বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

যুক্তরাষ্ট্র: যৌন আর প্রজনন স্বাস্থ্য নিয়ে আলোচনা শুরু

প্লানড প্যারেন্টহুড (পরিকল্পিত অভিভাবকত্ব) নামে একটা অলাভজনক প্রতিষ্ঠান, যেটি আমেরিকা আর অন্যান্য দেশের তরুণ তরুণীদের বিনামূল্যে বা স্বল্পমূল্যে যৌন স্বাস্থ্যসেবা দান করে থাকে, একটা ইউটিউব প্রচারণা শুরু করেছে। প্রতিষ্ঠানটি মানুষকে উৎসাহিত করছে যৌন সংক্রামক অসুখ সম্পর্কে পরীক্ষার ক্ষেত্রে তাদের অভিজ্ঞতা আর চিন্তা সবাইকে জানানোর জন্যে। তারা যেন তাদের সন্তানকে যৌনতা সম্পর্কে শিক্ষা দান করে আর প্রজনন সম্পর্কিত অধিকার নিয়ে আলোচনা করে এ নিয়েও তারা কাজ করছে।

এমনকি আমেরিকাতেও, যেখানে গর্ভপাত আইনসম্মত (যদিও আক্রমণের সম্মুখে আছে), বেশ কিছু কঠিন বিষয় আছে যা খোলাখুলিভাবে মানুষের পক্ষে কথা বলা কঠিন। তাই হয়তো এটা অবাক হওয়ার ব্যাপার না, খুব বেশী ভিডিওর মাধ্যমে সাড়া আসেনি দর্শকদের কাছ থেকে যারা নিজেদের গল্প বলেছেন। তারপরেও ইউটিউবে খুঁজলে কয়েকটা ভিডিও পাওয়া যাবে সাধারণ মানূষের কাছ থেকে যারা এইচআইভি পরীক্ষা করতে তাদের অভিজ্ঞতা জানাচ্ছে, যার মধ্যে কেইশা ৭৭০ আছেন।

অনলাইন ভিডিওতে, প্লানড প্যারেন্টহুড কিছু উপকারী টিপস দিয়েছে কিভাবে আপনার বাচ্চার সাথে যৌনতা আর যৌন বিষয়ক কথা আলোচনা করবেন। আর এর সাথেই আছে অভিভাবক- বাচ্চার মধ্যে পরিকল্পিত কথোপকথন। নীচে মা আর মেয়ে হাইদি আর মারসেলা মোরালেস আলোচনা করেছেন কিভাবে তারা কিছু শিক্ষা তাদের পরিবারে কাজে লাগিয়েছেন।

আর এখানে, প্লানড প্যারেন্টহুড এর আর একটি ভিডিওতে আমেরিকানরা আলোচনা করছেন সহজলভ্য জন্মনিয়ন্ত্রন সম্পর্কে।

সেক্স এটসেটেরা নামক প্রতিষ্ঠানের এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে জোশ নামে নিউ ইয়র্কের একজন তরুণ তার প্রথম এইচআইভি পরীক্ষার জন্য যাচ্ছেন। এই প্রতিষ্ঠান তরুণদের মাধ্যমে অন্য তরুণদের যৌন স্বাস্থ্য সম্পর্কে তথ্য প্রচার করে।

মানুষকে যৌন স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে জানানোর জন্য নাগরিক মিডিয়া ভালো মাধ্যম হতে পারে, বিশেষ করে সঠিক তথ্যের অভাব যখন যৌন সংক্রামক অসুখ বাড়াতে পারে। অনাকাঙ্খিত কিশোর গর্ভধারন, বিপদজনক গর্ভপাত পন্থা, আর তার সাথে নারীদেরকে তাদের যৌনতা আর প্রজনন অধিকারের নিয়ন্ত্রন মানা করাও ইত্যাদি অনেক সমস্যার মধ্যে কিছু। এটা বিশেষভাবে আমেরিকায় থাকা কৃষ্ণাঙ্গ মহিলাদের জন্য, যাদের মধ্যে গর্ভপাত আর অনাকাঙ্খিত গর্ভধারনের হার সব থেকে বেশী। দু:খজনক যে নাগরিক মিডিয়াতে অনেক ভুল তথ্যও পাওয়া যায়, তাই তথ্যের উৎসকে ভালোভাবে যাচাই করতে হবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .