বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

রাশিয়ার কেন্দ্রীয় রেজিস্ট্রিতে প্রথম বিদেশী বার্তাবাহী অ্যাপ যুক্ত

ছবি: পিক্সাবে, কেভিন রথরক সম্পাদিত

রাশিয়ার কেন্দ্রীয় সেন্সর রোস্কোমনাজোর প্রথমবারের মতো একটি বিদেশী – সুইস কোম্পানির – অনলাইন বার্তাবাহী এ্যাপ্লিকেশন ‘থ্রিমা’কে তার “তথ্য-প্রচারের সংগঠকের রেজিস্ট্রি”-তে যোগ করেছে

২০১৪ সাল থেকে রুশ সরকার “তথ্য প্রচার সংগঠিত” করা অনলাইন পরিষেবাগুলোর একটি তালিকা তৈরি করতে সমর্থ হয়েছে। আজ এই তালিকাটিতে ভিকন্টাক্টে এবং ওদনোক্লাস্নিকি’র (রাশিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় দু’টি সামাজিক নেটওয়ার্ক) মতো ওয়েবসাইট, ইমেজ বোর্ড ২সিএইচ.এইচকে, ই-মেইল ক্লায়েন্ট মেইল.আরইউ এবং আরো কয়েক ডজন পরিষেবা অন্তর্ভুক্ত।

সব রুশ ব্যবহারকারীদের মেটাডাটা (“ধ্বনি-উপাত্ত [ভয়েস ডেটা], লিখিত টেক্সট, ছবি, শব্দ অথবা অন্যান্য ধরণের কর্মের আগমন, সঞ্চালন, বিতরণ, এবং প্রক্রিয়াকরণ সম্পর্কে তথ্য”) সংরক্ষণ এবং এগুলোতে রুশ কর্তৃপক্ষের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার দাবি করা কেন্দ্রীয় আইনের একটি স্তবকের পরেই তালিকাটি উপস্থাপন করা হয়েছে। তাদের গোটা তথ্য প্রবাহে রুশ কর্মকর্তাদের অবাধ সার্বক্ষণিক প্রবেশাধিকার দিতে পারলে ওয়েবসাইটগুলো এই তথ্যগুলো আলাদা করে রাখার ঝামেলাটি এড়াতে পারবে।

গত বছর “তথ্য-প্রচারের সংগঠকদের” সরকারের সঙ্গে বাধ্যতামূলকভাবে ভাগাভগি করার বিষয়াদিকে নাটকীয়ভাবে বিস্তৃত করে ভ্লাদিমির পুতিন একটি নতুন আইন স্বাক্ষর করেছেন। ১ জুন, ২০১৮ তারিখ থেকে রেজিস্ট্রিভুক্ত যে কোন ওয়েবসাইটকে রুশ ব্যবহারকারীদের – তাদের সঙ্গে যোগাযোগকারীদের গুলোসহ – সব উপাত্তে রুশ কর্তৃপক্ষের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে হবে। উপরন্তু এসব ওয়েবসাইটকে রুশ ফেডারেশনের ভিতরে অবস্থিত সার্ভারগুলোতে এই তথ্য সংরক্ষণ করতে হবে।

৯ মার্চ, বৃহস্পতিবার রস্কোমনাজোর তার রেজিস্ট্রিতে সুইজারল্যান্ড-ভিত্তিক একটি মালিকানাধীন সংকেতায়িত বার্তাবাহী অ্যাপ্লিকেশন থ্রিমা যোগ করেছে। আরইউনেট ইকো-কে দেয়া এক বিবৃতিতে কোম্পানিটির একজন মুখপাত্র বলেছেন রস্কোমনাজোর কিছু মৌলিক তথ্যের জন্যে একটি অনুরোধ করে থ্রিমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে, তবে রুশ আইনে উল্লিখিত রাশিয়ার সেন্সরের গুরুভার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে কিছুই বলেনি:

রস্কোমনাজোর রাশিয়ার ব্যবহারকারীদের কাছে আমাদের পরিষেবা প্রদান অব্যাহত রাখার জন্যে আমাদেরকে তাদের রেজিস্ট্রির জন্যে আমাদের কোম্পানীর নাম/ ঠিকানা এবং ওয়েব ডোমেইনের নাম চেয়েছিল, যেগুলো আমরা দিয়ে দিয়েছি।

আমরা সংরক্ষণ, সংগ্রহ, বা তথ্য প্রদানের কোন প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে অবহিত নই এবং অবশ্যই সেরকম কিছু করবো না। আমরা সুইস আইন অনুযায়ী কাজ করি এবং আমাদের বিদেশী কর্তৃপক্ষগুলোকে আমাদের ব্যবহারকারীদের সম্পর্কে কোন তথ্য প্রদান করার অনুমতি নেই এবং করতেও ইচ্ছুক নই।

রাশিয়াতে ইন্টারনেটের স্বাধীনতা নিরীক্ষণ করা সংবাদ সাইট আরইউব্ল্যাকলিস্ট.নেট অনুসারে থ্রিমা তালিকাটিতে অবতরণ করা প্রথম বিদেশী অনলাইন বার্তাবাহক এবং এটি ২০১৭ সালে রেজিস্ট্রিতে যোগ করা প্রথম ওয়েবসাইট। রস্কোমনাজোর বর্তমানে ৭৩টি বিভিন্ন ওয়েবসাইট এবং অনলাইন পরিষেবাকে “তথ্য-প্রচারের সংগঠক” হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান করেছে।

২০১৬ সালের জুন মাসে সেন্ট পিটার্সবার্গের সংবাদ সাইট ফন্টানকা.আরইউ জানিয়েছে যে রুশ সরকারি কর্মকর্তা এবং প্রধান ব্যবসায়ীদের মধ্যে থ্রিমা জনপ্রিয়তা অর্জন করছে। “বিশ্বের প্রিয় নিরাপদ বার্তাবাহক” বলে দাবি করা করা অ্যাপ্লিকেশনটি একটি অ্যাকাউন্ট নিবন্ধন করার জন্যে এর ব্যবহারকারীদেরকে এমনকি কোন ফোন নম্বর বা ইমেল ঠিকানার প্রয়োজনীয়তা ছাড়াই পরিপূর্ণ বেনাম সুবিধার প্রস্তাব দিয়ে থাকে। ২০১৫ সালে বিদেশী প্রতিষ্ঠান সিএন ল্যাব কোম্পানীটিতে একটি নিরাপত্তা নিরীক্ষা চালালেও এটি প্রকাশ্য পর্যালোচনার জন্যে তার পূর্ণ কোড প্রকাশ করেনি।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .