বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভেনেজুয়েলা: ব্লগের মাধ্যমে লোকশিল্প তুলে ধরা

ভেনেজুয়েলাতে লোকশিল্প বিভিন্ন সম্প্রদায়ের শৈল্পিক ভাবনার মৌলিক প্রকাশ যা মূলত: তাদের আশেপাশের সৌন্দর্যকে কেন্দ্র করে রচিত। আন্দেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পের ইতিহাসবিদ রিকার্ডো রুইজ লোকশিল্পকে পাঠক্রমের বা কোন নির্দিষ্ট কাঠামোর বাইরে হিসবে বলছেন এবং এগুলোকে বেশীরভাগ সময়ই “সরল” বা “গেঁয়ো” বলে অভিহিত করা হয় (পিডিএফ ফরম্যাটে)। সাধারণত: লোক সাহিত্যকে গ্রামীন সাহিত্য হিসেবে ধরা হয় এবং এর উদাহরণ হিসেবে অনেক ক্ষেত্রেই স্প্যানিশ সংস্কৃতি আগমনের পূর্বেকার শিল্পের উল্লেখ করা হয়। লোকশিল্পের অনানুষ্ঠানিকতার জন্যে একে অন্যান্য ধ্রুপদী শিল্প মাধ্যম থেকে কম গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। তবে রুইজ মনে করেন যে লোকশিল্পের বিষয়বস্তু, বিশেষ করে ভেনেজুয়েলার লোকশিল্পকে বুঝতে হবে একটি প্রকাশ হিসেবে যা রুপান্তরিত হতে থাকে এবং বিভিন্ন দিকে ছড়িয়ে যায়। এই সম্প্রসারণ ঘটে যে দিকে শিল্পীরা তাদের জীবন, সৌন্দর্য, ইতিহাস ও মৃত্যুর প্রকাশকে দেখাতে চায়। এবং এখন এই শিল্প অনলাইনে তুলে ধরা হচ্ছে যা এমন সব শিল্পরসিকদের কাছে পৌঁছাচ্ছে যা পূর্বে সম্ভব হত না।

লোকশিল্পী লুইস আকোস্তা একটি ব্লগ চালু করেছেন লোকশিল্পকে তুলে ধরতে এবং প্রকাশ করেছেন “শিল্পীর জন্যে একটি গাইড“। একজন শিল্পীর কাজের একটি উদাহরণ নীচের এই ভিডিওতে পাওয়া যাবে। আকস্তার বক্তব্য অনুসারে:

La mayoría de (estos artistas) no disponen de los recursos tecnológicos que provee internet para darse a conocer (…) Esta iniciativa es gratuita e independiente (y) está sustentada por el trabajo voluntario…

এই শিল্পীদের অধিকাংশেরই প্রযুক্তিগত সুবিধা নেই ইন্টারনেট ব্যবহার করে তাদের কাজের প্রচার করার ..(..}.. এই উদ্যোগ স্বাধীন এবং বিনামূল্যের এবং স্বেচ্ছাসেবী সহায়তা দ্বারা পরিচালিত।

আকস্তার আরেকটি প্রকল্পে দশজন শিল্পী একসাথে তাদের কাজ তুলে ধরছে অনলাইনে এবং আরাভানিতে একটি প্রদর্শনীর জন্যে। তাদের শিল্পকর্ম এই ভিডিওতে দেখা যাবে।

তার নিজের ব্লগে আকস্তা তার কাজ দেখাচ্ছে এবং তার সহশিল্পীদের ও তাদের কাজকেও তুলে ধরছে:

…me he dedicado al modelado en arcilla y a la pintura desde el año 1984 cuando vivia en caracas , mi ciudad natal, desde 1993 resido en valencia (Venezuela). La imaginería de las devociones religiosas populares de Venezuela , sus personajes típicos y figuras de nuestra historia, han sido los motivos de mi trabajo con la arcilla y la pintura durante estos años (…) en esta página quiero mostrar ese trabajo y también el de otros creadores y artistas populares de mi país y del mundo…

১৯৮৪ সাল থেকে আমি নিজেকে নিবেদিত করেছি মাটির কাজ ও চিত্রশিল্পে, যখন আমি আমার জন্মভূমি কারাকাসে বাস করতাম। ১৯৯৩ সাল থেকে আমি ভেনেজুয়েলার ভ্যালেন্সিয়া শহরে বাস করে আসছি। ভেনেজুয়েলার লোক ধার্মিকতা, ইতিহাসের বিভিন্ন চরিত্র ইত্যাদি আমার মৃৎ ও চিত্রশিল্প কাজের প্রেরণা ছিল। (..) এই পাতায় আমি আমার কাজ দেখাতে চাই এবং সাথে সাথে আমার দেশের ও বিশ্বের অন্যান্য লোকশিল্পীদের কাজও।
আমি আপনাদের চাঁদ এবং তারা দেব - ছবি লুইস আকস্তার, অনুমতিক্রমে ব্যবহৃত।

আমি আপনাদের চাঁদ এবং তারা দেব – ছবি লুইস আকস্তার, অনুমতিক্রমে ব্যবহৃত।

কারাকাস থেকে এলগার রামিরেজও লোকশিল্পীদের এবং তাদের কাজকে ব্লগের মাধ্যমে পরিচিত করছেন। তার ব্লগ আর্তেসেনিয়া অঁ তাপারাতে তিনি বিচি, কাঠ এবং লাউ দিয়ে শিল্পকর্ম তৈরি করা দেখাচ্ছে। রামিরেজ তার ব্লগের উদ্দেশ্য বর্ণনা করছেন।

…es promover y difundir a artesanos que elaboran piezas únicas e irrepetibles, de excelente calidad, en tapara, semillas, madera… Y con la posibilidad de contactarlos directamente.

…সেইসব শিল্পীদের তুলে ধরা ও প্রচার করা যারা লাউ, বিচি আর কাঠ দিয়ে মৌলিক, একেক এবং উচ্চমানের শিল্পকর্ম তৈরি করেন.. এবং তাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগের সুযোগ করে দেয়া।

এই ফটো অ্যালবাম ইয়ারিজা মোলিনার শিল্পকর্ম দেখাচ্ছে যিনি আরাগুয়া প্রদেশের পাওলো নেগ্রো কমিউনিটিতে লাউয়ের খোলা নিয়ে কাজ করেন।

এই সব উদ্যোগের মাধ্যমে লোকশিল্প এমন সব স্থানে বিচরণ করছে যা আগে সম্ভব হত না। যেসব শিল্পকর্ম লোকের শৈল্পিক নান্দনিকতা প্রদর্শন করে সেগুলো এখন সারা বিশ্বের লোক দেখার সুযোগ পাচ্ছে এইসব প্রযুক্তিগত সুবিধার জন্যে। পূর্বে এইসব শিল্পকর্ম যেইসব স্থানে তৈরি হত, তার আশেপাশেই শুধু পরিচিত হত। গত কয়েক বছর ধরে প্রযুক্তির সহায়তায় শিল্প এই পরিস্থিতির পরিবর্তন করতে পেরেছে। এটা সম্ভব যে এই সব মাধ্যম এমন সব শিল্পকর্ম এবং শিল্পীদের চিন্তাভাবনাকে ছড়িয়ে দিতে পারবে যারা ভেনেজুয়েলার বাইরে কম পরিচিত কিন্তু তারা দেশের জীবন ও জ্ঞানের কথা বলে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .