বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইকুয়েডর: “ফিয়েস্টাস ডে কুইটো”: ঐতিহ্য আর প্রতিরোধ

‘ফিয়েস্টাস ডে কুইটো’ উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে আলো এবং রঙের খেলা। ছবি ফ্লিকার ব্যবহারকারী প্রেসিডেন্সিয়া ডে লা রিপাবলিক ডেল ইকুয়েডর-এর। এট্রিবিউশন-ননকর্মাশিয়াল-শেয়ার এলাইক-২.০ জেনেরিক ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সের অধীনে তা ব্যবহার করা হয়েছে।

“ফিয়েস্টাস ডে কুইটো” (কুইটো উৎসব) ইকুযেডরের অন্যতম এক গুরুত্বপূর্ণ এবং ঐতিহ্যবাহী উৎসব। সান ফ্রান্সিসকো ডে কুইটোর স্থাপনের মাধ্যমে এ বছর এই উদযাপন তার ৪৭৬ বছরে পা দিল। এই উৎসব বিষয় হচ্চে কুইটো শহরের বহুবিধ সংস্কৃতির, এর ঐতিহ্য এবং রান্না, বিভিন্ন বর্ণের মানুষের এবং নানাবিধ জাতীয়তার সৌরভের মিশ্রণ। এই সময়টি রঙিন এবং সঙ্গীতময় এক উৎসবের সময়।

যদি “কে ভিভা কুইটো!” শব্দটি আপনি চিভাস বা বাসের মধ্যে শুনতে পান, তাহলে বুঝবেন যে এখনকার সমস্ত বাসগুলো নাচতে থাকা মানুষে পরিপূর্ণ রয়েছে, এবং যদি অফিস এবং আশেপাশের এলাকায় ঐতিহ্যবাহী কুয়ারেনটা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে, তাহলে মনে হবে যে এটাই যেন একমাত্র শব্দ যা রাস্তায় শোনা যাচ্ছে। কুয়ারেনটা ইকুয়েডরের নিজস্ব এক তাসের খেলা। এই খেলা খেলার সময় প্রতিটি খেলোয়াড় একটি করে অর্থপূর্ণ শব্দ উচ্চারণ করবে; এবং সে সময় বাতাসে আপনি হয়ত কানেলাজোর-এর গন্ধ পাবেন। কানেলাজোর ইকুয়ডরের এক ঐতিহ্যবাহী মদ জাতীয় পানীয়, যা চিনি এবং বেত গাছ থেকে পাওয়া মদ (আগুয়ারারাডিয়েন্তে) এবং দারুচিনি মিশিয়ে বানানো হয়, যখন বাতাসে এসবের গন্ধ ভেসে আসে, বুঝতে হবে তার মানে ‘ফিয়েস্টাস ডে কুইটো’ [স্প্যানিশ ভাষায়] নামক উৎসব শুরু হয়ে গেছে। এই অনুষ্ঠান ইকুয়েডরের রাজধানীতে নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে শুরু হয় এবং ডিসেম্বরের ৬ তারিখে শেষ হয়।

এই উৎসবের সময়, যে কেউ একজনকে শহরের বাদক দল “ব্যান্ডাস ডে পুয়েবেলো” [স্প্যানিশ ভাষায়] ভক্ত হয়ে উঠবে এবং তাদের সাথে নাচবে এবং “টারিমাস” দেখতে বের হবে। “টারিমাস” হচ্ছে সারা শহর জুড়ে রাস্তার উপরে তৈরি করা মঞ্চ, যেখানে নৃত্যশিল্পী, সঙ্গীতজ্ঞ এবং অন্য সব শিল্পীদের দ্বারা তৈরি সৃষ্টিশীল কর্মকাণ্ড প্রদর্শিত হয়।

“লিন্ডো কুইটো ডে মি ভিডা” (আমার জীবনের সুন্দর কুইটো) নামক গানটি এই উদযাপন অনুষ্ঠানের অনুষ্ঠানিক সঙ্গীত। এর সাথে “চুল্লা কুইটেনিও” নামের গানটিকেই এর অনুষ্ঠানিক সঙ্গীত হিসেবে ধরা হয়। এই গানটি ইকুয়েডরের এক ঐতিহ্যবাহী চরিত্রকে চিত্রিত করে, যে কিনা আদি ইকুয়েডরিয়ান নাগরিক, বাচাল, যাযাবর এবং একজন বুদ্ধিজীবী।

ফান্ডান্ডো মেনা (@ফেরচো১৭১৯) স্মৃতি রোমন্থনের মধ্যে দিয়ে এই উৎসবকে স্মরণ করছেন:

recuerdos de fiestas de quito.. en esos bailes populares de los barrios era el preciso momento para ligar. uff eso les cuento cuando tenia 16

“ফিয়েস্টাস ডে কুইটো” নামক উৎসবের স্মৃতি… সেই সময় আশেপাশের এলাকায় জনপ্রিয় সব নাচ নাচা, দল বেঁধে সবাই বেরিয়ে পড়ার সেটাই সবচেয়ে সঠিক সময়। এসব ঘটনা তখন ঘটত, যখন আমার বয়স ছিল ১৬ বছর।

@এ_কোয়াটিক্স এই উৎসবের গভীরতা সম্বন্ধে টুইট করেছে:

Recorriendo x toda la ciudad las fiestas se viven intensamente! Chivas, Orquestas, Bandas, Trios, Comida Tipica. Que lindo es nuestro Quito!

সারা শহরে ঘুরে বেড়ানো। এই অনুষ্ঠানটি অনেক নিবিড় এক অনুষ্ঠান! চিভাস, অর্কেস্ট্রা, ব্যান্ড, ট্রায়োস, এখানকার ঐতিহ্যবাহী খাবার। আমাদের কুইটো খুব সুন্দর!!

এজিজেডি (@এজিজারামিলো) প্রদর্শন করছে যে কি ভাবে এই উদযাপন, বন্ধুদের সাথে উপভোগ করা হয়:

Resumen after fiestas de Quito 2010…. Excelentes… Falto la Chiva pero con la compañia de los amigos se paso increible…

ফিয়েস্টাস ডে কুইটো ২০১০… এর সারসংক্ষেপ… অসাধারণ.. আমি চিভাস বা বাসের অনুষ্ঠানটি দেখার সুযোগ পেলাম না, কিন্তু বন্ধুদের সঙ্গলাভের ফলে আমার অসাধারণ কিছু সময় কাটল…

ষাঁড়ের লড়াই এবং ধর্ম

এই উৎসবের সময় “ফেরিয়া ডে, কুইটোজেসাস ডেল গ্রান পোডের” [স্প্যানিশ ভাষায় ] (কুইটো মেলা: “অসীম ক্ষমতাময় যীশু খ্রীষ্ট”) নামক মেলা অনুষ্ঠিত হয়। এটি ল্যাটিন আমেরিকার অন্যতম এক গুরুত্বপূর্ণ ষাঁড়ের লড়াইয়ের মেলা [স্প্যানিশ ভাষায়]। এখানে ষাঁড়ের লড়াইয়ের সাথে স্প্যানিশ সঙ্গীত এবং ঐতিহ্যকে বাঁচিয়ে রাখা হয়েছে। ফেসবুক পাতা সোমাস ইকুয়েডর [স্প্যানিশ ভাষায়] (আমরা ইকুয়েডরিয়ান)-এর কর্মকাণ্ড সমন্ধে জানাচ্ছে এবং এক সংস্কৃতি বৈচিত্র্য, ঐতিহ্য, শিল্প এবং প্রকাশের স্বাধীনতার অংশ হিসেবে “ফিয়েস্তে ব্রাভার (ষাঁড়ের লড়াই)”-র ধারণা এবং তার গুণগান প্রচার করছে ।

ছবি ফ্লিকার ব্যবহারকারী পুরোলিপানের। এট্রিবিউশনননকর্মাশিয়াল-শেয়ার এলাইক ২.০ জেনেরিক ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সের অধীনে তা ব্যবহার করা হয়েছে।

সম্প্রতিক বছরগুলোতে ষাঁড়ের লড়াইয়ের বিরুদ্ধে এক শক্তিশালী আন্দোলন দানা বেঁধে উঠেছে [স্প্যানিশ ভাষায়]। এই আন্দোলনেরও নিজস্ব ফেসবুকের পাতা রয়েছে, যার মান ‘কুইটো এন্টি টোরিনো’ [স্প্যানিশ ভাষায় ]। এক সমালোচনামুখর দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে, গ্যাব্রিয়েল রাইট (@জিরাইট) এক মন্তব্য করেছে:

Otra de las cosas insólitas de las fiestas de Quito: nombre de la feria “Jesús del Gran Poder” No entiendo la relación de los toros y Jesús.

“ফিয়েস্টাস ডে কুইটো” আরেকটি অবিশ্বাস্য বিষয় হচ্ছে এর মেলার নাম নাম “অসীম ক্ষমতাময় যীশু খ্রীষ্ট”। যীশুর সাথে ষাঁড়ের লড়াইয়ের মিল কোথায় তা আমি বুঝতে পারি না।

এই উৎসবের সময় “রেইনা ডে কুইটো” (কুইটোর রাণী)-কে বেছে নেওয়া হয়, এটাই এই উৎসব শুরু হবার চিহ্ন। কুইটোর রাণী শহরের নানা সামাজিক কর্মকাণ্ডে সাহায্য করার ক্ষেত্রে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

এই বছর রাস্তার এই উদযাপন এবং ঐতিহ্যবাহী কুচকাওয়াজের “দুই শত বছরে পা দেওয়া” এবং “স্বাধীনতার জন্য প্রথম তোলা আওয়াজ” চিহ্নিত করা মধ্যে দিয়ে পালিত হল। এখানে মনে রাখতে হবে যে ইকুয়েডর হচ্ছে দক্ষিণ আমেরিকার প্রথম রাষ্ট্র, যারা স্পেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভ করে। এই বছরের কুচকাওয়াজের আরেকটি উপাদান ছিল, “কুইটোকে ২০১১ সালের সংস্কৃতিক রাজধানী” হিসেবে ঘোষণা করা।

পাবলো গারজন (@পিগারজন) এই উদযাপন এবং লোকজন যে অভিজ্ঞতা লাভ করেছে, তার গভীরতার উপর মন্তব্য করেছে:

Convencido que las Fiestas de Quito son mucho más que las corridas de toros. Chivas, bandas de pueblo, el 40, fiesta en la calle, etc, etc.

আমি বিশ্বাস করি যে “ফিয়েস্টাস ডে কুইটো” কেবল ষাঁড়ের লড়াই, চিভাস নামক বাস, শহরের বাদক দল, ৪০ নামের [তাসের খেলা], রাস্তায় উদযাপন করা, ইত্যাদি, ইত্যাদির চেয়ে অনেক বেশি কিছু।

এই উৎসব নিয়ে মূল্যায়ন, সমালোচনা এবং মন্তব্য চলবে, যতক্ষণ না নতুন ফিয়েস্টাস ডে কুইটোর আগমন ঘটে, উৎসবের মেজাজকে আবার চাঙ্গা করে তোলা, বন্ধু এবং পরিবার, পার্টি এবং উদযাপন করা, ঐতিহ্যের এক চাদরে মোড়ানো উৎসবের এবং প্রতিরোধের সুর তোলার জন্য।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .