বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ম্যাসেডোনিয়াঃ গ্রীসের সাথে উন্মুক্ত যোগাযোগে ব্লগারদের গুরুত্বারোপ

ন্যাটো ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে ম্যাসেডোনিয়ানদের প্রবেশ বন্ধ করার জন্য গ্রীকদের কার্যকলাপের কারণে অভ্যন্তরীণ অশান্তি এবং ম্যাসেডোনিয়ান ট্রাক ড্রাইভারদের উপরে গ্রীক জাতীয়তাবাদী হাঙ্গামাকারীদের (অফিসিয়াল প্রতিক্রিয়া) অব্যাহত আক্রমনের খবরের প্রেক্ষিতে অসংখ্য ম্যাসেডোনিয়ান ব্লগার দুই জাতির মধ্যে দূরত্ব ঘোচাতে সেতু তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছেন। অন্য দিকে কেউ গ্রীকদের মধ্যে ম্যাসেডোনিয়ানদের তথ্য সরবরাহের প্রয়োজনীয়তা চিহ্নিত করেছে এবং আবার কেউ ম্যাসেডোনিয়ানদের মাঝে গ্রীক মিডিয়ার তথ্য বিনিময়ের দায়িত্ব নিয়েছে।

নাম সমস্যা সমাধানে ম্যাসেডোনিয়ান ভাষা ও জাতিসত্তার উল্লেখও “সহায়ক নয়” বলে গ্রীক পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বক্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অনেক ব্লগার, তাদের ধারণায় এটা একটা জাতির সংস্কৃতি মুছে ফেলার ধারাবাহিক ষড়যন্ত্র। ঝারকো ট্রাজানোভস্কি সংশ্লিষ্ট ইউএস ডেপট. অব স্টেট ব্রিফিং এর সবচেয়ে আকর্ষণীয় অংশ (ম্যাসেডোনিয়ানে) তুলে ধরেছেন।

একই কারণে ডজন খানেক ব্লগার নিজেদের পোস্টে এবং ইউটিউবে পোস্টোজ্যাম (আমি বিদ্যমান) গানের ভিডিও পুনরায় প্রচার করছেন। ভিডিওটিতে ১৯৪৬-৪৯ সালে গ্রীসে সংগঠিত গৃহযুদ্ধের সময়ে ম্যাসেডোনিয়ান জাতি নির্মূলের তৎপরতার উপরে নির্মিত একটা ডকুমেন্টারীর কিছু দৃশ্য প্রদর্শন করা হয়। ভিডিও গানটির মানবতাবাদি কথা গুলো এমন, “আমি বিদ্যমান – সব কিছু ক্ষমা পায়ঃ এমনকি আমার জন্য তোমার অভিলাষও অবশিষ্ট নেই”।

এগনেস ব্লগের লেখক লিখেছিলেনঃ (ম্যাসেডোনিয়ানে)

পপ রক গায়ক মিইয়াত্তার গান পোস্টোজ্যাম-এর ভিডিওটি অফিসিয়ালি মুক্তি পাবার পর থেকে ব্যাপক প্রচার পেয়েছে এবং বিশ্বব্যাপী ম্যাসেডোনিয়ানদের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে। গানের কথা ইংরেজী অনুবাদ করতে ও বহিঃবিশ্বে প্রচারের আগ্রহও পরিলক্ষিত হয়। প্রাসঙ্গিকতা বিবেচনা না করেও ভিডিওটি একটা মন্তব্য প্রদানের জন্য মহামূল্যবান হয়ে ওঠে। ম্যাসেডোনিয়ান ইতিহাসের সে অংশের বিষয়ে যারা অবগত তারা চমৎকার অডিও ভিজুয়াল অভিব্যক্তির জন্য মিইয়াত্তাকে অভিনন্দিত করেছেন। আর যারা প্রথম বারের মত এই ছবি দেখেছে, তারা মনে করে এত কঠিন বেদনাদায়ক দৃশ্য সত্য হতে পারে না। কেউ বিশ্বাস করে এটা মনোযোগ আকর্ষণের একটা প্রচেষ্টা মাত্র। সব ধরণের নেতিবাচক ও ইতিবাচক মন্তব্য একই সঙ্গে শোনা যাচ্ছে। তবে আমার আনন্দ লাগছে এ জন্য যে পোস্টোজামের বিষয়ে নিঃস্পৃহ ব্যক্তির সংখ্যা খুবই কম।

এক হাতে দুঃখ ও নির্বাসনের প্রতিচ্ছবি, এবং অন্য হাতে ঐক্য ও গর্বের প্রতিকৃতি ম্যাসেডোনিয়াকে প্রকৃত অর্থে সঠিকভাবে রূপায়ন করে।

অতীতকে পুনঃজাগ্রত নয়, পেছনে ফেলতে হয়
আমরা পেছনে ফেলি
কিন্তু সর্বাগ্রে জানতে হবে
ম্যাসেডোনিয়ার জেগে থাকার কথা।

অন্য দিকে, ড্রুগারসে ব্লগ গ্রীক প্রেসের নিবন্ধ অনুবাদ করে পোস্ট দিয়েছে যার মধ্যে কার্টুনও (ম্যাসেডোনিয়ানে) আছে। কিছু ব্লগার গ্রীসের পত্রিকা ইলিফথেরোটাইপিয়াকে দেয়া, ম্যাসেডোনিয়ান পরিচালক মিলসো ম্যানসেভস্কির সাক্ষাৎকারের (গ্রীকে) প্রশংসা করেছেন, এবং এর ইংরেজী অনুবাদের লিংক পোস্ট করেছে। কেউ কেউ প্রাচীন বই (ম্যাসেডোনিয়ানে) এবং ওয়েস্টার্ন নিউজপেপার আর্কাইভ (ম্যাসেডোনিয়ানে) থেকে ঐতিহাসিক তথ্য ও একই সাথে গ্রীক পতাকার সম্ভাব্য উৎস তুলে ধরেছে (ম্যাসেডোনিয়ানে):

তবে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে তৃণমূল পর্যায়ে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য তথ্য বিতরণের প্রাথমিক বাহন হিসাবে ব্লগ প্রমানিত হয়েছে। গ্রীসের ৫০ জন শান্তিকর্মী ১৭মে নির্ধারিত এসকপজেতে সফরের খবর প্রভাবশালী ব্লগ ভুনা-তে প্রথম প্রকাশিত হয়েছেঃ

ম্যাসেডোনিয়ার জাতীয়তাবাদী অনুভূতির আগুন আরো ঘনীভূত করা বা দূতাবাস, সুপারমার্কেট অথবা যেখানে সেখানে পাথর ছোড়ার জন্য এ আহবান নয়।

বরঞ্চ এটা হচ্ছে সমস্ত পাগলামীর বিরোধীতাকারী একটা কার্যক্রমে অংশগ্রহণের আহবান। গ্রীসের নাগরিকরা প্রথমত ও সর্বাগ্রে মানব, এবং এদের বেশীরভাগেরই পশ্চাদ্ধাবনমূলক ও ফেসিস্ট রাষ্ট্রীয় নীতির সাথে সম্পর্ক নেই। হাইওয়েতে মানুষদের নাজেহাল করা মূঢ়দের অসভ্যতামীর সাথেও এদের কোন সম্পর্ক নেই। ম্যাসেডোনিয়ান নাগরিকরাও বুদ্ধু নয় যে গ্রীসের সবকিছুকেই ঘৃনা করবে এবং লিয়াজন অফিসে পাথর ছুড়ে মারতে মরিয়া হয়ে ওঠবে।
[….]

শান্তি, প্রেম, পরার্থপরায়নতা!

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .