বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ক্যারিবিয়ান অঞ্চল: হারিকেন গুস্তাভ

Gustav
হারিকেন গুস্তাভ কিংস্টনে ধেয়ে আসছে – ছবি তুলেছেন ওয়েইন সাথারল্যান্ড, অনুমতি নিয়ে ব্যবহৃত।    ওয়েইনের আরও ছবি দেখুন এখানে

এখন সেই সময় – হারিকেনের ঋতু- এবং ২০০৮ সালে তিন মাসেই যে ঝড়ের মিছিল দেখা গেছে, তার মধ্যে গুস্তাভকে আলাদা করে চেনা যায়; এখন পর্যন্ত। এই ঝড়ের উৎপত্তি পোর্ট -অ-প্রিন্সের দক্ষিণ পূর্বে ছিল যা ২৬শে আগস্ট হারিকেনে রুপ নেয়। এই বায়ুঘুর্ণী বিভিন্ন ক্যারিবিয়ান অঞ্চল পার হয়ে হাইতি, ডোমিনিকান রিপাবলিক, জামাইকা, কেইম্যান আইল্যান্ডস এবং কিউবাতে আঘাত আনে এবং শেষে তা যুক্তরাষ্ট্রের দিকে অগ্রসর হয়।

ব্লগাররা যে কোন কিছু নিয়েই লেখার চেষ্টা করেছেন। মাইটি আফ্রোদিতি আসন্ন ঝড়টির জন্যে প্রস্তুতি নেয়ায় ব্যস্ত ছিল, বিশেষ করে তার স্মৃতিতে উজ্জ্বল ছিল কেইমানস আইল্যান্ডে চার বছর আগের হারিকেন আইভানের (বেদনাময়) অভিজ্ঞতা।

আমরা রুদ্ধশ্বাসে বসে ছিলেম তবে বিদ্যুৎ, পানি এবং অন্যান্য মৌলিক চাহিদাগুলো তখনও ঠিকমত কাজ করছিল। কিন্তু মনে মনে খারাপ কিছুর জন্যে প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। ফুঁসতে থাকা গুস্তাভ সামনের দিকে যখন এগুচ্ছিল, তার অনাকাঙ্খিত আগমনে সন্ত্রস্ত ও উদ্বিগ্ন হচ্ছিল মানুষ এবং আমার মনে হচ্ছিল.. ধুত্তোরি! আমি প্রচন্ড বিরক্ত এই হারিকেনের ব্যাপারটি নিয়ে।

গ্রেনাডা থেকে, ব্লাহ ব্লাহ ব্লগের চিন্তা হচ্ছিল দেশী অন্যন্য ব্লগারদের জন্যে:

স্টানার এবং ম্যাডবুল প্রার্থনা করছে। গুস্তাভ এখন জামাইকার উপর অবস্থান করছে এবং কেইম্যান্স আইল্যান্ডের দিকে আস্তে আস্তে সরে যাচ্ছে। সাবধানে থাক সবাই এবং জানাবে তোমরা ঠিক আছ কি না। এটা ভাবতে অবাক লাগছে যে গত শনিবার গ্রেনাডা অতিক্রম করার সময় গুস্তাভ একটি সাধারণ ঝড় ছিল।

এই ঝড়ের পথে থাকা সব দ্বীপগুলোই খারাপ কিছুর জন্যে তৈরি ছিল, তবে হাইতি সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পুজে এসপোয়া প্রতিদিনকার ছবি ব্লগে তুলে দিয়ে পাঠকদের পরিস্থিতি সম্পর্কে জানিয়েছে:

নদীগুলো বন্যার পানিতে উপচে পড়ছে এবং পাহাড়ের মাটি আর বৃষ্টির পানি শুষে নিতে পারছে না। আমরা শুনতে পাচ্ছি যে আরও লোক হাসপাতালে অসুস্থ শিশু নিয়ে হাজির হচ্ছে, এতে হয়ত তারা ক্ষেতের শষ্য রক্ষা করতে পারবে না তবে শিশুদের রক্ষায় সচেষ্ট তারা। হাইতিতে এই (দু:)সময় এটি না হলেই ভাল হত। খাদ্যদ্রব্য এবং তেলের দাম আকাশচুম্বী হয়েছে ফলে অস্থিতিকর রাজনৈতিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে যা যে কোন সময় সহিংসতার জন্ম দিতে পারে।

একদিন পরে আরও খবর আসা শুরু করে এবং তা আশা জাগানিয়া ছিল নাপুজে এসপোয়ার ছবি গুস্তাভের ধ্বংসযজ্ঞ সম্পর্কে ধারণা দেয়:

এই মাত্র আরও একটি ছোট আকারের ঝড় হল প্রচন্ড গতির বাতাস ও মুষল বৃদ্ধি সহকারে। অনেক বাড়ীঘর ধ্বংস হয়েছে; টনকে টন ক্ষেতের শষ্য প্লাবিত হয়েছে; ৬০ জনেরও উপরে হাইতিবাসী গত কয়েকদিনে মারা গেছে।  হাইতি এখন বাসী খবর কারন সবার দৃষ্টি এখন জামাইকা ও গুস্তাভের পরবর্তী গন্তব্যগুলোর দিকে।

জামাইকার নতুন সরকার, এর মধ্যে ব্যস্ত ছিল দেশের নাগরিককে জানাতে যে ঝড়কে মোকাবেলা করতে দেশের অত্যাবশ্যক সেবাগুলো তেরি। ইয়ার্ডফ্লেক্স লক্ষ্য করেছেন যে প্রধানমন্ত্রী এই ধারনাই পোষন করেছেন যে গুস্তাভ খুব বেশী ক্ষতি করবে না।

দুর্ভাগ্যবশত: তার ধারণা সত্যি হয় নি। জামাইকা জুড়ে ব্লগারার বন্যা, ক্ষয়ক্ষতি এবং হতাহতের খবর দেয়া শুরু করে। আবেঙ নিউজ ম্যাগাজিন জানিয়েছে যে নয়টি অসমর্থিত মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আ ফে মে পাজ দিস লিয়াহ ভেবেছেন ঝড়টি প্রচন্ড ক্ষোভের সাথে আঘাত হেনেছে। ফ্রান্সিস ওয়াডে বলেছেন যে এটি জামাইকাকে বেশ ভালভাবেই “নাড়িয়ে দিয়েছে”। এবং অ্যানি পল প্রথমে ভেবেছিল যে ঝড়টি একটি “নিতান্ত ভদ্র ঝড়”।

সে (গুস্তাভ) এখানে কয়েক ঘন্টা ধরে আছে। আমি ভয় পাচ্ছি না…এমিলি আর ডেনিসের সাথে তুলনা করে। অথবা আইভান। আইভান খুবই ভয়ানক ছিল।

তবে তার ভুল ভাঙ্গতে দেরী হয় নি:

ভদ্র ঝড়? আমি এত ভুল ভাবলাম! গুস্তাভ একটি মরণ ঘাতী ছিল, আস্তে আস্তে দেশটিকে গ্রাস করেছে যার ফলে নদীগুলোর তীর উপচে পানি ঘরবাড়ী ধ্বংস করেছে ও জীবন হানী ঘটিয়েছে। আইভানের সাথে তার প্রচণ্ড মিল।

হ্যালো ওয়ার্ল্ড ও বলেছেন যে তিনিও “গুস্তাভকে ভুল বুঝেছিলেন”, ওদিকে স্টানারের ক্ষোভ তার মনের অবস্থা জানাচ্ছে:

মনে হয়েছিল যে গুস্তাভ শুধু কিছু বৃষ্টি বয়ে আনবে এই দ্বীপে – তা কিভাবে পুরো বদলে গেল!

স্টানার সময় নিয়েছে (জামাইকার) রাজধানী কিংস্টনে ঝড়টি কি ক্ষতি করেছে তার ভিডিও আপলোড করতে। ওদিকে আ ফে মে পাজ দিস লিয়াহ ভাবছিলেন এই বন্যা যদি দেশের সব অপরাধীদের ভাসিয়ে নিত!

এর পরে উন্মোচিত হয়েছে ঝড়ের পরবর্তী বাস্তবতা, অ্যানি পল যাকে কাব্যরসে বর্ণনা করেছেন:

হারিকেন চলে যাওয়ার পর বাতাসে নবীন এবং বিশুদ্ধ কিছু একটা ছিল – বলোনা যে গুস্তাভ যখন এখানে ছিল ওটা হারিকেন ছিল না। এ যেন কাউকে উনিশ বছর বয়সী বলা যখন তার বিশ বছর হবে কালই। পরিবেশ মনে হচ্ছে পরিশুদ্ধ হয়েছে, গরম ও জলীয় বাস্পের আধিক্য কমে গেছে যা বেশ কয়েক মাস ভুগিয়েছে আমাদের। সুবাতাস থেমে থাকা বিপদের জানান দিচ্ছে এবং ভেজা মাঠে সূর্যের কিরণ ঝিলমিল করছে। (বব) মার্লীর প্রাকৃতিক সঙ্গীত যেন বাতাসে ভাসছে।

গুস্তাভ হাওয়ায় ভেসে চলে প্রায় একই ভাবে কেইম্যান্স আইল্যান্ড এবং কিউবার দিকে। কেইম্যান দ্বীপে মাইটি আফ্রোদিতি ঘরে বন্দী থাকার যন্ত্রণা ভোগ করছে এবং ম্যাড বুল তখনও উৎফুল্লচিত্তেই ছিল কারন তার “বিদ্যুৎ, পানি ও ইন্টারনেট কাজ করছিল।”

কিউবার ভাগ্য তেমন ভাল ছিল না। ব্ল্যাক শীপ অফ একজাইল খবর পেয়েছে যে “পাইন্স দ্বীপে ক্ষতির পরিমাণ ভাষায় বর্ণনা করা যাচ্ছে না”, ওদিকে হাভানা থেকে ব্লগার ইওয়ানি সানচেজ, যিনি কিউবার পান্ক রকার গোর্কীর গ্রেফতার এবং মুক্তির সর্বশেষ খবর পোস্ট করতে চেয়েছিলেন, পারেন নি ঝড়ের কারনে:

গুস্তাভের কারনে আবহাওয়ার যে পরিস্থিতি তাতে ইন্টারনেট সংযোগ পাবার জন্যে আমি বাড়ী থেকে বের হতে পারব না। আমার ব্যালকনিতে, ১৪ তালার উপরে, প্রচন্ড বেগে বাতাস বইছে এবং আমি সব জানালা বন্ধ করে দিয়েছি গাছগুলোকে বাঁচানোর জন্যে। আজকে আমাকে আরেকটি সাইক্লোনের মোকাবেলা করতে হবে।

আজ, হারিকেন গুস্তাভ লুইসিয়ানার উপর আঘাত হানছে এবং ত্রিনিদাদের প্রবাসী ব্লগার আফ্রোবেল্লা নিউ অরলিয়েন্সের জন্যে তার সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন:

এই সপ্তাহের শেষের ছুটির দিনগুলি জাজের স্বর্ণভূমির জন্যে একটি ভয়ানক স্মৃতির বার্ষিকী, এবং তিন বছর পরে প্রায় একই দিনে, ক্যাটেগরী চার হারিকেন গুস্তাভের হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে শহরব্যাপী পরিকল্পিতভাবে লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। আমি বুঝতে পারছি যে নিউ অরলিয়েন্সবাসীদের মনে কি ভীতি আর আবেগ কাজ করছে, যাদের কাছে (হারিকেন) কাটরিনার ধ্বংসজ্ঞ এক দু:স্বপ্ন হিসেবেই বিরাজমান। আমি নিউ অরলিয়েন্স থেকে অ্যালাবামা পর্যন্ত সবাইকে আমার সমর্থন জানাচ্ছি। বুদ্ধি রাখ, সাবধানে থাক সবাই আর আমাদের প্রার্থণা তোমাদের সাথে থাকবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .