বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কলম্বিয়া: চিত্রশিল্পী এবং ভাস্কর ফার্নান্ডো বতেরো তার ৮০ তম জন্মদিন উদযাপন করলেন

কলম্বীয় চিত্রকর ও ভাস্কর ফার্নান্ডো বতেরো তার ৮০ বছর বয়স উদযাপন উপলক্ষ্যে একাধিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করছেন। ১৯ এপ্রিল, ২০১২ তারিখে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন হবে। এন্টিকুইয়া জাদুঘরে তার অনুদানের বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে, “স্টেশনস অব দা ক্রসঃ “দি প্যাশন অব ক্রাইস্ট” শিল্পকর্ম এবং তার নিজ শহর মেডেলিনের ভাস্কর্য “দি ক্যাট”-এর জন্য সরকারি অনুদান সংগ্রহের উদ্দেশ্যে পবিত্র সপ্তাহ শুরুর আগে সরকারি ও বেসরকারি প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।

স্টেশনস অব দা ক্রস: “ দি প্যাশন অব ক্রাইস্ট” শিল্পকর্মটি ২৭টি তৈলচিত্র এবং ৩৩টি ড্রইং এর সমন্বয়ের এক শিল্প- যা ২০১০-এ সমাপ্ত হয়। নিউইয়র্কের ম্যানহ্যাটানের মার্লবোরো গ্যালারিতে প্রথম প্রদর্শনীর পর চিত্রকর্ম প্রদর্শনীর জন্য মেডেলিনে নিয়ে আসা হয়। সাংস্কৃতিক ও একাডেমিক বিষয় আলোচনা, কনফারেন্স,প্যানেল আলোচনা এবং অডিওভিজুয়াল প্রক্ষেপণের মাধ্যমে শিল্পী ও তার শিল্পকর্ম সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মার্লবোরো প্রদর্শনী এ বছর আগস্ট পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে।

ফার্নান্ডো বতেরো, উইকিমিডিয়া কমন্স ( সিসি বাই ২.০)

বতেরোর মতে “স্টেশনস অব দা ক্রস” , “আধুনিক শিল্পীর চোখে তার কাজে মা এবং তার সন্তানের[স্প্যানিশ ভাষায়]” মধ্যে যে সুনির্দিষ্ট স্বাধীনতা থাকে তাকে উপস্থাপন করেছে। কোন বিদ্রুপাত্মক উপাদান ছাড়াই তিনি ‘স্টেশনস অব দা ক্রস সৃষ্টি করেছেন। যেখানে যীশু অনেক বেশি ঈশ্বরের চাইতে মানুষ হিসেবে প্রতিফলিত হয়েছে, উদাহরণ হিসেবে অরেওলা শিল্পকর্মটি তৈরী করা হয় নি, তবে তিনি গম্বুজের উপর দিয়ে দেবদূতদের উড়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে পবিত্রতার দিকেই ইঙ্গিত করেছেন। তিনি বলেছেন ইতালীয় আবহের সঙ্গে ল্যাতিন আমেরিকার ভাইবের সংমিশ্রণে তিনি এ শিল্পকর্মটি এঁকেছেন।

মেডেলিনের সান ক্রিস্টবাল [স্প্যানিশ ভাষায়] শহরে তার নামে যে পার্ক আছে সেখানে ৩ এপ্রিল তারিখে “ দি ক্যাট ওরফে বিড়াল” নামক ভাস্কর্যের [স্প্যানিশ ভাষায়] উদ্বোধন হবে। ১,০৫০ কেজি ওজন ও ৩৯০x ১৫০ x ১৯০ সেন্টিমিটারের এ ব্রোঞ্জ মূর্তিটি তার ওয়ার্কশপ পিএত্রাসান্তাতে(ইতালি) তৈরী করা হয়েছে। এ কাজের সাথে আরও অন্যান্য [স্প্যানিশ ভাষায়] শিল্পকর্ম তিনি দান করেছেন, মেডেলিন এবং কলম্বিয়া জুড়ে ৩০০ শিল্পকর্ম তিনি উদারভাবে দান করেছেন।

বতেরোর জন্মদিন উপলক্ষ্যে মেক্সিকো সিটির ফাইন আর্টস প্যালেসে প্রদর্শনী সহ বিভিন্ন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। তৈলচিত্র, ড্রয়িং,কারিগরী মিশ্রণ এবং ক্ষুদ্র ও বৃহৎ ভাস্কর্য সহ ১৭৭টি শিল্প কর্মের সমন্বয়ে যে প্রদর্শনীর আয়োজন হতে যাচ্ছে, তা তার সারাজীবনের কাজের একটি বৃহৎ সমাহার।

বতেরো ,তার অবিশ্রান্ত কাজকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য প্রবল অনুরাগ ও উৎসাহের সঙ্গে শিল্পকর্ম চালিয়ে যাবার দৃপ্ত ইচ্ছা পোষণ করেন । তিনি আরও নিশ্চিত করেন যে, শিল্প ছাড়া তিনি বাঁচার চিন্তা করেন না কারণ তিনি পেইন্টিং ব্যতীত জীবনধারণের কথা ভাবতেই পারেন না। তিনি ইতালির পিএত্রাসান্তা নগরীকে পরিচিত করে দেন তার খুবই প্রিয় শহর হিসেবে, যেখানে তার কাজকে পরিচর্যা করার জন্য তিনি জীবনের অধিকাংশ সময় কাটিয়েছেন। তিনি ১৬০টি আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী করেছেন যার অর্ধেক জাদুঘরে এবং বাকীগুলো উন্মুক্ত প্রাঙ্গণ যেমন রাস্তা,পার্ক প্রভৃতি স্থানে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বতেরো তার জন্মদিন উদযাপনের সময় নিরাপত্তা রক্ষী সহ বহু মানুষ পরিবেষ্টিত হয়ে আছেন (ডোনাল্ড জুলুয়াগার ধারণকৃত ছবি যা টুইটারে পাওয়া যাচ্ছে)। তবে,তার প্রদর্শিত কাজের দৈনিক স্বীকৃতি তাকে উৎফুল্ল করে তোলে। যখন তিনি শহরের রাস্তা অতিক্রম করেন তখন তার প্রতি গভীর অনুরাগ প্রকাশিত হয়। টুইটার এবং ব্লগের মতো সামাজিক যোগাযোগ নেটওয়ার্ক সহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে তার উপস্থিতি তুলে ধরার মাধ্যমে এই ধরনের সশ্রদ্ধ অনুভূতি দেখা যায়।

বতেরো, সান ক্রিস্টোবাল জেলা শহরকে নতুন কাজ দান করায় ভ্যানেসা ডি লা টরে তার (বতেরোর) প্রশংসা করেন:

Todos los aplausos al Maestro Fernando Botero por regalarle una escultura: El Gato, a su ciudad natal. Esta en San Cristóbal, Medellín

’দি ক্যাট’ নামক ভাস্কর্যটিকে তিনি তার নিজের শহরকে দান করেছেন, এর জন্য মাস্টার ফার্নান্ডো বতেরোর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করি। তার শহর মেডেলিনের সান ক্রিস্টাবাল।

গ্রাবিয়েল জেইমে রিকো (@রিকোগ্রাবিয়েল), সান ক্রিস্টাবাল–এ দি ক্যাট নামক ভাস্কর্যের জন্য যে সব গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়া গ্রহণ করা হয়েছে এবং সেটিকে স্থাপন করার বিষয় নিয়ে লিখেছেন:

#elgatodebotero fue importado desde Italia por @plazamayormed y será instalado en el parque biblioteca “Fernando Botero” de San Cristóbal.

@প্লাজামায়োরমেড ইতালি থেকে বতেরোর #দিক্যাট নামক স্থাপত্যটি নিয়ে এসেছে এবং মেডেলিনের সান ক্রিস্টোবাল পার্কে সেটিকে স্থাপন করা হবে।

এস্তেবান ভেগু ভি (@এস্তেবানভেগু) ঠাট্টার ছলে “দি ক্যাট”-এর কথা উল্লেখ করেছে [স্প্যানিশ ভাষায়] এবং চোরদের ঘটনার সাথে বিড়ালের সাদৃশ্য উপস্থাপন করেছেন, যা মেডলিনকে বিস্মিত করে:

Esperemos que “El Gato” de Botero coja tanta “Rata suelta” que hay en Medellín.

আমরা আশা করি যে বতেরোর ‘দি ক্যাট’ মেডেলিনে যত চোর ইঁদুর আছে তার সবগুলোকে ধরতে পারবে।

কামিলো দুরান কাসাস (@সিদুরাঞ্চা) বতেরোকো [স্প্যানিশ ভাষায়] দেশের এক উত্তম প্রতিনিধি বলে উল্লেখ করেছেন এবং মানবিক এবং পেশাদার মূল্যবোধের মধ্যে দিয়ে তার নিজের জন্মদিন উদযাপনের প্রশংসা করেছেন:

El maestro Fernando Botero a sus ochenta años está en la cúspide de su madurez artística y humana. Un orgullo para Colombia.

মাস্টার ফার্নান্ডো বতেরো এবং তার ৮০ তম জন্মদিন, শিল্পীর শৈল্পিক এবং মানবিক পরিণতি বোধের তীক্ষ্ণ চেহারা তুলে ধরেছে, কলম্বিয়ার জন্য যা এক গর্বের বিষয়।

সামির ইয়েসিদ উরজান (@সামুরগা) যখন বতেরোকে তার জীবনের শেষকটি বছর সম্বন্ধে প্রশ্ন করা হয় তখন তিনি প্রায়শ যে উক্তি ব্যবহার করেন, সামির ইয়েসিদ উরজান তার পুনরায় ব্যবহার করেছে [ স্প্যানিশ ভাষায়]:

“Sólo temo tener que vivir sin poder pintar.” Fernando Botero

““বেঁচে থাকার ক্ষেত্রে ছবি না আঁকতে পারাটাই আমার একমাত্র ভয়”। ফার্নান্ডো বতেরো।

হলিউইক এবং স্টেশন অফ দা ক্রস নামক বিষয়ে এস্তাফানিয়া রুইজ (@এস্তাফানিয়ারুইজজ) তার মন্তব্য করেছে [স্প্যানিশ ভাষায়], যদিও তিনি স্বীকার করেছেন যে দি স্টেশনের শৈল্পিকতা তিনি পছন্দ করেন:

Al único viacrucis que me encantaría ir a ver es la obra del maestro Fernando Botero.

মাস্টার বতেরোর কেবল স্টেশন অফ দি ক্রস নামক কর্মটি দেখতে চাই।

এদিকে লা সিলা ভাসিয়া [ স্প্যানিশ ভাষায়] বতেরোর সাম্প্রতিক অনুদানের বিষয়ে একটি পরিপূর্ণ বিশ্লেষণ করেছে, অন্য প্রচার মাধ্যম [স্প্যানিশ ভাষায়] এবং টুইটারে [স্প্যানিশ ভাষায়] এই বিষয় সম্বন্ধে নানাবিধ মন্তব্য এবং রিপোর্ট এসেছে।

মেডেলিনে বতেরোর ‘দি ক্যাট’। ফ্লিকারে টেলিমেডেলিনের ছবি (সিসি বিওয়াই- এনসি- এসএ ২.০)

অনেকে আছেন যারা বতেরোর কাজকে শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে কথা বলতে যথেষ্ট সময় নিয়েছেন, যেমন এডুয়ার্ডো মোরালেস (@এ্যাডুয়ার্ডোমোরালে৯৩) যিনি নিজেকে নিতে মজা করে টুইট বার্তা করেছেন:

Yo sí hubiera sido un excelente modelo… Pero para las pinturas de Botero! #ViernesSanto #SemanaSanta

আমি এক অসাধারণ মডেল হতাম…বতেরের চিত্রকর্মের জন্য!! #হলিফ্রাইডে #হলিউইক

কিন্তু অন্যরা বতেরোর চিত্রকর্মের বৈশিষ্ট্য নিয়ে এ ধরণের মতামত দেন নি। সার্জিও আরাউজো (@সার্জিওআরোজস) [ স্প্যানিশ ভাষায়] কলম্বিয়ায় অন্য চিত্রকারদের নিয়ে বতেরোর গর্হিত মন্তব্যের সমালোচনা করেনঃ

Fernando Botero “No tengo cuadros de ningún pintor Colombiano porque no admiro a ninguno.” Uffff ¡Terrible frase! despectiva, despreciativa.

ফার্নান্ডো বতেরো” আমার কাছে কলম্বিয়ান চিত্রকরদের কোন কাজ উল্লেখযোগ্য বলে মনে হয়, কারণ তাদের কেউই আমাকে মুগ্ধ করে না।” উফফ, বলাটা খুব কষ্টের! অবজ্ঞাসূচক ও অগ্রহণীয়।

জর্জ রকারও (@জর্জরকার) বতেরোর জন্য কোন ভালবাসা দেখান নি, বরং কলম্বিয়ায় তার উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অনুদানের বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছে:

Botero es feliz tramando bobos con los “regalos” que hace de sus esculturas….si, me cae mal ese tetramalparido 🙂

বতেরো তার “অনুদান” দ্বারা নির্বোধদের সাথে এবং তার নিজের শিল্পকর্মের সাথেও প্রতারণা করে সুখী…হ্যাঁ, আমি চতুর্দিক মোড়ানো এইসব মেকিদের পছন্দ করি না।

বিটার সোয়েট (@ইনভোকডড্রিম) মন্তব্য করেন যে মেক্সিকোতে চারুকলা গ্যালারিতে বতেরোর চিত্র প্রদর্শনী তিনি উপভোগ করেন নি:

Hoy fui a la expo. de Botero en Bellas Artes; Puras pinturas de gordas feas y todas iiug y mal encaradas, y bueno, la verdad no me gustó.

আজ আমি চারুকলা ভবনে বতেরোর চিত্র প্রদর্শনীতে গিয়েছি; সেখানে শুধু কুৎসিত স্থূলকায় মহিলাদের চিত্র আর উহ, সেখানে চমৎকার কোন মুখশ্রী ছিল না। আমার সত্যি পছন্দ হয় নি।

মেক্সিকো থেকে জেসাস মার্টিনেজ গুইতারেজও ডেল ক্যাস্টিলো লিটারেরিও ব্লগে বতেরোর বৈশিষ্ট্য নিয়ে কথা বলেছেনঃ :

Botero es un sólido continuador del modelo del arte como representación, o como reproducción de lo que hay, aunque su técnica no sea calcar la realidad sino inflarla para encontrar lo bello más allá de los límites de volumen real de las personas o de las cosas.

বতেরোর কাজের শক্তি হচ্ছে শিল্পের মডেলকে পুনরায় তুলে ধরা, অথবা আরো ভালো ভাবে বলতে গেলে যা আছে সেটির অনুরুপ আরেকটি নির্মাণ করা, যদিও তার নির্মাণ শৈলী বাস্তবতাকে ধারণ করে না, বরঞ্চ তা অতিরিক্ত বা স্ফীত বাস্তবতার আকারে প্রদর্শীত করে, প্রকৃত সংখ্যায় মানুষ অথবা বস্তুর পেছনের সৌন্দর্য্যকে আবিস্কারের জন্য

একই ব্লগে, শিল্পীর বিশ্ব জুড়ে শৈল্পিক কার্যকলাপের উল্লেখ ছাড়াও, লেখক মেডেলিন তার শিল্পকর্মের প্রদর্শনীর [স্প্যানিশ ভাষায়] বিষয়ে মন্তব্য করেছেন:

La exposición desvela el detallado estudio y el amor que el artista colombiano siente por la pintura italiana del Renacimiento. Botero aborda el tema de la pasión de Cristo desde contextos tan diversos como Manhattan o los pueblos antioqueños. El artista permanece fiel a los eventos de la historia de Cristo y también al singular estilo con el que ha conquistado la fama.

কলম্বীয় শিল্পীর এই শিল্পকর্ম প্রদর্শনী তার রেনেসাঁ যুগের ইতালীয় পেইন্টিং-এর উপর বিস্তারতি গবেষণা এবং ভালবাসাকে উন্মোচন করে। প্রেক্ষাপটে প্যাশান অফ ক্রাইস্টের প্রতি বতেরোর মনোভাব, ম্যানহাটন অথবা কলম্বিয়ার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র গ্রামের প্রতি তার মনোভাবের মত। শিল্পী যিশুখ্রিষ্ট্রের কাহিনী বিশ্বাস করেন এবং একই সাথে সেই বিশেষ ধারার প্রতি, যা তিনি খ্যাতি অর্জনে ব্যবহার করেছেন।

১৯ এপ্রিল তারিখে, তার জন্মদিনে, কলম্বিয়ার বোগটায়, সরকারি স্কুলের ছাত্রছাত্রী এবং কর্তৃপক্ষের সাথে এক প্রোডাকশনের মাধ্যমে বতেরো জাদুঘর [স্প্যানিশ ভাষায়], তাকে এক সম্মাননা প্রদর্শন করবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .