বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

রাজনৈতিক ভাবে বিভক্ত পাকিস্তান এক হয়ে আহত ইমরান খানের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে

জনপ্রিয় ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদে পরিণত হওয়া ইমরান খানের আশাবাদী প্রচারণা, নতুন এক নতুন পাকিস্তানের প্রতিশ্রুতি প্রদান করছে, আর দেশটির আসন্ন সাধারণ নির্বাচনে ,তার র‍্যালি বিপুল সংখ্যক তরুণ এবং শহুরে ভোটারদের আকৃষ্ট করেছে, তার এক নির্ধারিত বক্তৃতার আগে ১৫ ফুট উচু ফর্ক লিফট থেকে পড়ে সেই ইমরান খানের শিরদাঁড়ার তিনটি এবং পাঁজরের এক হাড় ভেঙে যায়।
লাহোরের এক র‍্যালিতে অংশগ্রহণ রত অবস্থায় এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার পর দ্রুত তাঁকে শওকত খানম মেমোরিয়াল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কয়েক ঘণ্টা পর ইমরান খানের জ্ঞান ফিরে আসে এবং তিনি সে অবস্থায় তার বিছানার পাশে থাকা সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য এক শক্তিশালী রাজনৈতিক ভাষণ প্রদান করতে সক্ষম হন

যখন ১১ মে ২০১৩ তারিখে দেশটির উত্তপ্ত এক রাজনৈতিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, সেখানে তার এই নাটকীয় ভাবে ঝুলন্ত মঞ্চের উপর থেকে পড়ে যাওয়া ঘটনাটি ঘটল তার চুড়ান্ত প্রচারণার ঠিক আগে। ইমরান খান পাকিস্তান-এর তেহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) নামক রাজনৈতিক দলের প্রধান। রাজনীতিতে নবাগত হলে আসন্ন নির্বাচনে তিনি জনতার প্রতিনিধিত্বের ক্ষেত্রে শক্তিশালী এক প্রার্থী হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।

তবে দেশটির তিক্ত রাজনীতির মাঝে এই বিস্ময়কর দুর্ঘটনায় দেশ জুড়ে বিভক্ত রাজনীতিতে, রাজনৈতিক শত্রু, সমালোচক, এবং প্রতিপক্ষরা নিজেদের মতপার্থক্য ভুলে ইমরান খানের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।

the incident

উঁচু এক মঞ্চ থেকে ইমরান খানের পতন
ছবি পিটিআই ইউকে-এর নিজস্ব ফেসবুকের পাতার সৌজন্যে।

দ্রুত এই সংবাদ সকল টিভি চ্যানেলের শিরোনামে পরিণত হয় এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষয়টি গুঞ্জরিত হতে থাকে এবং সকল প্রকার রাজনৈতিক ব্যক্তি, ইমরান খানের অন্যতম প্রতিপক্ষ নাওয়াজ ও শাহবাজ শরীফ থেকে শুরু করে ক্রিকেটার ব্রায়ান লারার মত তারকাও ইমরান খানের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন।

৮ মে ২০১৩ তারিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার ব্রায়ান লারা (@ব্রায়ান লারা) তার একাউন্ট থেকে টুইট করেন:

@ব্রায়ান লারা: উপর থেকে পড়ে গিয়ে ইমরান খান আহত হয়েছে……এখন তার অবস্থা শঙ্কামুক্ত…ইশ্বরকে ধন্যবাদ !!! অসাধারণ এই মানুষটি দ্রুত সুস্থ্য হয়ে উঠুন, এবং তিনি নিজে যা বিশ্বাস করেন তা নিয়ে ক্রমাগত লড়াই চালিয়ে যান।

পাকিস্তান মুসলিম লীগের নেওয়াজ (পিএমএল-এন) নেতা শাহবাজ তার ফেসবুকের পাতায় পোস্ট করেছে:

এইমাত্র হাসপাতালে ইমরান খানকে দেখে এলাম এবং তাঁকে মিয়া নাওয়াজ শরীফের শুভ কামনা পৌছে দিয়ে এলাম–আলহামদুলিল্লাহ তিনি ভালো আছেন এবং মাশাল্লাহ তিনি দ্রুত সুস্থ্য হয়ে উঠছেন। ইমরান খান ও তার পরিবারের জন্য প্রার্থনা!!!

পাকিস্তান মুসলিম লীগ –নেওয়াজ (পিএমএল-এন) দলের প্রধান নাওয়াজ শরীফের মেয়ে মারিয়াম নাওয়াজ শরীফ (@মারিয়ামএনশরীফ), একই আবেগের প্রতিধ্বনি করেছেঃ

@মারিয়ামএনশরীফ: নির্বাচনী প্রচারনার সময় এই বাজে সংবাদ পেলাম, ইমরান খান সাহেবের প্রতি দোয়া এবং শুভ কামনা রইল, আর তার দ্রুত ও সম্পূর্ণ সুস্থ্যতা কামনা করছি।

Imran Khan has been injured after a fall at a political rally in Lahore. The aftermath of his accident attracted strong sympathy from around the world with hundreds of people gathering outside the Shaukat Khanum Hospital where he was being treated. Image by Saad Sarfraz Sheikh. Copyright Demotix (8/5/2013)

যেখানে ইমরান খানের চিকিৎসা হচ্ছে সেই শওকত খানম মেমোরিয়াল হাসপাতালের বাইরে শত শত মানুষ জড়ো হয়েছে। ছবি সাদ সারফাজ শেখ–এর। কপি রাইট ডেমোটিক্সের (৮/৫/২০১৩)।

ডাক্তার তাহিরুল কাদরি (@তাহিরুল কাদরি), যিনি সদ্য ক্ষমতা থেকে বিদায় নেওয়া পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি)-বিরুদ্ধে উল্লেখযোগ্য সংখ্যাক জনতার এক বিক্ষোভ সমাবেশের নেতৃত্ব প্রদান করেন। এই ঘটনায় তিনি বিবৃতি প্রদান করেছেন:

@তাহিরুল কাদরি: পিটিআই–এর চেয়ারম্যান আহত ইমরান খানের জন্য আমার হৃদয়ের অন্তস্থল থেকে সহানুভূতি রইল। আমি তার আরোগ্য কামনায় প্রার্থনা করছি।

বিদায়ী পিপিপি মন্ত্রীসভার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেহমান মালিক (@সেনরেহমানমালিক), টুইট করেছেন:

@সেনরেহমানমালিক:আমি ইমরান খানের দ্রুত আরোগ্যের জন্য প্রার্থনা করছি, আল্লাহ যেন তাকে দ্রুত সুস্থ্য করে তোলেন।

পাঞ্জাবে, ইমরান খানের দলের সাথে পাকিস্তান মুসলিম লীগের (পিএমএল-এন)। তিক্ত সম্পর্ক সত্ত্বেও দলটির প্রধান নেওয়াজ শরীফ এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন এবং ইমরান খানের প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করার উদ্দেশ্য নিজ দলের নির্বাচনী প্রচারণা একদিনের জন্য স্থগিত করেছেন।

অনেকে দাবী করছে এই পতনের মধ্যে দিয়ে ইমরান খান দেশটিকে একতাবদ্ধ করেছে। এই ঘটনায় হাম্মাদ সিদ্দিকি (@হাম্মাদস) একটি লেখা লিখেছে, উক্ত লেখায় সে একই সাথে পাকিস্তানের রাজনীতিবিদদের ক্রমশ চেতনাসম্পন্ন হওয়ার বিষয়টি সম্বন্ধে ধারনা প্রদান করেছে:

@হাম্মাদস:আলতাফ ভাই প্রথম ব্যাক্তি যিনি এই ঘটনায় তার ভাষণ প্রদান অনুষ্ঠান বাতিল করেন এবং ইমরান খানের জন্য প্রার্থনা করেন– নাওয়াজ শরীফ তাকে অনুসরণ করেন, যা রাজনৈতিক নেতাদের পরিণত চিন্তার এক মানুষে পরিণত হওয়ার বিষয়টি প্রদর্শন করে।#গেট ওয়েল সুন ইকে

এই ঘটনায় ইমরান খানের রাজনৈতিক দল ব্যাপক জনসমর্থন এবং সহানুভূতি অর্জন করে, অনেক ধারনা করছে যে ঘটনাটি দলের প্রতি সহানুভূতি জাগিয়ে তার আসন সংখ্যা পাল্টে দিতে পারে। হাসান বেলাল জায়েদি (@মাইটি অভিয়াস_), এক প্রচারমাধ্যম উপদেষ্টা, তিনি পাকিস্তানের ভোটারদের জন্য “ ফল টু গ্রেস নামের” একটি পোস্ট লিখেছেন, তার এই পোস্টে তিনি লিখেছেন :

সত্য হচ্ছে এই যে, ইমরান হয়ত এইবার জয়ী হবেন। অনেক আগে থেকে আমি ক্রিকেট ব্যাটের বিজয়ের গন্ধ পাচ্ছি, এটা হয়ত বিশাল কোন জয় নয়, এটা হয়ত কোন নিয়মিত কোন জয় নয়, তবে এটা প্রথমবার কোন দলের জন্য কোন এক জয়, তবে সুনিশ্চিত ভাবে এটা একটা জয়। আমি কেবল আশা করতে পারি (আমাকে শব্দের দ্বৈততার জন্য ক্ষমা করবেন) মস্তিস্কের এই আঘাত হয়ত আমাদের দেশের অনেক প্রয়োজনের মাঝে এক জেগে ওঠার আহবান। আমি তেহরিকে ইনসাফ নামক দলটিকে সমর্থন করি না, আর আমি তাদেরকে ভোট প্রদান করব না। কিন্তু আমি তাদের দল এবং তাদের নেতার সৌভাগ্য কামনা করি।

যখন অনেকে ডানপন্থীদের সাথে সখ্যতার জন্য ইমরান খানের সমালোচনা করে, সেক্ষেত্রে তার এই দূর্ভাগ্যজনক পতন আরো একবার এই বাস্তবতাকে তুলে ধরছে যে ইমরান খান রাজনৈতিকভাবে জাতির হাল ধরে, দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন, বিশেষ করে তরুণদের। আর যখন সবকিছু বলা এবং করা হয়েছে, এই ধরনের একত্রিত হবার ঘটনা হবে নবীন এক গণতন্ত্রের জন্য এমন এক পরিবর্তন যাকে জোরালোভাবে স্বাগত জানানো যায়।

এই পোস্টে মন্তব্য বন্ধ করা হয়েছে।