বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কুয়েতঃ বেদুইনদের সংগ্রাম অনলাইনে শেকড় গাড়ছে

তথাকথিত আরব বসন্তের স্বৈরশাসক গোষ্ঠীর হাতে আরবরা যে অত্যাচারের সম্মুখীন হন তা সামনে তুলে ধরেছে। সেই তখন থেকেই কুয়েতের রাষ্ট্রহীন জনগোষ্ঠী বেদুইনরা, যাদের সংখ্যা ১২০,০০০ এর বেশী, সংগ্রাম করছে তাদের কথা শোনাবার জন্য

এই অঞ্চলের বিক্ষোভকারীদের মতো, তারাও, জনসভা আর বিক্ষোভ করেছেন তাদের পরিস্থিতি তুলে ধরার জন্য। বেদুইন (‘কোন কিছু ছাড়া’) হিসাবে পরিচিত এই রাষ্ট্রহীন কুয়েতিরা যাদের কয়েক প্রজন্ম ধরে না আছে জাতীয়তা বা পাসপোর্ট বা বৈধতা যা আমাদের সকলের প্রয়োজন নিজেদের পরিচিত করার জন্য। এর ফলে, তাদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা, চাকুরি আর স্বীকৃতি নেই সেই দেশে, যেখানে তারা, তাদের পিতা মাতা এমনকি অনেক ক্ষেত্রে তাদের পিতামহরাও জন্মগ্রহণ করেছেন। কিন্তু সে দেশে তাদের কোন নাগরিকত্ব বা অধিকার নেই।

নতুন বেদুইন অধিকার ব্লগ:

নতুন বেদুইন অধিকার ব্লগ: কুয়েতের রাষ্ট্রহীন জনগোষ্ঠীর সংগ্রাম তুলে ধরছে

একজন রাষ্ট্রহীন কুয়েতি ব্লগার, মোনা কারিম (গ্লোবাল ভয়েসেস এর একজন লেখক) তাদের কষ্ট অনলাইনে নিয়ে গেছেন নতুন একটা ব্লগের মাধ্যমে, যার শিরোনাম বেদুইনদের অধিকার, যা শুরু করা হয়েছে কুয়েতের অভ্যন্তরে এই বিপুল সংখ্যক লোকের কষ্টের প্রতি সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে। এই সাইটে ইংরেজী ভাষায় বেদুইনদের সংবাদ ও মতামত তুলে ধরা হয়।

বেদুইন অধিকারের পাতা অনুসারেঃ

অন্তত ১২০,০০০ বেদুইন জিন্সিয়া (নাগরিকত্ব ছাড়া) আছেন কুয়েতে যারা মানবাধিকারের অভাবে ভুগছেন। তারা আইনগতভাবে জন্ম, মৃত্যু, বিবাহ বা তালাকের সনদ পেতে পারেন না। একই জিনিস হয়ে থাকে ড্রাইভিং লাইসেন্স, সনাক্তকরণ কার্ড আর পাসপোর্ট এর ক্ষেত্রে। তাদের পক্ষে সম্ভব না রাষ্ট্রীয় শিক্ষা, স্বাস্থ্য, গৃহায়ন বা চাকরির সুবিধা পাওয়ার। আর একদিকে তারা যেমন রাষ্ট্রের কঠোর পক্ষপাতিত্ব নীতির শিকার, তারা আইন বা আদালতের শরণাপন্ন হতে পারেন না। সহজভাবে বললে, বেদুইন, যারা কুয়েতের জনসংখ্যার ১০%, অস্তিত্বহীন। তাদেরকে ছোট করে সরকারী নীতিতে অস্তিত্বহীন করে তোলা হয়েছে আর তার সাথে আছে সামাজিক বিকৃত অপবাদ।

আরো আছে:

এই নেটওয়ার্ক এ কারনে প্রয়োজন যে ইংরেজীতে আমাদের লক্ষ্য আর সংগ্রাম নিয়ে লেখার অভাব রয়েছে। রাষ্ট্রহীন কর্মী আর বিক্ষোভকারীদের বিগত কয়েক বছরে লাঞ্ছনা, গ্রেপ্তার, দুর্ব্যবহার আর কথা বলার জন্য বিচারের সম্মুখীন হতে হয়েছে। এই নেটওয়ার্ক নিশ্চিত করে যে নিউজলেটার যথাসময়ে বিভিন্ন সংস্থা আর মিডিয়ার হাতে পৌঁছায় পরিস্থিতি সম্পর্কে জানানোর জন্য আর বেদুইন মানবাধিকারের লঙ্ঘনের ব্যাপারেও।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .