বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভেনিজুয়েলা: কমিউনিটি থিয়েটার শহুরে বাস্তবতা তুলে ধরছে

নুয়েভো সির্কো আর্তিস্তিকো ভেনিজুয়েলার একটি প্রকল্প যারা নাটকের মাধ্যমে শিল্প, সৃষ্টি আর পরিচয় খোঁজার জন্য নিবেদিত এবং তারা ব্লগ ব্যবহার করে তাদের দলের কার্যাবলী নথিভুক্ত করার জন্য। তাদের নিজেদের বর্ণনা অনুসারে, এটা ভাবাদর্শের বিতর্কের স্থান, মতামতের বিনিময় আর সংস্কৃতি, শিল্প, রাজনীতি আর যোগাযোগ এর সংঙ্গা নিয়ে আলোচনার স্থান। কারাকাসের একটি অংশ, যেখানে ইতিহাস, পরিবর্তন আর উগ্র শহুরে আমেজ আছে, সেখানে এই দল নাটকের কার্যক্রম দিয়ে ছোটদের আর কমিউনিটির অন্যান্যদের সাথে একত্র হওয়ার নতুন পথ খুঁজছে। তারা ভেনেজুয়েলার ক্রমশ: বিস্তারিত বৈচিত্র ও পরিপ্রেক্ষিত নিয়ে একে অপরকে জানান আর মিথস্ক্রিয়ায় মেতে উঠেছে।

নুয়েভো সির্কো আর্তিস্তিকো

নুয়েভো সির্কো আর্তিস্তিকো

তাদের কাজের কিছু অংশ পডকাস্টে শোনা যাবে (স্প্যানিশ ভাষায়), আর কিছু সাক্ষাৎকার ব্যাখ্যা করবে (যেমন নীচেরটা, যা রেডিওতে আর ইউটিউবে প্রচারিত হয়েছে) তাদের লক্ষ্য কি আর কোন টুলস তারা ব্যবহার করছেন।

উপরের ভিডিওতে এই দল ব্যাখ্যা করছে যে এই প্রকল্প কারাকাসের প্রয়োজনে গঠিত হয়েছিল। প্রকল্পের নেতাদের কথা অনুসারে, সংস্কৃতি হছে জারজ সন্তান – তাই শিল্পী, সঙ্গীতশিল্পী, অভিনেতা আর শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট অন্যরা একে গ্রাহ্য করছেন না, বা জনগণও সমর্থন করছেন না। তারা যেহেতু অনেক শিল্পীকে দেখেছেন, তাদের প্রকল্পকে বাঁচাচ্ছেন অন্য কোন কাজ করে পেটের ভাত যোগাড় করে। আয়ের সমস্যার কারণেই বেশীরভাগ কমিউনিটির নির্ভর শিল্প কখনো পুরোপুরি লক্ষ্য অর্জন করেনা।

যে স্থানে এই প্রকল্প গড়ে তোলা শুরু হয়েছে তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ যেহেতু এটা জনপ্রিয় ষাঁড়ের লড়াই এর স্থান যা ১৯১৬ সালে নির্মিত হয়েছিল। একদা এটি শহরের সব থেকে বড় বিনোদনের স্থান হিসাবে পরিগণিত হত। তারপরেও এটি ধীরে ধীরে বিস্মৃত হয়ে যায়, আর এর ফলে বাড়িটাও নষ্ট হতে থাকে। আর এই প্রকল্পের একটি প্রধান লক্ষ্য হল শহরের সেইসব স্থান ’পুনরুদ্ধার’ করা যা কারাকাসের শহুরে দাপটের তলায় পড়েছে। এর সাথে, আশা বাড়তে থাকে কমিউনিটির চেষ্টার আর এক সাথে কাজের মাধ্যমে সম্ভাবনা দেখা দেয় শহরের ‘পুনর্নির্মাণ’ এর, যা বস্তিকে শহরের গুরুত্বপূর্ণ অংশে পরিণত করছে।

তাদের কাজের একটা ভিত্তি যেহেতু নাটক, অনেক কথা ব্যয় করা হয় শিল্প আর সংস্কৃতির গুরুত্ব অনুসন্ধানে। তারা ভেনেজুয়েলার নিজস্ব লেখক আর চিত্রকে নিয়ে পড়াশুনা আর তাদের করা নতুন ধরণের প্রস্তাবকে সমর্থন করেন, আর এইসব ধারণাকে তারা লেখা আর আলোচনা দিয়ে সমর্থন করেন দেশের নিজস্ব পরিচয়ের খোঁজে। নিচের পোস্ট এই ধরনের ধারণার ভালো একটা উদাহরণ:

Independientemente de que nuestro teatro en su mayoría tenga marcadas raíces europeas en su sentido formal, es vital de cara al futuro que nuestro mestizaje, y que las culturas aplastadas por los conquistadores, como la negra y la indígena encuentren expresión en el teatro venezolano y sobretodo en el teatro realizado por los cultores populares. ¡Qué importa que la forma sea europea! Lo que interesa es que en principio el contenido, el fondo, tenga nuestra voz, que se cuele algo de nuestros barrios Niño Jesús, las Lomas de Urdaneta, 23 de Enero, aunque estemos montando La Farsa de Maese Pathelin, nuestras raíces pobres estarán presentes, lo ideal es que sea algo consciente y que se reconozca con orgullo.

আমাদের নাটকের পোশাকি প্রকাশের মূল রয়েছে ইউরোপে, এই বাস্তবতা ছাড়াও এটা গুরুত্বপূর্ণ যে ভবিষ্যতে, আমাদের মেশার প্রক্রিয়া আর যে সংস্কৃতি স্পেনের দখলের ফলে চুরমার হয়ে গিয়েছিল, যেমন আফ্রিকান আর আদিবাসী সংস্কৃতি, এগুলো সব পথ খুঁজে পায় ভেনেজুয়েলার নাটকের আত্মপ্রকাশে বিশেষ করে আমাদের নিজস্ব জনপ্রিয় লেখকের মাধ্যমে। এটার গড়ন যদি ইউরোপীয় হয় তাতে কিছু যায় আসে না! যা গুরুত্বপূর্ণ তা হল যে এতে যেন মৌলিক বিষয় থাকে, আমদের কিছু বস্তির কণ্ঠ (নিনো জিশস, লোমাস দে উরদানেতা, ২৩ দে এনিরো) যেন শোনা যায়; যদিও আমরা দ্যা ফার্স অফ মাস্টার পিয়ের প্যাথেক্লিন নাটকটির মঞ্চায়ন করি, আমাদের শিকড় যেন মূলেই থাকে। মূল জিনিষ হচ্ছে এটা সচেষ্ট একটা কাজ হবে যা গর্ব সহকারে স্বীকার করা হবে।

কিন্তু, কোন স্থানকে নিরাপদ করার চেষ্টা খুব কঠিন ছিল, শহরের নিরাপত্তাহীনতার উচ্চমাত্রা হিসাবে রাখলে। দল নাটক, কনসার্ট করে যাচ্ছে আর বাচ্চাদের কাজ আর কর্মশালাও করছেন, কিন্তু শহুরে দাঙ্গা বন্ধ হচ্ছে না, যেটি এই বছরে মঞ্চায়নের সময়ে এক ছাত্রের মৃত্যু দিয়ে আবার বোঝা গেছে। তাদের ফেসবুক প্রোফাইলে (স্প্যানিশ ভাষায়), এই দল আলোচনা করছেন আর ভাবছেন যে এইসব কর্মসূচি যা তারা তাদের এলাকার জন্য তৈরি করছেন সেগুলো জনগণ দ্বারা আসলেই ভালোভাবে সমর্থিত কিনা, নাকি তারা শুধু সমর্থনের ভিক্ষা করছিলেন।

Segunda muerte que ocurre en el lugar, el primero fue un policia que resguardaba el sitio, que pasa con los impostores que usurparon el proyecto original, se han propuesto a mal poner al gobierno revolucionario?

এখানে ঘটে যাওয়া এটা দ্বিতীয় হত্যা। প্রথম ছিল একজন পুলিশ যিনি এই স্থানের রক্ষনাবেক্ষণ করতেন। যেসব নকল লোক মূল প্রকল্পকে দখল করছিল তাদের কি হয়েছে? তারা কি বিপ্লবী সরকারের করা কাজের খারাপ চিত্র তুলে ধরতে চাচ্ছে?

বিভিন্ন কমিউনিটি আর অপরাধ সমান তালে শহরে অসম লড়াই চালাচ্ছে আধিপত্য বিস্তারের জন্য এটা জেনে যে কেবল যে বেশী শক্তিশালী সেই টিকবে। মূল প্রশ্নটি থেকেই যাচ্ছে, কে বেশী শক্তিশালী হবে? কে শেষ পর্যন্ত টিকবে? একজন আর একজনের দিকে দেখাচ্ছে। এখানেও রাজনৈতিক মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে। যেহেতু কারাকাস ল্যাটিন আমেরিকার সব থেকে ভয়ঙ্কর শহরে পরিণত হয়েছে, শহরের অনেক কমিউনিটি অসমতা, শাসন, শিক্ষা আর সামাজিক বিভেদ ইত্যাদি সার্বজনীন সমস্যা আর এর ফলাফল নিয়ে সংগ্রাম করছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .