বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সৌদি আরবঃ নতুন সন্ত্রাস বিরোধী আইন প্রতিবাদের জন্ম দিচ্ছে

কয়েকদিন আগে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ফাঁস হয়ে যাওয়া সৌদি আরবের এক নতুন সন্ত্রাস বিরোধী খসড়া আইন প্রকাশ করেছে । সংগঠনটি এক বিবৃতিতে , এই আইনকে বর্ণনা করছে এমন এক আইন হিসেবে, যার মধ্যে দিয়ে কর্তৃপক্ষ শান্তিপূর্ণ ভিন্নমতাবলম্বীদের কঠোর শাস্তি প্রদান করতে পারবে। এর সাথে তারা আরো যোগ করেছে এই আইনের ক্ষমতাবলে, যে বাদশাহ বা যুবরাজের সততার বিষয়ে প্রশ্ন তুলবে তাকে শাস্তি কমপক্ষে ১০ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হবে।

তাজা সংবাদ : সৌদি আরব, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিয়েছে
টুইটারের মাধ্যমে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল (@অ্যামনেস্টি ) এই সংবাদ সব জায়গায় ছড়িয়ে দেয়। যেখানে # সৌদিটেররল হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে অনেকে এই আইনের বিরুদ্ধে তাদের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে:

@এ্যামনেস্টি : গোপন নথি উন্মোচন করছে যে # সৌদি আরবের “সন্ত্রাস বিরোধী ” আইন শান্তিপূর্ণ ভিন্নমতাবলম্বীদের দমন করার এক আইন http://owl.li/5KS9Y

Twitter avatar saying "I'm patriotic, therefore I'm a terrorist", as posted by Lujayn Alyamani

সৌদি ব্লগার আহমেদ আল ওমরান (@ আহমেদ) এই নতুন খসড়া আইন সম্বন্ধে বেশ কিছু টুইট করেছে এবং লিখেছে :

@আহমেদ: আমি দেখতে পাচ্ছি অনেক সৌদি টুইটারকারী প্রস্তাবিত এই সন্ত্রাস বিরোধী আইনকে জরুরী আইন হিসেবে অভিহিত করছে ।”
@আল ফারহান বলছে, তারা উত্তর কোরিয়াকে নকল করার চেষ্টা করছে। ।

সৌদি ব্লগার ফুয়াদ আল ফারহান (@ আলফারহান )উল্লেখ করেছে যে সে নিজেও টুইটারের মাধ্যমে প্রস্তাবিত সন্ত্রাস বিরোধী আইনের বিষয়ে তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে এবং এর পরবর্তী টুইটে সে লেখক জর্জ অরওয়েল-এর বিখ্যাত উপন্যাস ১৯৮৪-এর কথা উল্লেখ করেছে:

@আলফারহান: ২০১১ হচ্ছে, আসলে আমাদের জন্য ১৯৮৪-এর বাস্তবতা #Saudi #সৌদি সন্ত্রাসআইন

সৌদি আইনজীবী ফাহাদ আলমালিকি (@এফআলমালিকি) নতুন আইনের মূল বিষয়টি তিক্ত এবং ব্যাঙ্গাত্মক স্বরে ব্যাখ্যা করেছে:

@এফআলমালিকি: প্রশ্ন : সংজ্ঞা প্রদান করুন: আমি বিরক্ত । উত্তর: আমি তা করতে পারি না । এর ফলে হয়ত আমাকে জেলে যেতে হতে পারে। আমি যা বলতে পারি তা হচ্ছে; আমি আসলে প্রায় সুখী এক ব্যক্তি।

সৌদি সাংবাদিক ইমাম আল–কাহতানি (@ইমাকিউএইচ) [আরবী ভাষায়] সৌদি অভিজাত সম্প্রদায়ের কাছে দাবী করেছেন যে তারা প্রস্তাবিত এই আইন যাতে পাস না হয়, তার উদ্যোগ নেয়:

واجب اخلاقي على النخب الثقافية والدينية المقربة من السلطة مناصحتها بخطورة النظام المزمع اصداره وتداعياته الخطيرة على الحريات

@ইমাকিউএইচ: যে সমস্ত বুদ্ধিজীবী এবং ধর্মীয় নেতারা কর্তৃপক্ষের ঘনিষ্ঠ, তাদের নৈতিক দায়িত্ব কর্তৃপক্ষকে বোঝানো যে এই আইন স্বাধীনতার জন্য কতটা বিপজ্জনক

সৌদি একটিভিস্ট ওয়ালেদ আবু আলখায়ের (@আবুআলখায়ের) [আরবী ভাষায়] এই ধরনের আইন অনুমোদন করার ক্ষেত্রে শুরা কাউন্সিলকে (ধর্মীয় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা) সতর্ক করে দিচ্ছে:

كمواطن سعودي أحمل أعضاء مجلس الشورى المسؤولية التاريخية الكاملة في تمرير نظام مكافحة الإرهاب الجديد

@আবুআলখায়ের : সৌদি আরবের এক নাগরিক হিসেবে আমি শুরার সকল সদস্যদের উপর এক ঐতিহাসিক দায়িত্ব প্রদান করছি, যেন তারা নতুন সন্ত্রাস বিরোধী আইন পাশ না করে।

সৌদি আরবের মহিলা টুইটারকারী লুজাইয়ানা আলইয়ামানি (@লুজাইয়ানা আলইয়ামানি ) [আরবী ভাষায়] এই আইন যে কতটা অগণতান্ত্রিক সে বিষয়ে তার ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন :

اسمعوا: هذا المشروع اغتصاب مشرع لأحلامنا! عار والله أن نعيش عراة من الأحلام لهذا الوطن

@লুজাইয়ানআলইয়ামানি: সকলে শুনুন, এটা এমন এক প্রকল্প যা বৈধ ভাবে আমাদের স্বপ্নকে ধর্ষণ করতে যাচ্ছে! এই দেশে আমাদের স্বপ্নকে নগ্ন করে বাস করা এক লজ্জার বিষয়।

সৌদি আরবের আরেকজন টুইটারকারী মউজ ধাহধাহ (@মউজএমবি) [আরবী ভাষায়] এই আইনের বিষয়ে এই সাধারণ চিত্র এঁকেছে:

باختصار “قانون طوارئ جديد”

@মউজএমবি : সংক্ষেপে বলা যায়, এক নতুন জরুরী আইন!

মাহা আলাসমারি (@মাহা_আলাসমারি ) [আরবী ভাষায়] ব্যাখ্যা করেছে কি ভাবে এই আইন দেশটির বাক স্বাধীনতাকে ধবংস করে ফেলবে:

ان طُبق هذا النظام سيأتي يوم يكون فيه وجود مُعتقل من كل عائله سعوديه بالسجون بتهمَه التعبير عن الرأي أمر طبيعي


@maha_alasmri
: যদি এই আইন প্রয়োগ করা শুরু হয়, তাহলে এমন একদিন আসবে যেদিন নিজস্ব মতামত প্রদান করার জন্য সৌদি আরবের সকল পরিবারের মধ্যে থেকে অনন্ত একজনকে জেলে যেতে হবে!

মোহাম্মাদ খেলাওইয়া (@খেলাওইয়া ) [আরবী ভাষায়] এই আইনকে এমন এক প্রতীক হিসেবে দেখছে, যা দেখে মনে হচ্ছে যে সৌদি শাসকরা আরব বিপ্লবের এই সময়ে তা থেকে কোন শিক্ষা গ্রহণ করেনি:

صاحب القانون لم يستوعب دروس الثورات العربية ونتائج القهر والظلم وامتهان الكرامة وغياب المعارضة الوطنية الشريفة

@খেলাওইয়া: যিনি এই আইনটি লিখেছেন তিনি আরব বিপ্লব এবং দমন, অন্যায়, অপমান এবং সত্যিকারের বিরোধী দলের উপস্থিতি সম্বন্ধে উপলব্ধি করতে পারেনি।

খেলাওয়াই এর সাথে আরো যোগ করেছেনঃ

كلنا ضد الأرهاب والأرهابيين ولكن استخدام قوانين جائرة بأسمة لتجريم وسلب حقوق المواطن المشروعة هو ارهاب ايضا


@খেলাওয়াই
: আমরা সকলেই সন্ত্রাসবাদ এবং সন্ত্রাসীদের বিপক্ষে, কিন্তু অন্যায় আইন নাগরিকদের বৈধ অধিকার কেড়ে নিতে যাচ্ছে। আর এই কাজটি করা হচ্ছে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের নামে। আর কাজটি নিজেই একটা সন্ত্রাসমূলক কাজ।

আরেকজন টুইটারকারী মাজেদ আলনিমার (@মাজেদআলনিমার ), এর সাথে বলছে :

@মাজেদআলনিমার : সৌদি সন্ত্রাস বিরোধ আইন সন্ত্রাসীদের বদলে সৌদি নাগরিকদের হত্যা করবে!

এই আইন যে কতটা ভয়ঙ্কর এবং সন্ত্রাসবাদকে মোকাবেলা করার ক্ষেত্রে সৌদি কর্তৃপক্ষ যে কতটা ভুল করেছে সে কথা জানিয়ে মোহাম্মাদ আল রাশেদ (@অনলাইনমারস ) [আরবী ভাষায়] টুইট করেছে :

عندما حاربت أمريكا وأوروبا الإرهاب حاربته خارجيا لتحمي داخلها. ونحن نحارب الإرهاب داخليا لنحمي من؟

@অনলাইনমারস : যখন আমেরিকা এবং ইউরোপ সন্ত্রাসবাদের সাথে লড়াই করে, তখন তারা বাইরের সন্ত্রাস থেকে নিজেদের রক্ষা করার জন্য তা করে, আর যখন আমরা অভ্যন্তরীণভাবে সন্ত্রাসবাদের মোকাবেলা করছি, তখন তা করছি কাকে রক্ষার জন্য?

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .