন [ ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১২] সহ এক সপ্তাহ ধরে অবস্থান করে আছেন। তারা প্রতিজ্ঞা করেছেন যে যতক্ষণ না তাদের দাবী পুরণ করা হচ্ছে ততক্ষণ তারা তাদের অনশন ধর্মঘটের ইতি টানবেন না।

গতকাল তিবি টুইট করেছে [আরবী ভাষায়]:

اضراب النساء السوريات في القاهرة يدخل يومه السادس وبشار يطلق عنفه ووحشيته واجرامه الى عنان السماء..
@লিনাতিবি:সিরীয় নারীরা কায়রো সেন্টারে ছয়দিন ধরে অনশন ধমর্ঘট চালিয়ে যাচ্ছে, আর এদিকে সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার তার নির্মমতা এবং অপরাধ উন্মুক্ত করে দিয়েছে, যা এখন আকাশ ছোঁয়ার উপক্রম করছে।
 Syrian women protesting in Douma in April, 2011. Photograph from Syriana2011 photostream on flickr, used under  (CC BY 2.0)

এপ্রিল ২০১১, এ, দোউমাতে সিরীয় নারীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করছে। ছবি ফ্লিকারের সিরিয়ানা ২০১১-এর ফটোস্ট্রিম থেকে নেওয়া, (সিসি বাই ২.০) –এর অধীনে ব্যবহার করা হয়েছে।

এবং ভদ্রমহিলা তার ফেসবুকের পাতায় লিখেছেন:

يسألوننا لم الاضراب عن الطعام ونخبرهم انه تم بخيارنا الكامل تضامنا مع شعبنا الذي أضرب عن الطعام اجبارا لا طوعا
أضرب لانه لم يعد بوسعه ان يجد قوت يومه ولان لا طعام في مدن عديدة في سوريا ولان الغلاء الفاحش صار بمنزلة الشرف الكبرى
لمن ينادينا بفك الاضراب نسأله اولا ان يفك الاضراب عن شعبنا
তারা আমাদের জিজ্ঞেস করছে কেন আমরা অনশন ধর্মঘট পালন করছি, আর আমরা তাদের বললাম যে সিরিয়ায় আমাদের নাগরিকদের সাথে একাত্মাতা প্রকাশ করার জন্য আমরা অনশন ধর্মঘট পালন করছি, যারা এখন খাবার ছাড়া জীবন চালিয়ে যেতে বাধ্য হচ্ছে, কারণ তারা এখন আর জীবন ধারনের জন্য যথেষ্ট অর্থ উপার্জন করতে পারছে না। আপনারা, যারা আমাদের অনশন ধর্মঘটের ইতি টানার জন্য আহ্বান জানাচ্ছেন, আমরা তাদের বলছি, যারা আমাদের দেশের মানুষদের উপর হামলা চালাচ্ছে, আপনারা প্রথমে তাদের এই হামলা চালানো বিষয়টি বন্ধ করতে বলুন।

যারা অনশন ধর্মঘট পালন করছে তাদের লক্ষ্যের মধ্যে রয়েছে:

@মৌ২আমারা: #স্ট্রাইকফরসিরিয়া নামক সিরিয়ার জন্য #কায়রোতে আমাদের অনশন ধর্মঘটের উদ্দেশ্য হচ্ছে #সুয়েজক্যানাল নামক খালের মধ্যে ভেতরে দিয়ে #ইরান ও #রাশিয়ার জাহাজের মাধ্যমে #আসাদ সরকারের জন্য অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করা। #মিশর

কায়রো প্রতিবাদের একটি অংশ হচ্ছে একদল একটিভিস্টের খাবার গ্রহণ না করা, যার মধ্যে দিয়ে তারা সিরীয় নাগরিকদের দুর্দশার প্রতি সবার মনোযোগ আকর্ষণ করাতে চায়।

টুইটারে, সিরিয়ার প্রাক্তন এক বাসিন্দা টুইট করেছে :

@ডোনাটেল্লাডিআর: সিরীয় অনেক শিল্পী এবং একটিভিস্ট, যারা #মিশর #লেবানন # তুরস্ক # জার্মানী #স্পেন # জর্ডান #সৌদি আরবে বাস করে, তারা ২৬ আগস্ট থেকে অনশন ধর্মঘট পালন করে যাচ্ছে।

এদিকে, লোকাল কোওর্ডিনেশন কমিটি অফ সিরিয়া নামক সংগঠন তাদের ফেসবুকে পাতায় এই অনশন ধর্মঘট সম্বন্ধে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে:

خمسة عشر يوما مروا على بدء الإضراب المفتوح عن الطعام الذي أعلنه ناشطات و ناشطون سوريون في عواصم العالم المختلفة في محاولة للفت نظر العالم لما يتعرض له شعبنا السوري من مجازر وتنكيل يومي على يد النظام الهمجي.

و قد وجه المضربون رسالة إلى السيد الأخضر الابراهيمي توضح مطالبهم، و هي مطالب الشعب السوري الثائر المنكوب بجرائم نظامه الدكتاتوري، طالبوا فيها بضرروة التحرك الفوري لاتخاذ اجراءات حقيقية لوقف المذابح في سوريا و عدم الاكتفاء بالتنديد و الشجب

সিরিয়ার বর্বর শাসকের হাতে সংঘঠিত গণহত্যা এবং প্রতিদিন নির্মমতার শিকার হওয়া সেদেশের নাগরিকদের ঘটনার প্রতি মনোযোগ আকর্ষণ করার জন্য সারা বিশ্বে সিরীয় একটিভিস্টরা যে উন্মুক্ত অনশন পালনের ঘোষণা প্রদান করেছে, ইতোমধ্যে তার পনের দিন অতিক্রান্ত হয়েছে।

এই বিক্ষোভকারীরা লাখদার ব্রাহিমীর [ সিরিয়ায় জাতিসংঘ এবং আরব লীগের শান্তিদূত] কাছে একটি বার্তা পাঠিয়েছে, যেখানে তারা তাদের দাবীর বিষয়টি উল্লেখ করেছে, যে সমস্ত দাবী সিরিয়ার বিপ্লবী জনগণের, যারা তাদের স্বৈরশাসকের সংঘঠিত অপরাধের শিকার। সিরিয়ায় গণহত্যা বন্ধের লক্ষ্যে অতি দ্রুত প্রকৃত ব্যবস্থা গ্রহণ করার এবং শাসকদের যেন সীমিত আকারে নিন্দা জানানো না হয়, তারা এর আহ্বান জানিয়েছে।

যারা অনশনে অংশ গ্রহণ করেছে এবং এই সব ঘটনা থামানোর আহ্বান জানাচ্ছে, এই বিবৃতিতে এই সমস্ত ব্যক্তির কয়েকজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে:

ولا يزال معظم هؤلاء النشطاء مستمرين في إضرابهم حيث تدهور الوضع الصحي لعدد منهم.

و إذ توجه لجان التنسيق المحلية في سوريا التحية و تثمن موقف الأحرار

[….]

فإنها تتمنى على المضربين عن الطعام فك إضرابهم، باعتبار أن الرسالة وصلت، ويكفينا الموت القادم من كل صوب
على أيدي آلة حرب النظام ومرتزقته. فمعركة انتزاع الحرية لوطننا طويلة ومريرة و تحتاج جهود الجميع، و لاينبغي أن نخسر المزيد من الأرواح كيف يلتفت العالم إلى معاناتنا، التي باتت أوضح من الشمس الساطعة

এই সমস্ত একটিভিস্টরা এখনো অনশন চালিয়ে যাচ্ছে এবং তাদের মধ্যে কয়েকজনের স্বাস্থ্যগত অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে গড়াচ্ছে। লোকাল কোওর্ডিনেশন কমিটি অফ সিরিয়া স্বাধীনতার এই সমস্ত সেনানীদের প্রতি তাদের শ্রদ্ধা পাঠিয়েছে এবং তাদের এই কাজের মূল্যায়ন করেছে।
[….]

একই সাথে তা আশা প্রকাশ করে যে অনশন ধর্মঘট পালনকারীরা তাদের এই অনশন বন্ধ করবে, কারণ যাদের উদ্দেশ্য এই বার্তা তুলে ধরা সেই সমস্ত ব্যক্তি কাছে তা পৌঁছে গেছে। সকল দিক থেকে আমাদের এখানে যথেষ্ট মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে, শাসক এবং তার ভাড়াটে খুনীদের যুদ্ধ যন্ত্রের হাতে। আমাদের রাষ্ট্রের স্বাধীনতা অর্জনের যুদ্ধ দীর্ঘ সময় ধরে চলছে এবং তা নির্মম এক যুদ্ধে পরিণত হয়েছে, আর এখন তা অর্জনের জন্য আমাদের সকল প্রচেষ্টার প্রয়োজন এবং আমাদের এই দুর্দশার প্রতি বিশ্বের মনোযোগ আকর্ষণের জন্য আমরা আর নিজেদের আত্মাকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলব না, এখন এই বিষয়টি সবার দৃষ্টিতে পরিষ্কার হয়ে গেছে।

এই বিষয়ে টুইটারে আরো প্রতিক্রিয়া জানার জন্য ইংরেজিতে #স্ট্রাইকফরসিরিয়া এবং আরবিতে #مضربات_لاجل_سوريا নামক হ্যাশট্যাগ অনুসরণ করুন।

এই পোস্টটি সিরিয়া বিক্ষোভ ২০১১/১২-নিয়ে করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .