বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

জর্দান: ইন্টারনেট সেন্সরের প্রতিবাদে একটি কালো দিবস

ইন্টারনেট সেন্সরশিপের সরকার প্রস্তাবিত পরিকল্পনা এবং নতুন নিয়ন্ত্রণ নীতিমালার প্রতিবাদে জর্দানী ওয়েবসাইটগুলো আজ [২৯শে আগস্ট, ২০১২]  তাদের পরিষেবা বন্ধ রেখেছে।

নতুন আইন এবং এর বিপদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্যে শত শত ওয়েবসাইট কালো রূপ ধারণ করেছে। সাইটগুলোর প্রদর্শিত কালো পটভূমিটিতে যে কথাটি লেখা রয়েছে:

জর্দানী প্রেস এবং প্রকাশনা আইনের সংশোধনী এবং সরকারি ইন্টারনেট সেন্সরশিপের অধীনে আপনি হয়তো এই পৃষ্ঠপোষকের বিষয়বস্তু থেকে বঞ্চিত হতে পারেন

প্রথমতঃ সরকার ওয়েবসাইটগুলোকে আটকে দেয়ার সম্মতি দিয়েছে। এছাড়াও খসড়া হিসেবে অনুমোদিত এখনকার নতুন একটি প্রকাশনা আইন ইন্টারনেটের আরো নিয়ন্ত্রণ এবং সেন্সরশীপের অনুমোদন দিয়েছে।

আল ঘাদ সংবাদপত্র [আরবী ভাষায়] অনুসারে, জর্দানী সরকার প্রকাশনা এবং প্রেস আইনের যে সংশোধনী অনুমোদন করেছে তাতে করে এখন “ঠিক অন্য যে কোন প্রকাশণার মতো” ওয়েবসাইটের মালিকদের সরকারের কাছে নিবন্ধিত হয়ে একটি লাইসেন্স নিতে হবে। এছাড়াও ওয়েবসাইটের মালিকদের ত্যাদের সাইটে পাঠকদের প্রকাশিত মন্তব্যের বিষয়বস্তুর জন্যে দায়ী করা হবে।

সত্যিকারের একটি আইন হওয়ার জন্যে খসড়া আইনটিকে এখন সংসদে অনুমোদিত হতে হবে।

প্রতিক্রিয়া হিসেবে, সরকারের ইন্টারনেট সেন্সর প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার এবং মতামতের ছাঁকুনি ও স্বাধীনতা সম্পর্কে সচেতনতা ছড়িয়ে দেয়ার জন্যে ৭অর ইয়া নেট (ইন্টারনেট, তুমি মুক্ত) [আরবী ভাষায়] নামের নতুন একটি ব্লগ চালু করা হয়েছে। এবং জর্দানের এই ব্ল্যাকআউট প্রচারাভিযানটি ইন্টারনেটের পরিস্থিতি এবং নতুন আইন করে মানুষের অনলাইন স্বাধীনতা সংকোচনের সুযোগ দেওয়া উচিৎ কিনা সে সম্পর্কে এর মনোযোগ আকর্ষণের একটি প্রচেষ্টা।

৭অর ইয়া নেট অনুসারে:

খসড়াটি দ্রুত জাতীয় সংসদে পাঠানো হয়েছে এবং এটি ২৫শে আগস্ট রবিবার অসাধারণ (একটি) অধিবেশনে আলোচিত হয়েছে। দ্বিতীয় একটি শুনানি ৩০শে আগস্ট বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। এজন্যেই আমরা এই ব্ল্যাকআউট পালন করছি এবং (এতে) আপনার সমর্থন দরকার।

প্রচারাভিযানটি জর্দানী মঞ্চগুলো জুড়ে ব্যাপক সমর্থন পাচ্ছে। জো২৪.নেট বলেছে [আরবী ভাষায়] যে ৭৫০টিরও বেশি ওয়েবসাইটে প্রচারাভিযানটিতে যোগ দিয়েছে।

প্রচারাভিযানটি ঠিক শুরুর সময়ে, মধ্যরাত্রে ওয়েব উদ্যোক্তা আহমেদ হুমেইদ টুইটারে ঘোষণা করেছেন:

@হুমেইদ: জর্দানে ইন্টারনেট স্বাধীনতা সীমিতকরণের আইনের প্রতিবাদে দেশের শীর্ষ সংবাদ সাইটসহ ১৫০টিরও বেশি সাইট কালো রূপ ধারণ করতে যাচ্ছে #ব্ল্যাকআউটজো

তিনি আরো বলেছেন:

@হুমেইদ: শুধু সংবাদ সাইটগুলো নয়, এমনকি প্রধান প্রধান ব্যবসা সাইটগুলোও জর্দানের ইন্টারনেট ব্ল্যাকআউটে যোগদান করছে।  #ব্ল্যাকআউটজো #মুক্তনেটজো

এবং আরামরান ওয়েব টিভি সতর্ক করেছে:

@আরামরাম: #মুক্তনেটজো সমর্থন করুন অথবা আপনার বাকি জীবন #ব্ল্যাকআউটজো ভোগ করুন

Screen shot of the Jeeran homepage in black

জর্দানে ইন্টারনেটকে সীমিত করার লক্ষ্যে নতুন আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে জিরান-এর কালো মুখ্যপৃষ্ঠার (হোমপেজ) পর্দাছবি।

সারাদিন ধরে সাইটগুলো প্রচারাভিযানটির জন্যে তাদের সমর্থনের বিজ্ঞাপন দিয়েছে। এখানে একটি উদাহরণ দেওয়া হলো:

@জিরান: #জিরান ব্ল্যাকআউটকে সমর্থন জানাচ্ছে এবং #জো-তে সেন্সরকৃত ওয়েবের বিরুদ্ধে কালো হতে যাচ্ছে http://jo.jeeran.com #ব্ল্যাকআউটজো #মুক্তনেটজো #আম্মান

এবং যারা প্রচারাভিযানে যোগদান করবে না তারা একটিভিস্টদের একটি নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার সম্মুখীন হবে।

ওয়েব/মোবাইল প্রযুক্তিবিদ রাজান খাতিব টুইট করেছেন:

@রাজানো: আমি @খাবার্ণি-কে অনুসরণ থেকে বাদ দিয়েছে কারণ তারা #ব্ল্যাকআউটজো-তে যোগদান করেনি  #মুক্তনেটজো

গল্পটি অনুসরণ করতে টুইটার হ্যাশ ট্যাগ #ব্ল্যাকআউটজো এবং #মুক্তনেটজো খূঁজে দেখুন

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .