বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ক্রেমলিনের ভেতর থেকে চুরি করা উপাদানের সাথে পরিচিত হউন

Images edited by Kevin Rothrock.

ছবি সম্পাদনা করেছে কেভিন রুথরক

শালতাই বোলতাই (একই সাথে যারা অ্যানোনিমাস ইন্টারন্যাশনাল নামে পরিচিত) নামে পরিচিত রুশ ইন্টারনেট হ্যাকার দল আরো একবার হামলা চালিয়েছে, এবার তারা ক্রেমলিনপন্থী তরুণ দল নাশির প্রাক্তন মুখপাত্র এবং বর্তমানে রাশিয়ার সিভিক চেম্বারের সদস্যা ক্রিষ্টিনা পটাপচিকের বিষয়ে আরো ক্ষতিকারক তথ্য প্রকাশের প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছে। শালতাই বোলতাই মূল্যবান এক গুচ্ছ ইমেইল ফাঁস করে দিয়েছে, অভিযোগ রয়েছে যা পটাপচিক এবং ক্রেমলিনের কর্তা ব্যক্তিদের মাঝে আদান প্রদান করা হয়েছে, যাতে প্রদর্শিত হয়েছে যে সে নিয়মিত ভাবে প্রভাবশালী ব্লগার এবং স্বাধীন সাংবাদিকদের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিষয়ে নিয়মিত সংবাদ প্রদান করে গেছে।

এই সমস্ত ইমেইল বিভিন্ন বিষয় নিয়ে, তবে এতে মূলত পুতিনের বিরোধীতাকারী, তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ, এবং একই সাথে রাশিয়ার স্যোশাল মিডিয়ার প্রচলিত রাজনৈতিক ধারা এবং রাজনৈতিক সাংবাদিকতা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

একেবারে সাম্প্রতিক যে সমস্ত ইমেইল ফাঁস হয়েছে, সেগুলো মাত্র কয়েক সপ্তাহ পুরোনো, আর মধ্যে একটি মেইল রয়েছে যা ১৬ ডিসেম্বর-এ পাঠানো হয়েছে, এই সকল মেইলে পটাপচিক–কোন এক কারণে আনা ভেদুতা (বিরোধী নেতা আলেক্সি নাভালনেই-এর প্রাক্তন প্রেস সেক্রেটারি) নামে লিখেছে- এই মেইলে রুবেলের পতনের পরে রুনেট-এর সাধারণ আবেগের সে এক সারসংক্ষেপে তুলে ধরে। তার এই সারাংশে, পটাপচিক সেই দিনের কয়েকটি জনপ্রিয় মীম যুক্ত করে এবং ব্লগার মাক্সিম কাটজ এবং বিরোধী নেতা বোরিস নেমতসোভ-এর মত প্রখ্যাত কিছু ব্যক্তির মতামতের প্রতি মনোযোগ আকর্ষণ করেছে।

তার এই সংবাদে, পটাপচিক ওয়েব এবং মিডিয়ায় কি ঘটছে সে বিষয়ে কেবল এক সারমর্ম তৈরি করে কাজ শেষ করেনি-সাথে সে ক্রেমলিনের রাজনৈতিক প্রচারণা প্রচেষ্টায় নতুন কিছু নীতির বিষয়ে পরামর্শ প্রদান করেছে। যেমন সে ব্লগপোস্ট, টুইট এবং এমনকি হ্যাশট্যাগে বিভিন্ন প্রচারণার সমন্বয়ের প্রস্তাব করেছে। ১৬ ডিসেম্বরে, রুবেল সঙ্কটের প্রতিক্রিয়ার সংবাদে সে রাশিয়ার বর্তমান সঙ্কটের ক্ষেত্রে “আবেগীয় দৃষ্টিভঙ্গির” প্রতি গুরুত্ব প্রদান করেছে:

Также разумно сделать акцент на эмоциональном аспекте. А именно, следует утверждать, что паника и обвинения в адрес руководства страны в допущении сложившейся ситуации лишь ухудшают ее. Вместе с тем та часть населения, которая в свое время заявляла о готовности терпеть некоторые лишения после присоединения Крыма, сегодня должна отчетливо осознавать, что все происходящие на валютном рынке изменения – результат давления Запада, недовольного тем, что Россия – самостоятельное государство, “посмевшее” претендовать на роль лидера в Евразии и диктовать свое суверенное мнение международному сообществу. Перед лицом трудностей каждый из нас должен отбросить панику и начать больше работать, больше учиться и больше делать для своей страны. Вместе с тем стоит отметить, что Россией руководят не новички и не профаны, и все необходимое для решения ситуации будет сделано в ближайшее время.

আবেগীয় দৃষ্টিকোনের প্রতি মনোযোগ প্রদান করাও যৌক্তিক এক বিষয়। যেমন উদাহরণ স্বরূপ বলা যায়, এই বিষয়ের উপর জোর দেওয়া জরুরী যে এই ধরনের আতঙ্ক এবং পরিস্থিতি ঘটতে দেওয়ায় জাতির নেতাদের দোষারোপ করা, বিষয়টিকে কেবল আরো খারাপের দিকে নিয়ে যাবে। একই সময়ে, যারা পূর্বেই ঘোষণা প্রদান করেছে যে ক্রিমিয়াকে পাওয়ার জন্য কিছু সমস্যা সহ্য করতে রাজী, তাদের স্পষ্টত বোঝা দরকার যে আজকের দিনে মুদ্রা বিনিময় বাজারে যা ঘটে তা পশ্চিমা চাপের ফল- আসলে পশ্চিমের ক্ষোভের কারণ হচ্ছে এই যে, রাশিয়া এক স্বাধীন রাষ্ট্র যার ইউরোএশিয়ার নেতা হবার দুঃসাহস রয়েছে এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মতে সে তার নিজের স্বাধীনতার নির্দেশক। এই রকম এক কঠিন পরিস্থিতির মুখে, আমাদের সকলকে এই ধরনের আতঙ্ককে প্রত্যাখান করতে হবে এবং এমনকি আরো বেশী কাজ, আরো বেশী লেখাপড়া, এবং এমনকি আমাদের দেশের জন্য আরো বেশী কিছু করতে হবে। তবে নাগরিকদের এই বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দেওয়া উচিত যে রাশিয়ার নেতারা রাজনীতিতে নবীন কোন শিক্ষার্থী নয় এবং এই সমস্যা সমাধানে যা যা করা উচিত শীঘ্রই তা করা হবে।

১৭ ফেব্রুয়ারিতে পাঠানো এক ইমেইল তার কাজের এক তালিকা প্রকাশ পেয়েছে, যা সে আগের সপ্তাহে করেছিল, যার মধ্যে বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারিতে পাঠানো মেইলে তার এই কাজের তালিকা যুক্ত রয়েছে:

রাশিয়ার বর্তমান অর্থনৈতিক দুরবস্থার মত বাস্তবতা প্রেক্ষাপটে রুবেলের এই পতন নিয়ে পটাপচিক-এর পাঠানো সংবাদ সম্ভবত–এক অস্বাভাবিক উদাহরণ, যা তার কাজের ধরনের মধ্যে পড়ে না। ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে পাঠানো এক ইমেইল আমাদের ধারণা প্রদান করে, তার নিয়মিত কাজ কি ধরনের হতে পারে:

1. Отработали в блогах и в твиттере тему критики Шендеровича и радиостанции “Эхо Москвы”. По данной теме вывели в мировые и российские тренды. хештег #МатрасноеРадио
2. Отработали в блогах и в твиттере тему критики партии Навального
3. На сайте о слухах вокруг Олимпиады в Сочи на русском и английском языке http://gossipsochi.ru http://gossipsochi.com
опубликованы 16 мифов с опровержениями. Русскоязычную версию сайта посмотрели более 130 000 раз, а английскую – 89 100 раз
Пост о проекте вышел в топ ЖЖ

১. ব্লগ এবং টুইটারে আমরা সেনডেরোভিচ এবং “ ইকো অফ মস্কোর” জন্য বিভিন্ন সমালোচনা মূলক লেখা তৈরী করলাম।#ম্যাট্রেসরেডিও হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে আমরা বিশ্ব এবং রুশ টুইটার জগতে আলোচিতীক ধারায় পরিণত হয়েছি [এখানে ইকোর কলাম লেখক ভিক্টোর সেনডেরোভিচ-এর বিরুদ্ধে আনা বিচিত্র এক যৌন কেলেঙ্কারির বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে] ।
২. ব্লগ এবং টুইটারে, নাভালনেই-এর রাজনৈতিক দলের বিভিন্ন সমালোচনা মূলক লেখা তৈরী করলাম।
৩. শোচি অলিম্পিককে নিয়ে ছড়িয়ে পড়া গুজবের বিষয়ে রুশ এবং ইংরেজি ভাষার এক ওয়েব সাইটে আমরা এই গেমসের ক্ষেত্রে তৈরী হওয়া ১৬টি অতিকথন খণ্ডন করলাম।[ এই সব মীথ বা অতিকথনে বর্ণনা করা হয়েছিল যে আয়োজক হিসেবে রাশিয়া দুর্বল]। এই ওয়েব সাইটের রুশ সংস্করণ ১৩০,০০০ বার দেখা হয়েছে এবং এর ইংরেজি সংস্করণ ৮৯,১০০ বার দেখা হয়েছে। এই প্রকল্প বিষয়ক একটি পোস্ট লাইভ জার্নালে সেরা পোস্টের তালিকায় পৌঁছায়।

শালতাই বোলতাই এর আগেও পটাপচিককে লক্ষ্যবস্তু হিসেবে বেছে নিয়েছিল, সেবার তারা পটাপচিকের একটি ছবি ফাঁস করে দেয়, যেটিতে তাকে এক ব্যাগের পেছনে দাঁড়ানো অবস্থায় দেখা যায়, সন্দেহ করা হয় যে সেটি ছিল এক টাকার ব্যাগ।এছাড়াও, ২০১৩ সালে আরো বেশী প্রথাগত হ্যাকার “অ্যানোনিমাস”, পটাপচিককে তাদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করে যারা তার মেইলের ভাণ্ডারে (ক্যাশে) রাখা সব গোপনীয় তথ্য ফাঁস করে দেয়, তবে উক্ত “অ্যানোনিমাস” নামক হ্যাকারের দল, শালতাই বোলতাই-কিংবা কিংবা তাদেরকে অবজ্ঞাভরে যে নামে ডাকা হয় সেই “অ্যানোনিমাস ইন্টারনাশনালের” সাথে সম্পৃক্ত নয়।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .