বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

এ্যাঙ্গোলা: লুয়ান্ডার যুব প্রতিবাদ আন্দোলন দমনের ভিডিও

শনিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০১১-এ, প্রায় ২০০ জনের মত তরুণের একটি দল, এ্যাঙ্গোলার রাজধানী লুয়ান্ডায় সমাবেত হয়। তারা রাষ্ট্রপতি জোসে এডুয়ার্ডো ডস স্যান্টোস-এর ৩২ বছরের শাসনকালে স্বাধীনতার অভাবের বিষয়ে প্রতিবাদের জন্য জড়ো হয়। প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনা অনুসারে এই বিক্ষোভের শেষ হয়, পুলিশের বেশ কিছু বিক্ষোভকারীকে পেটানোর মধ্যে দিয়ে।

১ সেপ্টেম্বর, তারিখে প্রতিবাদের আহ্বান জানিয়ে একটি ভিডিও আপলোড করা হয়, এতে প্রতিবাদের আয়োজক একদল সংগঠক, সাহসের সাথে, ব্যক্তিগত পর্যায়ে সবাইকে প্রতিবাদে অংশ নেবার আহ্বান জানায়। এদের অনেক আধুনিক চটুল হিপহপ গানের শিল্পী। এই ভিডিওর ট্যাগ লাইন ছিল “৩২ অন্স এ মুইত “ ৩২ বছরের শাসনকাল অনেক বেশী”.

শনিবার খুব সকালে, ফেসবুকে এক সংবাদ ছড়িয়ে পড়ে যে, ভিডিওতে উপস্থিত একজন ব্যক্তি যার নাম পণ্ডিত নেরু, বিক্ষোভের আগে আগে তাকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে। এর থেকে তার হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। পরে সংবাদ মাধ্যমে কথা বলার সময় সে জানায় যে, অপহরণ করার পর তাকে এক পরিত্যক্ত ক্ষেতের মধ্যে ছেড়ে দেওয়া হয় এবং তাকে বলা হয়, “তার আয়ু আর মাত্র ৭২ ঘণ্টা”।

এই রকম কার্যকরভাবে ভয় ছড়ানো সত্ত্বেও প্রতিবাদকারীরা সংগঠিত হবার চেষ্টা করে। ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্কয়ারে সমাবেত হওয়া উপর তোলা এই ভিডিওটই চলমান গাড়ি থেকে তোলা হয়েছে। এতে দেখা যাচ্ছে এমনকি নাগরিক সাংবাদিকরাও এই ঘটনার দৃশ্য ধারণ করার সময় কতটা শঙ্কিত ছিল।
http://www.youtube.com/watch?v=FKUfnLAOK1o

আরেকটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ঘটনাস্থলে এক তরুণ আহত হয়ে পড়ে আছে। তার দিকে তাকিয়ে থাকা উদ্বিগ্ন ব্যক্তিরা দুর থেকে পুলিশের সমালোচনা করছিল, যার শিরোনাম ছিল, “পুলিশ নির্মম, সারাগাদা ফ্যামিলিয়া, লুয়ান্ডা”।

পূর্ববর্তী প্রতিবাদ

মার্চ ২০১১ ইন্টারনেটের মাধ্যমে এক সফল প্রতিবাদের পরই এই প্রতিবাদ অনুষ্ঠিত হল।। কিন্তু শাসক দলের দমনের কারণে তা অসমাপ্ত রয়ে যায়, এবং এরপর মে মাসে আরেকটি প্রতিবাদ অনুষ্ঠিত হয়।

মে মাসে ইনডিপেন্ডেন্ট স্কোয়ারে যে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়, তার ভিডিও ভালোভাবে ধারণ করা হয়েছে। এখানে বক্তারা রাষ্ট্রপতির দুর্নীতি এবং জ্বালানী সম্পদের উপর তার নিয়ন্ত্রণের সমালোচনা করেছে।

মে মাসের প্রতিবাদে নানা পোশাকে সজ্জিত একদল মানুষ অংশগ্রহণ করে, এখানে তারা যে “এমপিএলএ নিপাত যাও নামক” নাচ নাচে, ভিডিওতে সেই দৃশ্য ধারণ করা হয়েছে।

পরবর্তীতে পুলিশের নির্মম হামলায় বিক্ষোভকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। যেমনটা এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, পুলিশ বিক্ষোভকারীদের তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে, তাদের কাউকে গ্রেফতার করছে এবং তাদের ইনডিপেন্ডেন্ট স্কয়ারে থেকে সরিয়ে দিচ্ছে। এবং একই সাথে তারা ক্যামেরাম্যানদের হুমকি দিচ্ছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .